artk
শনিবার, ডিসেম্বার ৭, ২০১৯ ৯:৩৬   |  ২৩,অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ধর্ম ডেস্ক

শনিবার, আগষ্ট ১০, ২০১৯ ৯:২৩

শনিবার পবিত্র হজ

media

শনিবার পবিত্র হজ। সৌদি আরবে হিজরি মাস গণনা অনুযায়ী শনিবার ৯ জিলহজ আরাফা দিবস বা আরাফাতের ময়দানে অবস্থানের দিন। এদিন বিশ্ব মুসলিমের মহাসম্মিলনের দিন। 

বিশ্বের ১৬০টির বেশি দেশের ২৫ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসলমানের কণ্ঠে উচ্চারিত ‘লাব্বাইক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক, লা-শারিকালাকা লাব্বাইক’ ধ্বনিতে প্রকম্পিত হবে আকাশ-বাতাস। এক জান্নাতি আবহ তৈরি হবে পুরো ময়দানে। সবার পরনে সাদা দুই খণ্ড বস্ত্র। সবার দীন বেশ। দুনিয়া ও আখিরাতের কল্যাণ, রহমতপ্রাপ্তি ও নিজের গুনাহ মাফের জন্য আল্লাহ তায়ালার কাছে অশ্রুসিক্ত ফরিয়াদ জানাবেন সমবেত মুসলমানেরা। সব হজযাত্রী ও বিশ্বমুসলিমের জন্য প্রদান করা হবে খুতবা। যাতে থাকবে মুসলিম উম্মাহর জন্য দিকনির্দেশনা। বিশ্বভ্রাতৃত্বের এক অনুপম দৃশ্যেরও অবতারণা হবে আজ এই ময়দানে। 

এদিন জোহরের নামাজের ওয়াক্তের আগেই বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছুটে আসা মুসলমানরা সমবেত হবেন মসজিদুল হারাম থেকে প্রায় ২২ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত ঐতিহাসিক আরাফাতের ময়দানে। ১৪০০ বছর আগে এই ময়দানেই রাসূল (সা) লক্ষাধিক সাহাবিকে সামনে রেখে ঐতিহাসিক বিদায়হজের ভাষণ দিয়েছিলেন। এই ময়দানেই ইসলামের পরিপূর্ণতার ঘোষণা দিয়ে কুরআনের আয়াত নাজিল হয়েছিল। 

আরাফাতের ময়দান হেরেম এলাকার বাইরে কাবা শরিফ থেকে দক্ষিণ-পূর্ব দিকে অবস্থিত। এই ময়দান প্রায় সাড়ে ১০ কিলোমিটার বিস্তৃত। 

হাজীরা শনিবার আরাফাতের বিশাল প্রান্তরে অবস্থান করে মসজিদে নামিরাহ থেকে প্রদত্ত খুতবা শুনবেন এবং একসাথে জোহর ও আসরের নামাজ একই ইমামের পেছনে জোহরের ওয়াক্তে আদায় করবেন। সূর্যাস্তের পর ময়দান ত্যাগ করবেন। 

৮ জিলহজ থেকে টানা পাঁচ দিন ধরে হজের আরো অনেক করণীয় থাকলেও ৯ জিলহজ আরাফাতের ময়দানে অবস্থানের দিনকেই হজের দিন বলা হয়। হজের কার্যাদি আনুষ্ঠানিকভাবে পালন শুরু হয়েছে শুক্রবার মিনার তাঁবুতে অবস্থানের মধ্য দিয়ে। ভিড় এড়াতে অনেক হাজী আগের দিন বৃহস্পতিবার রাত থেকেই মিনায় যাওয়া শুরু করেন। মিনায় হাজীদের জন্য তিন লাখ ৫০ হাজার শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত তাঁবু স্থাপন করা হয়েছে। পুরুষ ও মহিলাদের থাকার জন্য আলাদা তাঁবু রাখা হয়েছে। গতকাল মিনায় তালবিয়া, জিকির, নফল নামাজ, হজের মাসলা-মাসায়েল আলোচনার মধ্য দিয়ে সময় অতিবাহিত করেন হাজীরা। এদিন ফজরের নামাজের পর সূর্যোদয়ের পর থেকে আরাফাতের ময়দানের উদ্দেশে হাজীদের রওনা হওয়ার নিয়ম। তবে ভিড় এড়াতে অনেকে রাতেই আরাফাতের উদ্দেশে রওনা হন এবং সেখানে গিয়ে অস্থায়ী তাঁবুতে অবস্থান নেয়া শুরু করেন। বাসে, পায়ে হেঁটে হাজীরা সেখানে পৌঁছান। বাকিরা শনিবার সকালে মিনা থেকে সরাসরি আরাফাতের ময়দানে চলে যাবেন। সূর্য পশ্চিমাকাশে হেলে পড়ার পর থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত আরাফাতের ময়দানে অবস্থান করা হজের অন্যতম ফরজ। কেউ এই সময়ের মধ্যে এই ময়দানে অবস্থান করতে না পারলে হজ আদায় হবে না।

এই ময়দানে জোহরের সময় হওয়ার পর পর জোহর ও আসরের নামাজ জামাতের সাথে আদায় করবেন হাজীরা। মুসাফির হওয়ার কারণে নামাজ কসর করবেন (চার রাকাতের স্থলে দুই রাকাত)। নামাজের আগেই মসজিদে নামিরাহ থেকে খুতবা দেবেন নির্ধারিত খতিব। এর আগে পরে হজযাত্রীদের কণ্ঠে উচ্চারিত ‘লাব্বাইক’ ধ্বনিতে মুখরিত হবে পুরো ময়দান। আমির-ফকির, ধনী-গরিব, সাদা-কালোর ভেদাভেদ থাকবে না সেখানে। সবার পরনে একই ধরনের সেলাইবিহীন কাপড়, আল্লাহর শ্রেষ্ঠত্বের ঘোষণা, আল্লাহর কাছে আত্মসমর্পণ এবং তারই কাছে গুনাহ মাফ ও রহমত প্রাপ্তির আকুতি।

সূর্যাস্তের সাথে সাথেই আবার মিনায় ফেরার পথে মুজদালিফা নামক স্থানে রাতে অবস্থান নেবেন হাজীরা। ওই স্থানে রাতে অবস্থান করবেন খোলা আকাশের নিচে। সেখানে মাগরিব ও এশার নামাজ এক সাথে আদায় করবেন। মিনায় জামারাতে শয়তানের প্রতিকৃতিতে নিক্ষেপের জন্য এখান থেকেই কঙ্কর সংগ্রহ করবেন তারা। রাতে সেখানে অবস্থানের পর রোববার (সৌদি আরবের হিজরি তারিখ অনুয়ায়ী ১০ জিলহজ) ফজরের নামাজ শেষে সূর্যাস্তের আগেই মিনার দিকে রওনা হবেন।

রোববার সৌদি আরবে ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে। মিনায় গিয়ে জামারাতে রোববার বড় শয়তানকে কঙ্কর নিক্ষেপ এবং কোরবানি করবেন। মিনায় কোরবানি করার পর হাজীরা মাথা মুণ্ডন করে অথবা চুল ছোট করে ইহরাম ভেঙে ফেলবেন। এরপর তাওয়াফে জিয়ারাহ করার জন্য মক্কায় যাবেন। সেখানে হেরেম শরিফ সংলগ্ন সাফা-মারওয়া নামক পাহাড়দ্বয়ের মধ্যে দৌড়াবেন (সায়ি করবেন)। জিলহজের ১১, ১২ তারিখ মিনার তাঁবুতে অবস্থান করেই জামারাতে কঙ্কর নিক্ষেপ করার নিয়ম। ১২ জিলহজ হজের আনুষ্ঠানিক কার্যাদির সমাপ্তি ঘটবে। কেউ ১২ তারিখ মিনা ত্যাগ না করলে ১৩ তারিখও তাকে জামারাতে কঙ্কর নিক্ষেপ করতে হবে। মিনার তাঁবুতে অবস্থান করেই পাঁচ দিনের হজের কার্যাদি সম্পন্ন করবেন হাজীরা। 

আরাফাতের ময়দানে অবস্থান করা একজন হাজীর জন্য পরম সৌভাগ্যের বিষয়। এই অবস্থান হজের অন্যতম ফরজ। হাজীরা এই দিনটিসহ পুরো হজকার্য সম্পাদনের জন্য আজীবন স্বপ্ন লালন করেন। 

এ বছরও ২৫ লাখের বেশি মুসল্লি পবিত্র হজ পালন করছেন, যা গত বছরের চেয়ে কিছুটা বেশি। এর মধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা হাজীর সংখ্যা ১৮ লাখ ১৭ হাজার। বাকি হজযাত্রীরা সৌদি আরবের। এ বছর বাংলাদেশি হজযাত্রীর সংখ্যা এক লাখ ২৭ হাজার ১৫২ জন। হিজরি মাস গণনায় সৌদি আরবের সাথে বাংলাদেশের একদিনের পার্থক্য রয়েছে। এই হিসাবে শনিবার সৌদি আরবে ৯ জিলহজ অর্থাৎ হজের দিন হলেও বাংলাদেশ ৮ জিলহজ। বাংলাদেশে সোমবার ১০ জিলহজ পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে। পশু কোরবানি করবেন ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা।

ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ কাশ্মীরের হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীদের অ্যাকাউন্ট বাতিল অভিশংসনের দ্বারপ্রান্তে ট্রাম্প মুন্সিগঞ্জে লঞ্চের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ১ আহত ২০ বাংলাদেশের ১৭ জেলেকে ফেরত দিয়েছে মিয়ানমার বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব বাতিলের দাবিতে গণস্বাক্ষর শনিবার বাঁশখালীতে জেলের জালে বিশাল হোয়েল শার্ক! সিলেট আ.লীগের নেতৃত্ব হারালেন কামরান পৃথিবীর অনেক দেশের তুলনায় আমরা মেধাবী: তথ্যমন্ত্রী ধর্মঘটে অচল অবস্থা বিরাজ করছে ফ্রান্সে চট্টগ্রামে এবার থানায় বিক্রি হবে পেঁয়াজ ভারতের অবদান ছাড়া মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস অসম্পূর্ণ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী শিকাগোর অফিস-আদালতে বাংলা ভাষা! খালেদার স্বাস্থ্য বিষয়ে নিরপেক্ষ প্রতিবেদন নিয়ে ফখরুলের সংশয় ১৭ জেলেকে আটক করেছে মিয়ানমার উল্টোপথের বাসের চাকায় পিষ্ট পথচারী অবশেষে বিয়ের পিঁড়িতে মিথিলা-সৃজিত রুম্পার মৃত্যুর ধোঁয়াশা কাটেনি ১ জন ছাড়া অন্য যেকোনো পদে পরিবর্তন: কাদের আপিল বিভাগে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে সরকার: মন্ত্রী বীরত্বে পদক পাচ্ছেন ডিজিসহ বিজিবির ৬০ সদস্য আইএস এর সেই টুপি খুঁজে পাচ্ছে না পুলিশ নামাজ পড়লে সুস্থ থাকা যায়: মার্কিন গবেষণা মৌলভীবাজারে ৪শ একর জমিতে কমলার চাষ ২০১৯ সালের সেরা অ্যাপ কল অফ ডিউটি আ.লীগে এখন কর্মীর চেয়ে নেতার সংখ্যা বেশি: কাদের প্রকৌশল শিক্ষায়ও সৃজনশীলতার প্রচুর সুযোগ রয়েছে: রাষ্ট্রপতি ‘সুদের হার কমেনি, ১১ মাস কী করলেন অর্থমন্ত্রী’ ৬ রানে অলআউট মালদ্বীপ পিরোজপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ২ জনের মৃত্যু