artk
বুধবার, নভেম্বার ১৩, ২০১৯ ১:৪৬   |  ২৮,কার্তিক ১৪২৬

স্টাফ রিপোর্টার

বৃহস্পতিবার, আগষ্ট ১, ২০১৯ ৬:০২

সুস্মিতার ভালোবাসা জয়ী হলো হাইকোর্টে

media

ভালোবেসে নিম্নবর্ণের ছেলেকে বিয়ে করেছিলেন সুস্মিতা দেবনাথ অদিতি। কিন্তু তা মেনে নিতে পারেননি তার মা-বাবা।  মেয়ের স্বামী তুষার দাসের বিরুদ্ধে অপহরণ ও ধর্ষণের মামলা দায়ের করেন তারা।  নিম্ন আদালত তুষার দাসকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড দেন। 

কিন্তু স্বামীকে ছাড়িয়ে নিতে উচ্চ আদালতের শরণাপন্ন হন সুস্মিতা। বৃহস্পতিবার তিন মাসের শিশু কোলে তিনি আদালতে দ্বারস্থ হন। আদালত তার স্বামীকে জামিন দিয়েছেন। 

বৃহস্পতিবার (১ আগস্ট) বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে আজ তুষার দাসের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট শিশির মুহাম্মাদ মনির ও অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ সাদ্দাম হোসাইন।  

সুম্মিতা ও তার আইনজীবী ঘটনার বিবরণ দিয়ে জানান, দুই বছর আগে, তুষার ও সুষ্মিতা ভালোবেসে বিয়ে করেন। তিন মাস আগে তাদের কোলজুড়ে আসে ফুটফুটে এক কন্যা সন্তান। কিন্তু তুষার দাস ধর্মীয় বিধানে নিম্ন বর্ণের হওয়ার কারণে শুরুতেই এই বিয়ে মেনে নিতে পারেননি সুষ্মিতার বাবা-মাসহ পরিবারের সদস্যরা।

মেয়ে নাবালিকা- এই অভিযোগ তুলে সুষ্মিতার মা তুষারের বিরুদ্ধে অপহরণ ও ধর্ষণের মামলা করেন। মামলায় অপহরণের দায়ে তুষারকে ১৪ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন শরীয়তপুরের নারী ও শিশু নির্য়াতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক জেলা জজ আ. ছালাম খান। সুম্মিতা দেবনাথ স্বেচ্ছায় তুষার দাসকে বিয়ে করার কথা বললেও তার কথা আমলে নেননি নিম্ন আদালত।

আদালত ১৪ বছর কারাদণ্ড দিয়ে রায়ে বলেছিলেন, ‘সার্বিক পর্যালোচনায় দেখা যায়, আসামি তুষার দাস রাজ ভিকটিম সুষ্মিতা ওরফে অদিতিকে অপহরণ করে নিয়ে ঢাকেশ্বরী মন্দিরে গিয়ে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। আসামি শিশু সুষ্মিতাকে বিয়ে করবেন এই আশ্বাস দিয়ে এই অপহরণ করেছেন। যা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৭ ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এ কারণে তাকে দোষী সাব্যস্ত করে ১৪ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড এবং অনাদায়ে এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হলো। তবে, আসামির বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে ওই দায় থেকে খালাস দিয়েছেন আদালত। 

গত ৩ জুলাই আদালতে আত্মসমর্পণ করেন তুষার। এরপর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। সেখান থেকে তিনি আপিল করেন। এরপর স্বামীকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড থেকে মুক্ত করতে হাইকোর্টে আসেন স্ত্রী সুম্মিতা দেবনাথ।

সুষ্মিতা দেবনাথ বলেন, ‘আমার একটাই অপরাধ, আমি ব্রাক্ষণের মেয়ে হয়ে হরিজন বর্ণের ছেলেকে ভালোবেসে বিবাহ করেছি। আইনের মারপ্যাঁচে আমাদের জীবন আজ বিপন্ন।

ভারতে পেঁয়াজের দাম না পেয়ে কৃষকের কান্না রেফারিকে এসপি হারুনের মারধরের ভিডিও ভাইরাল ‘ঘন কুয়াশার কারণে লালবাতি দেখতে পাননি চালক’ জাতীয় আয়কর মেলা শুরু বৃহস্পতিবার শিশুটির নাম নাইমা, সঙ্গে থাকা মা ও দাদীর সন্ধান মিলছে না খালেদা জিয়া নিজে হাতে খেতেও পারেন না: মির্জা ফখরুল আর দেখা যাবে না সোহার হাসিমুখ ছাত্রলীগ নেতা সুদীপ্ত হত্যা: আ.লীগ নেতা মাসুম কারাগারে গয়েশ্বর বাবু বিএনপি নামক বটগাছ থেকে কবে সরবেন: হাছান মাহমুদ অসুস্থ মায়ের পাশে থাকতে দেশে ফিরলেন মোসাদ্দেক ভুল প্রকাশের দায়ে ডিএসইর জুবায়ের বরখাস্ত সম্রাট ও এনামুলের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা ঢাকা উত্তর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলনে ভাঙচুর দেশে ফেরার কারণ জানালেন মোসাদ্দেক রেলকর্মীদের আরো দক্ষ করা উচিত: প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামের সঙ্গে ঢাকা ও সিলেটের ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি হতে লাগবে স্নাতক মেক্সিকোতে আশ্রয় পেলেন ইভো মোরালেস বুলবুলে নিখোঁজ ৯ জেলের মরদেহ উদ্ধার ট্রেন দুর্ঘটনায় হতাহতের ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর শোক ১২ নভেম্বর: উপকূলবাসী আজো ভোলেনি ভয়াল সেই স্মৃতি পেঁয়াজের দাম বাড়ছেই জেএসসি-জেডিসির ৫ পরীক্ষার নতুন সময়সূচি সকালে ঘুম থেকে উঠে পানি পানে ৬ উপকার যুক্তরাজ্যে গাঁজার তৈরি দুটো ওষুধের অনুমোদন স্বেচ্ছাসেবক লীগের ঢাকা মহানগর উত্তরের সম্মেলন মঙ্গলবার চারদিনের সফরে মঙ্গলবার নেপাল যাচ্ছেন রাষ্ট্রপতি কসবায় ২ ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ১৫ রাজনীতি গাড়ি-বাড়ি করার পেশা নয়: রাষ্ট্রপতি রাঁঙ্গার বিচারের ভার জনগণের কাছে দিলেন নূর হোসেনের মা