artk
শনিবার, ডিসেম্বার ১৪, ২০১৯ ১২:০৬   |  ৩০,অগ্রহায়ণ ১৪২৬

স্টাফ রিপোর্টার

শুক্রবার, আগষ্ট ২৩, ২০১৯ ৭:৫১

রোহিঙ্গ প্রত্যাবাসনে সরকার কূটনৈতিকভাবে ব্যর্থ: রিজভী

media

বিএনপির এ নেতা বলেন, এই সরকারের পতন তরান্বিত করতে হবে, গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে। গণতন্ত্রের প্রতীক দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির মধ্য দিয়েই এই দেশের মানুষ মুক্তভাবে কথা বলা নিশ্চিত হবে।’

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সরকার কূটনৈতিকভাবে ব্যর্থ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

শুক্রবার জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল ও জাতীয়তবাদী মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্মের উদ্যোগে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে মিছিলের পর সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে এ মন্তব্য করেন তিনি।

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের নির্ধারিত কর্মসূচির দিনে বৃহস্পতিবার একজন রোহিঙ্গাও নিজ দেশে ফেরত না যাওয়ার প্রসঙ্গ টেনে রিজভী বলেন, ‘রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সরকার কিচ্ছু করতে পারেনি, কিছুই পারেনি। এদের বিষয়ে এতদিন হয়ে গেল আপনারা (সরকার) একজন মানুষকেও ফেরত পাঠাতে পারলেন না। এই ব্যর্থতা তো চরম ব্যর্থতা। আপনারা কূটনৈতিকভাবে ব্যর্থ হয়েছেন।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেনের বক্তব্যের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘একজনকেও আপনারা প্রত্যাবাসন করতে পারেননি। তারপর আবার ধমক দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। বাহ!’

‘এত দিন ধরে....। আপনাদের নাকি এত বন্ধু আছে, তারা কেউ কিছু করতে পারল না আপনাদের জন্য। অথচ এই যে এতগুলো মানুষের চাপ বাংলাদেশের সহ্য করতে হচ্ছে।’

সরকারের উদ্দেশে রিজভী বলেন, ‘আপনারা কূটনৈতিকভাবেই ব্যর্থ শুধু নয়, আপনারা অর্থনৈতিকভাবে ব্যর্থ, আপনারা আইন-শৃঙ্খলা পরিচালনা করতে ব্যর্থ। তাই চারদিকে রক্ত ঝরছে, লাশ পড়ছে, নারী-শিশুরা নির্যাতিত হচ্ছে।’

বিএনপির এ নেতা বলেন, এই সরকারের পতন তরান্বিত করতে হবে, গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে। গণতন্ত্রের প্রতীক দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির মধ্য দিয়েই এই দেশের মানুষ মুক্তভাবে কথা বলা নিশ্চিত হবে।’

এর আগে সাড়ে ১১টায় নয়া পল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাত ও সাধারণ সম্পাদক সাদেক আহমেদ খানের নেতৃত্বে নেতাকর্মীদের নিয়ে মিছিল করেন রিজভী। এ সময় খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে নেতাকর্মীরা মুহুর্মুহু স্লোগান দেন।

প্রসঙ্গত, ব্যাপক প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও রোহিঙ্গাদের অনাগ্রহের কারণে শেষ পর্যন্ত ব্যর্থ হয়েছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুর কর্মসূচি। নাগরিকত্ব, নিরাপত্তা, বসতভিটাসহ সম্পদ ফেরত ও নিপীড়নের বিচার নিশ্চিত না হলে রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে ফিরে যাবে না বলে আগের অবস্থানেই অনঢ় রয়েছে।

বিনিয়োগে ঝুঁকির মাত্রা কমেছে মূলধন কমেছে ৮৬৭৭ কোটি টাকা, সূচকেও পতন শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে জনতার ঢল টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ ইয়াবা কারবারি নিহত সা’দত আল-মাহমুদের দুটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন ভিটামিন ডি-এর চাহিদা পূরণ করবেন কিভাবে? খুলনায় পাটকল শ্রমিকদের অনশন তিনদিনের জন্য স্থগিত মঙ্গলে অদ্ভূত অক্সিজেন বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা ভারতের নাগরিকত্ব আইনের সংশোধন চায় জাতিসংঘ শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস শনিবার, শ্রদ্ধা জানাতে প্রস্তুত স্মৃতিসৌধ বিশ্বে ক্ষমতাধর নারীর তালিকায় ২৯তম শেখ হাসিনা দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তিকে মুক্ত করা আইনের পরিপন্থী: গণপূর্তমন্ত্রী দৈনিক সংগ্রামের অফিসে ভাঙচুর, সম্পাদক পুলিশ হেফাজতে উত্তাল পরিস্থিতিতে শিলং সফর বাতিল করলেন অমিত শাহ ফিলিং স্টেশনে ৪ বছরে ৪৮ কোটি টাকার গ্যাস চুরি! ট্রাকের ধাক্কায় কবি নজরুল কলেজের শিক্ষার্থীর মৃত্যু ৪০ বছরের অভিজ্ঞতায় এত ভয়াবহ বার্ন দেখিনি: সামন্ত লাল শাজাহান খানের সম্পত্তির খোঁজ নেয়া উচিৎ: নিক্সন চৌধুরী ‘যত খুশি পেঁয়াজ নিয়া যান’ বীরগঞ্জে একসঙ্গে ২০ জোড়া এতিম তরুণ-তরুণীর বিয়ে ত্বকের যত্নে উপটান এনআরসি-সিএবি বিলের বিরুদ্ধে গণ-আন্দোলনের ডাক মমতার চাঁদপুরে গ্রাহকদের কোটি টাকা নিয়ে উধাও এনজিও জাপানের প্রধানমন্ত্রীও বাতিল করলেন ভারত সফর ২ মন্ত্রীর ভারত সফর বাতিলের কারণ জানালেন ওবায়দুল কাদের যুক্তরাজ্যে প্রথমবারের মতো এমপি সুনামগঞ্জের কন্যা আফসানা পাঞ্জাবি ও জ্যাকেটের পকেটে দুই কেজি স্বর্ণ খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপির বিক্ষোভ সামুদ্রিক মাছে কাপড়ের রং মিশিয়ে বিক্রি