artk
মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বার ১৭, ২০১৯ ১:১৭   |  ২,আশ্বিন ১৪২৬

স্টাফ রিপোর্টার

রোববার, আগষ্ট ২৫, ২০১৯ ৯:০৭

পঞ্চগড়ের চা-শিল্প ধ্বংসের ষড়যন্ত্রে মিল মালিকরা

প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা চান গরিব চা চাষিরা
media

পঞ্চগড়ে সমতলে চায়ের চাষ

পঞ্চগড়ের চা শিল্পকে ধ্বংস করার জন্য সিলেট ও পঞ্চগড়ের মিল মালিকরা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। একই সাথে ষড়যন্ত্র থেকে বাঁচতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহায়তাও চেয়েছে পঞ্চগড়ের গরিব চা চাষিরা।

চা চাষিদের পক্ষে চলতি বছরের ৮ আগস্ট সাপ্তাহিক পোস্টকার্ড’র সম্পাদক মোহাম্মদ মজিবর রহমান কর্তৃক প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো এক পত্রে এই অভিযোগ করার পাশাপাশি সহায়তা চাওয়া হয়। এর আগে গত ১৯ জুন আরেকটি পত্রে পঞ্চগড়ের চা চাষিদের দুর্ভোগের বিষয়টি তুলে ধরে পঞ্চগড়ের জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিনকে অবহিত করা হয়। যার অনুলিপি পাঠানো হয় কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুন্সী ও বাণিজ্য সচিবের কাছে।

প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো ওই পত্রে বলা হয়, আপনিই ২০০০ ইং সালে ‘চা শিল্প’ বাঁচানোর লক্ষ্যে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের স্বার্থে এবং পঞ্চগড়ের চা পাতা উৎপাদনকারী গরিব চাষিদের আর্থিক সচ্ছলতার জন্য পঞ্চগড়ে পরীক্ষামূলকভাবে দিনমজুর চাষিদের দিয়ে চা-পাতা উৎপাদন শুরু করান। আপনার এই মহৎ সিদ্ধান্তকে বাস্তবায়নের জন্য গরিব চাষিদের নিজ নিজ জমির বালু-পাথর ফেলে কালো মাটি গোবরসহ অন্যান্য রাসায়নিক দ্রব্য দ্বারা গঠিত মাটি পাথরের জমি উর্বর করে চা-পাতার চারা রোপণ করে চা-পাতার গাছ উৎপাদন করে। এই দুই কাজ করতে গিয়ে গরিব চাষিরা আরো গরিব হয়ে যায়। তবে ২/৩ বছর ধরে তারা কাঁচা চা-পাতার মোটামুটি মূল্য পেয়ে আর্থিকভাবে সচ্ছল হতে থাকে। গতবারও প্রতি কেজি চা-পাতার মূল্য ছিল ২৫ থেকে ৩৮ টাকা পর্যন্ত। কিন্তু এবার পঞ্চগড়ের চা শিল্পের কারখানার মালিকরা প্রতি কেজি চা-পাতার মূল্য নির্ধারণ করেছে ১২ টাকায় এবং পার্সেন্টিজ কেটেছে ২০-৪০ শতাংশ। অর্থাৎ চা-পাতার মূল্য পড়ে কেজিতে ৭ থেকে ৮ টাকা।

উল্লেখ্য, প্রতি কেজি চা-পাতা তুলতে খরচ পড়ে ৩ টাকা (পার্সেন্টিজ বাদে)। পার্সেন্টিজ ধরলে প্রতি কেজি উত্তোলন করতে খরচ পরে ৪ দশমিক ৫০ থেকে ৫ টাকা, যা তদন্ত করলেই জানা যাবে।

পঞ্চগড়ের চা চাষিদের দুর্ভোগের বিষয়টি ও চাষিদের করুণ কাহিনী তুলে ধরে পঞ্চগড়ের ডিসিকে পত্রের মাধ্যমে অবহিত করে অনুলিপি দেয়া হয় প্রধানমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান, বাণিজ্যমন্ত্রী, বাণিজ্য সচিব, কৃষিমন্ত্রীকে।

এদিকে গত ১৪ আগস্ট পুনরায় পঞ্চগড়ের জেলা প্রশাসককে চিঠির মাধ্যমে বিষয়টি অবহিত করার পর চা-শিল্পের কৃষকরা অর্থনৈতিকভাবে আরো নির্যাতিত হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, এই ষড়যন্ত্রের সাথে পঞ্চগড়ের চা-শিল্পের মিল মালিকরা প্রত্যেক্ষভাবে জড়িত। তাদের সাথে জড়িত আছে সিলেটের চা-বাগানের মালিকরা। মূলত তারা চায় না সিলেট বাদে অন্য কোনো জেলায় বা থানায় চা-চাষ করা হোক। অভিযোগ রয়েছে, একচেটিয়া বাজার দখল করতে পারবে না বিধায় এই হীনষড়যন্ত্রে লিপ্ত। পঞ্চগড়ের চা-শিল্প বিরোধী ষড়যন্ত্রে চট্টগ্রামের ‘অকশন হাউজ’ দালাল ও মধ্যস্বত্বভোগীরা জড়িত। উল্লিখিত অসৎ মিল মালিক বা বড় বড় চা বাগানের মালিকদের সহযোগিতা করে টি বোর্ডের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কিছু কর্মকর্তা ও কর্মচারী যার তথ্যাদি আছে। প্রসঙ্গত, প্রতি মঙ্গল ও বুধবার চট্টগ্রামে অকশনে চা-পাতা বিক্রি হয়। কিন্তু মাঝে মধ্যে পঞ্চগড়ের চা-পাতা অকশন হয় না। এর সাথে জড়িত বিশেষ করে সিলেটে চা-বাগানের মালিকরা এবং সহযোগী হলো বাংলাদেশ টি বোর্ডের কিছু অসৎ কর্মকর্তা-কর্মচারী ও দুর্নীতিবাজ বায়াররা। চট্টগ্রামের অকশন হাউজে এমন অনিয়মের ঘটনা এখন নিয়মে পরিণত হয়েছে।

চিঠিতে প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতা চাওয়ার পাশাপাশি আরো বলা হয়, চা আমদানি বন্ধ করে বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয় করার পদক্ষেপ নিন। সাথে সাথে সিলেটের চা বাগানের মালিক ও পঞ্চগড়ের চা কারখানার মালিকদের দেশের স্বার্থে ঐক্যবদ্ধ করে পঞ্চগড়সহ উত্তরবঙ্গে চা উৎপাদনের পদক্ষেপ নিলে কমবে বেকার যুবক-যুবতীদের সংখ্যা। বাড়বে কর্মসংস্থান। ঘুরে দাঁড়াবে উত্তরাঞ্চলের অর্থনীতির চাকা। অর্জিত হবে বৈদেশিক মুদ্রা।

১০ কোটি টাকার মামালাম পাহারায় ব্যয় ৪৬ কোটি শিশুরা কুশিক্ষা ও অপসংস্কৃতির রোষানলে আবদ্ধ -ফখরুল শোভনের দুর্দিনে পাশে থাকতে চায় জারিন দিয়া ইতালিতে কুড়িয়ে পাওয়া মানিব্যাগ ফেরত দিয়ে আলোচনায় বাংলাদেশি তরুণ ফাঁসির রায় শুনে আসামির হাসি বাসচাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত যুবকের কান কেটে নিয়ে প্রতিশোধ, প্রকাশ্যে উল্লাস নিখোঁজের দুদিন পর শিশুর মরদেহ উদ্ধার, আটক ১ সঠিক তদন্ত হলে সম্পাদক পদে পুনর্বহালের প্রত্যাশা রাব্বানীর ভক্তদের বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ মেহজাবিনের ইয়াবা ভাগাভাগি : পাঁচ পুলিশ রিমান্ডে ভোটার তালিকায় রোহিঙ্গা : ইসি কর্মীসহ আটক ৩ উন্নয়নের পাইপ লাইনে দুর্নীতির ছিদ্র: বারকাত জবি ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগ হাসপাতালের ফ্যান খুলে পড়ে রোগী আহত ডাকসু থেকে আমার পদত্যাগের দাবিটি অবান্তর: রাব্বানী সুরমার তীর পরিষ্কারে নেমেছেন ব্রিটিশ ৩ এমপি নতুন ভিডিও প্রকাশ: রিফাতকে একাই হাসপাতালে নেন মিন্নি এবার আমিরাতের জাহাজ আটকে দিল ইরান সৌদিতে যে কোনো মুহূর্তে ফের হামলা হতে পারে: ইয়েমেন সীতাকুণ্ডে ২ কারখানাকে সাড়ে ২৫ লাখ টাকা জরিমানা সৌদি তেল স্থাপনায় হামলা: যা বলল চীন কোনো রোহিঙ্গাই এনআইডি কার্ড পাননি: এনআইডি ডিজি শহিদুল আলমকে ভিসা দিল না ভারত অফিসে আটকে রেখে শ্রমিককে মারধরের অভিযোগ যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে সম্পাদক পরিষদ সভাপতি মাহফুজ আনাম, সা. সম্পাদক নঈম নিজাম এবার শুরু হচ্ছে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের চট্টগ্রাম পর্ব প্রধানমন্ত্রী পেলেন ড. কালাম স্মৃতিপদক অর্থপাচারকারী ধরতে এফবিআইয়ের সহযোগিতা চাইলেন দুদক চেয়ারম্যান জাতীয় পার্টির সাংসদ জিন্নাহকে সম্পদের নোটিশ