artk

স্টাফ রিপোর্টার

রোববার, আগষ্ট ২৫, ২০১৯ ৯:০৭

পঞ্চগড়ের চা-শিল্প ধ্বংসের ষড়যন্ত্রে মিল মালিকরা

প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা চান গরিব চা চাষিরা
media

পঞ্চগড়ে সমতলে চায়ের চাষ

পঞ্চগড়ের চা শিল্পকে ধ্বংস করার জন্য সিলেট ও পঞ্চগড়ের মিল মালিকরা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। একই সাথে ষড়যন্ত্র থেকে বাঁচতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহায়তাও চেয়েছে পঞ্চগড়ের গরিব চা চাষিরা।

চা চাষিদের পক্ষে চলতি বছরের ৮ আগস্ট সাপ্তাহিক পোস্টকার্ড’র সম্পাদক মোহাম্মদ মজিবর রহমান কর্তৃক প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো এক পত্রে এই অভিযোগ করার পাশাপাশি সহায়তা চাওয়া হয়। এর আগে গত ১৯ জুন আরেকটি পত্রে পঞ্চগড়ের চা চাষিদের দুর্ভোগের বিষয়টি তুলে ধরে পঞ্চগড়ের জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিনকে অবহিত করা হয়। যার অনুলিপি পাঠানো হয় কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুন্সী ও বাণিজ্য সচিবের কাছে।

প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো ওই পত্রে বলা হয়, আপনিই ২০০০ ইং সালে ‘চা শিল্প’ বাঁচানোর লক্ষ্যে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের স্বার্থে এবং পঞ্চগড়ের চা পাতা উৎপাদনকারী গরিব চাষিদের আর্থিক সচ্ছলতার জন্য পঞ্চগড়ে পরীক্ষামূলকভাবে দিনমজুর চাষিদের দিয়ে চা-পাতা উৎপাদন শুরু করান। আপনার এই মহৎ সিদ্ধান্তকে বাস্তবায়নের জন্য গরিব চাষিদের নিজ নিজ জমির বালু-পাথর ফেলে কালো মাটি গোবরসহ অন্যান্য রাসায়নিক দ্রব্য দ্বারা গঠিত মাটি পাথরের জমি উর্বর করে চা-পাতার চারা রোপণ করে চা-পাতার গাছ উৎপাদন করে। এই দুই কাজ করতে গিয়ে গরিব চাষিরা আরো গরিব হয়ে যায়। তবে ২/৩ বছর ধরে তারা কাঁচা চা-পাতার মোটামুটি মূল্য পেয়ে আর্থিকভাবে সচ্ছল হতে থাকে। গতবারও প্রতি কেজি চা-পাতার মূল্য ছিল ২৫ থেকে ৩৮ টাকা পর্যন্ত। কিন্তু এবার পঞ্চগড়ের চা শিল্পের কারখানার মালিকরা প্রতি কেজি চা-পাতার মূল্য নির্ধারণ করেছে ১২ টাকায় এবং পার্সেন্টিজ কেটেছে ২০-৪০ শতাংশ। অর্থাৎ চা-পাতার মূল্য পড়ে কেজিতে ৭ থেকে ৮ টাকা।

উল্লেখ্য, প্রতি কেজি চা-পাতা তুলতে খরচ পড়ে ৩ টাকা (পার্সেন্টিজ বাদে)। পার্সেন্টিজ ধরলে প্রতি কেজি উত্তোলন করতে খরচ পরে ৪ দশমিক ৫০ থেকে ৫ টাকা, যা তদন্ত করলেই জানা যাবে।

পঞ্চগড়ের চা চাষিদের দুর্ভোগের বিষয়টি ও চাষিদের করুণ কাহিনী তুলে ধরে পঞ্চগড়ের ডিসিকে পত্রের মাধ্যমে অবহিত করে অনুলিপি দেয়া হয় প্রধানমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান, বাণিজ্যমন্ত্রী, বাণিজ্য সচিব, কৃষিমন্ত্রীকে।

এদিকে গত ১৪ আগস্ট পুনরায় পঞ্চগড়ের জেলা প্রশাসককে চিঠির মাধ্যমে বিষয়টি অবহিত করার পর চা-শিল্পের কৃষকরা অর্থনৈতিকভাবে আরো নির্যাতিত হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, এই ষড়যন্ত্রের সাথে পঞ্চগড়ের চা-শিল্পের মিল মালিকরা প্রত্যেক্ষভাবে জড়িত। তাদের সাথে জড়িত আছে সিলেটের চা-বাগানের মালিকরা। মূলত তারা চায় না সিলেট বাদে অন্য কোনো জেলায় বা থানায় চা-চাষ করা হোক। অভিযোগ রয়েছে, একচেটিয়া বাজার দখল করতে পারবে না বিধায় এই হীনষড়যন্ত্রে লিপ্ত। পঞ্চগড়ের চা-শিল্প বিরোধী ষড়যন্ত্রে চট্টগ্রামের ‘অকশন হাউজ’ দালাল ও মধ্যস্বত্বভোগীরা জড়িত। উল্লিখিত অসৎ মিল মালিক বা বড় বড় চা বাগানের মালিকদের সহযোগিতা করে টি বোর্ডের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কিছু কর্মকর্তা ও কর্মচারী যার তথ্যাদি আছে। প্রসঙ্গত, প্রতি মঙ্গল ও বুধবার চট্টগ্রামে অকশনে চা-পাতা বিক্রি হয়। কিন্তু মাঝে মধ্যে পঞ্চগড়ের চা-পাতা অকশন হয় না। এর সাথে জড়িত বিশেষ করে সিলেটে চা-বাগানের মালিকরা এবং সহযোগী হলো বাংলাদেশ টি বোর্ডের কিছু অসৎ কর্মকর্তা-কর্মচারী ও দুর্নীতিবাজ বায়াররা। চট্টগ্রামের অকশন হাউজে এমন অনিয়মের ঘটনা এখন নিয়মে পরিণত হয়েছে।

চিঠিতে প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতা চাওয়ার পাশাপাশি আরো বলা হয়, চা আমদানি বন্ধ করে বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয় করার পদক্ষেপ নিন। সাথে সাথে সিলেটের চা বাগানের মালিক ও পঞ্চগড়ের চা কারখানার মালিকদের দেশের স্বার্থে ঐক্যবদ্ধ করে পঞ্চগড়সহ উত্তরবঙ্গে চা উৎপাদনের পদক্ষেপ নিলে কমবে বেকার যুবক-যুবতীদের সংখ্যা। বাড়বে কর্মসংস্থান। ঘুরে দাঁড়াবে উত্তরাঞ্চলের অর্থনীতির চাকা। অর্জিত হবে বৈদেশিক মুদ্রা।

পশুর চেয়েও নিকৃষ্ট ধর্ষক: প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাসের কারণে হজে যাওয়া না হলে টাকা ফেরত: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী দাঙ্গা নয়, দিল্লিতে পরিকল্পিত গণহত্যা হয়েছে: মমতা ভারতের সম্মান তলিয়ে দিয়েছে মোদি সরকার: মমতা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে সুনামগঞ্জে এনামুল-রুপন ছয় দিনের রিমান্ডে পিরোজপুরে সাবেক ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা চলতি বছরই তিস্তা চুক্তির সম্ভাবনা: শ্রিংলা ঢাকা উত্তরের নির্বাচন বাতিল চেয়ে তাবিথের মামলা খুলনায় ছাত্রলীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যা অভিনেতা গোলাম মুস্তাফার জন্মদিন সোমবার আদালতে টাউট-বাটপার শনাক্তের নির্দেশ পাওয়ার ট্রলিকে ধাক্কা দিয়ে বিকল রেলইঞ্জিন কলকাতা সফরে এসে প্রবল বিক্ষোভের মুখে অমিত শাহ রোবট চালাবে গাড়ি! ভিপি নূরকে হত্যার হুমকি দেয়ার পর দুঃখ প্রকাশ টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৭ জন নিহত রাখাইনপ্রদেশে সেনাদের গুলিতে শিশুসহ ৫ রোহিঙ্গা নিহত ইস্কাটনে ভবনে আগুন: মায়ের পর চলে গেলেন রুশদির বাবাও চট্টগ্রামে একটি বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ২ দেশে প্রতিদিন যক্ষ্মায় মারা যায় ১৩০ জন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনাভাইরাস আতঙ্কে আয়ারল্যান্ডের স্কুল বন্ধ ঘোষণা বিশিষ্ট সুরকার সেলিম আশরাফ আর নেই মোদীকে অতিথি হিসেবে সর্বোচ্চ সম্মান দেওয়া হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী মধুর যত জাদুকরী গুণ চিপসের প্যাকেটের ভিতর খেলনা নয়: হাইকোর্ট আমার গাড়িতেও অস্ত্র আছে কী না আমি জানি না: শামীম ওসমান ফ্র্যান্সেও করোনা, অনিশ্চিত কান চলচ্চিত্র উৎসব উপনির্বাচন: গাইবান্ধা-৩ আসনে প্রতীক বরাদ্দ গুজব ও গণপিটুনি রোধে হাইকোর্টের ৫ নির্দেশনা