artk
বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বার ৫, ২০১৯ ৮:২৭   |  ২১,অগ্রহায়ণ ১৪২৬

যশোর প্রতিনিধি

বুধবার, জুলাই ২৪, ২০১৯ ১১:৫০
যশোরে পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ করায় হামলা

মামলার ১২ দিনেও আটক হয়নি কোনো আসামি

media

যশোরের পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ করায় বাঘারপাড়ার বাসুয়াড়ীর শীর্ষ সন্ত্রাসী জাহিদ মেম্বারের একান্ত আস্থাভাজন মালেক গোলদারের ছেলে নোয়িম গোলদার ও তার সহযোগীদের হামলায় অভিযোগকারী সফিকুল ইসলাম খোকন গুরুতর জখম হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। তার মাথায় ১৭টি সেলাই দেয়া হয়েছে। ১২ জুলাই শুক্রবার জুম্মার নামাজের সময়ে বাঘারপাড়া বাসুয়াড়ী গ্রামের পূর্বপাড়া জামে মসজিদের সামনে এ হামলার ঘটনা ঘটে। হামলার ১২ দিন পেরিয়ে গেলেও পুলিশ কোনো আসামিকে আটক করতে পারেনি। পুলিশ বলছে, আসামিদের ধরতে চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে। 

৬ জুলাই সফিকুল ইসলাম খোকন যশোরের পুলিশ সুপারের কাছে ছেলে হত্যা চেষ্টার ন্যায়বিচার চেয়ে আবেদন করেন। আবেদনের পাঁচ দিন পর ১২ জুলাই বাঘারপাড়ার বাসুয়াড়ীর শীর্ষ সন্ত্রাসী জাহিদ মেম্বারের একান্ত আস্থাভাজন মালেক গোলদারের ছেলে নোয়িম গোলদারও তার সহযোগীরা বাসুয়াড়ী পূর্বপাড়া জামে মসজিদের পঞ্চাশ গজ দূরে সফিকুল ইসলাম খোকনের ওপর হামলা করে। হামলার পরে রক্তাক্ত অবস্থায় খোকনকে টেনেহিচড়ে নির্জন স্থানে নেয়ার চেষ্টা করে। এসময়ে সেনাবাহিনীর গ্রীষ্মকালীন অনুশীলনরত সৈনিকরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠান। হাসপাতালে নেয়ার পথে এ চক্রের সদস্যরা আবারো খোকনকে বসুন্দিয়া বাজারে একটি পল্লী চিকিৎসকের ঘরে আটকে রাখে। খবর পেয়ে বাঘারপাড়া থানার ছয় জন পুলিশ সদস্য তাকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শষ্যা বিশিষ্ট্য হাসপাতালে পাঠান। হাসপাতালে ভিকটিম খোকন কিছুটা সুস্থ হলে হামলার ছয় দিন পরে খোকনের স্ত্রী বিউটি বেগম বাদী হয়ে সাত জনকে আসামি করে বাঘারপাড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। তবে হামলার ১২ দিন অতিবাহিত হলেও পুলিশ এখনো কোনো আসামিকে আটক করতে পারেনি। 

গুরুতর জখম সফিকুল ইসলাম খোকন বাসুয়াড়ী গ্রামের মৃত ইয়ার আলীর ছেলে। ঘটনা জানার পর পর যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাসিরউদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শনও করেন এবং দ্রুত আসামিদের ধরতে বাঘারপাড়া থানার পুলিশকে নির্দেশ দেন। 

সাবেক মেম্বার আবুবক্কার জানান, সফিকুল ইসলাম যশোর বাঘারপাড়া উপজেলার ৮ নং বাসুয়াড়ী ইউনিয়নের কিসমত বাসুয়াড়ী গ্রামের মৃত ইয়ার আলির ছেলে। পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া ও ক্রয়কৃত মোট ২২ শতক জমির ওপর দীর্ঘ দিন ধরে বসবাস করে আসছি। পাঁচ ভাই-বোনের মধ্যেই তিনিই একমাত্র বাড়িটিতে থাকেন। স্থানীয় সন্ত্রাসী জাহিদ সর্দ্দার (মেম্বার), নোয়িম, রাম দাসের সহযোগিতায় তারই ফুফাতো ভাই সাহাজান ও তার স্ত্রী বোম্বে আতরজান সেই জমির ৮ শতক জোর জবরদস্তি করে দখল করে নেয়। এর পর বাকি ১৪ শতাংশ জমি থেকে গত ১৪ ফেব্রুয়ারি আরো ৩ শতাংশ জমিও মেম্বর জাহিদ সর্দ্দার, নোয়িম, রাম দাসের সহযোগিতায় জমি দখল করে ঘর তৈরির চেষ্টা করেন। বাধা দিলে তাকে ও তার পরিবারের লোকজনকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। এমনকি ওই পুরো জমি থেকে খোকনকে উচ্ছেদ করে ছাড়বে বলে হুমকি দেয় জাহিদ মেম্বর, নোয়িম ও বোম্বে আতরজান। একই পর্যায়ে ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ ইং তারিখে সফিকুল ইসলাম খোকন যশোর অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে ওই জমির ওপর ১৪৪ ধারার আবেদন করলে আদালত ওই জমিতে ১১৪ ধারা বলবৎ রাখেন। এর পর থেকেই সন্ত্রাসী জাহিদ সর্দ্দার (মেম্বার), নোয়িম মোড়ল, রাম দাসের সহযোগিতায় খোকনের পরিবারের দুই স্কুল পড়ুয়া ছাত্রসহ পাঁচ জন সদস্যের নামে চারটি মিথ্যা মামলা করেন। একটি মামলা খারিজ হলেও বাকি মামলাগুলো এখনো আদালতে চলমান রয়েছে। এমনকি ১৮ এপ্রিল ২০১৮ ইং তারিখে ৮৫ বছরের এক বৃদ্ধাকে সন্ত্রাসী জাহিদ মেম্বার সাথে নিয়ে মিথ্যা মামলা দেয়। ওই মামলায় বাঘারপাড়া থানার এসআই মতিন সফিকুল ইসলাম খোকনের অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া ছাত্র সাইফুলকে তার বাড়ি থেকে আটক করে নিয়ে যায়। সেই সময়ে তার বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় সাময়িক পরীক্ষা চলছিল। এ বিষয়টি তখনকার সার্কেল এসপি রাব্বানীকে জানালে ছেলেটিকে মুক্ত করে পরীক্ষা দেয়ার ব্যবস্থা করার নির্দেশ দেয়। তার পরেও এই জাহিদ মেম্বর বিভিন্ন ভাবে বাঘারপাড়া থানাকে প্রভাবিত করে সাইফুলকে চালান দেয়। পরের দিন মেধাবী শিক্ষার্থী সাইফুলের অবস্থান হয় যশোর পুলের হাটের কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে। কিশোর সাইফুলকে পুলিশ আটকের পর বোম্বায় নারী আতরজানের অর্থায়নে এক জনপ্রতিনিধির বাড়িতে ভুড়িভোঁজ হয়। সেই ভুড়ি ভোঁজে বাঘারপাড়া থানার এসআই মতিন উপস্থিত হয়ে ভুড়ি ভোঁজে অংশ নেন।

এর পর সন্ত্রাসী জাহিদ সর্দ্দার (মেম্বার), নোয়িম মোড়ল, রাম দাসের পরিকল্পনায় ৩ ফেব্রুয়ারি পুড়া খালেকের ছেলে সাহাদত, জাহিদ, খালেকের ছোট জামায় সাইদ ও সাহাজানের ছেলে আলমগীর  সফিকুল ইসলাম খোকনের ৮ম শ্রেণি পড়ুয়া সাইফুল ইসলামকে হাতুড়ি, রড দিয়ে পিটিয়ে রাস্তায় ফেলে যায়। পরে তাদেরই কয়েকজন সাইফুলকে হাসপাতালে ভর্তি করে এবং সন্ত্রাসী মেম্বার প্রচার করতে থাকে সে মটরসাইকেল দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে। এ সন্ত্রাসীরা সাইফুলের জ্ঞান ফেরার পরে প্রকৃত ঘটনার বিষয়ে মুখ খুললে তাকে হত্যা করা হবে বলে আবারো ভয় দেখায়। সন্ত্রাসী জাহিদ মেম্বার, নোয়িম, সাহাদত, রাম ভিকটিম সাইফুলকে বলে তার আব্বা সফিকুল ইসলাম খোকন ও চাচতো ভাই রাহুল ও চাচা মিঠুর নামে মারধরের মামলা করার চাপ দেয় এবং বাবা, চাচা, চাচতো ভাইয়ের নামে মামলার পরের দিন সাইফুলকে জমি লিখে দেয়ার লোভ দেখায়। খুলনার রুপসায় নিয়ে নির্জন স্থানে নিয়ে চিকিৎসার খরচ বাবদ তিন লাখ টাকা দেয়ার লোভ দেখায় এ চক্র। কিন্তু সাইফুল একটু সুস্থ হওয়ার পর নিজ পিতা ও চাচতো ভাই, চাচার নামে মামলা দিতে অস্বীকার করায় তাকে আবারো হত্যা করে লাশ ঘুম করে দেয়ার ভয় দেখায়। এমনকি এ সন্ত্রাসীরা সাইফুলের গতিবিধি সর্বক্ষণিকভাবে নজরে রাখে। সন্ত্রাসী জাহিদ সর্দ্দার (মেম্বর), নোয়িম, সাহাদত সাইফুলকে আরো একবার একটি নির্জন ঘরে আটকে রাখে এবং প্রকৃত ঘটনার বিষয়ে মুখ খুললে তাকে হত্যা করা হবে বলে হুমকি দেয়। এক পর্যায়ে সাইফুলের আব্বা সফিকুল ইসলাম আত্মীয় স্বজনের কাছ থেকে টাকা ধার-দেনা করে সাইফুলকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। সাইফুলকে ঢাকা মেডিকেলে নেয়ার কয়েকদিন পর সাইফুল একটু সুস্থ হলে প্রকৃত ঘটনাটি খুলে বলে। ঢাকা থেকে বাড়ি ফিরে ভিকটিম সাইফুলের মা বিউটি বেগম বাদী হয়ে পাঁচজনকে আসামি করে যশোর বাঘারপাড়া আমলি আদালতে একটি মামলা করেন। ওই মামলায় এএসআই আজিজ চারজনকে আটক করে আদালতে পাঠান। কিন্তু পরে আজিজ আসামি পক্ষের থেকে মোটা অংকের অর্থ নিয়ে আসামিদের জামিন নিতে সহয়তা করেন। আসামিরা ছাড়া পেয়ে ভিকটিম ও তার পরিবারের লোকজনদের বিভিন্ন সময়ে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসেছে দীর্ঘ দিন ধরে। এমনকি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এএসআই আজিজও ভিকটিমের পরিবারকে বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে অর্থনৈতিক সুবিধা নেন। এক পর্যায়ে ৭ জুলাই প্রকৃত ঘটনার বিবরণ দিয়ে ভিকটিমের বাবা সাফিকুল ইসলাম খোকন যশোর পুলিশ সুপার বরাবর ন্যায় বিচার পাওয়ার জন্য আবেদন করেন। পুলিশ সুপারের কাছে ন্যায়বিচার পাওয়ার বিষয় ও এএসআই আজিজের অর্থনৈতিক লেনদেনের বিষয়টি ফাঁস হওয়ার পর শুক্রবার দুপুরে জুম্মার নামাজের পূর্বে বাসুয়াড়ী পূর্বপাড়া জামে মসজিদর নিকটে অভিযোকারী সফিকুল ইসলাম খোকনকে জাহিদ মেম্বারের চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা রড, হাতুড়ি দিয়ে উপর্যুপরি পিটিয়ে মুমূর্ষু অবস্থায় ফেলে রেখে যায়।

বাঘারপাড়া থানার এসআই তরুণ কুমার বলেন, “খোকনকে মেরে একটি পল্লি চিকিৎসকের ঘরে আটকে রাখার ঘটনাটি ফোনে খবর পেয়ে ওসি সাহেব সাথে সাথে আমিসহ ছয় জন পুলিশ সদস্যকে ঘটনাস্থলে পাঠান। এক পর্যায়ে বসুন্দিয়া বাজারের একটি পল্লি চিকিৎসকের ঘর থেকে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় খোকনকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়। তবে পুলিশ যাওয়ার খবর পেয়ে আসামিও ওই পল্লি চিকিৎসক পালিয়ে যায় বলে তিনি জানান। 

যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাসিরউদ্দিন বলেন, “ঘটনাটি শোনার সাথে সাথে আমি ঘটনাস্থলে পুলিশের একটি টিম পাঠিয়ে ছিলাম। সেখান থেকে ভিকটিমকে উদ্ধার করে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং আসামিদের ধরতে পুলিশ চিরুণী অভিযান চালাচ্ছে বলে তিনি জানান।  

যশোর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ডাক্তার এমকে আলম জানান, ১২ জুলাই শুক্রবার রাতে কয়েকজনে মিলে রাতে খোকনকে হাসপাতালে নিয়ে আসলে তাকে সাথে সাথে ভর্তি করে নেয়া হয়। তার মাথায় ও নাক মুখে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে ২০টার মত সেলাই দেয়া হয়েছে। অতিরিক্ত রক্ষক্ষরণে সে একেবারেই নিস্তেজ হয়ে গিয়েছিল। তবে আর ঘণ্টা খানেক পরে হাসপাতালে নিয়ে আসলে তাকে আর বাঁচানো সম্ভাব হতো না বলে তিনি জানান। 

আইএস এর সেই টুপি খুঁজে পাচ্ছে না পুলিশ নামাজ পড়লে সুস্থ থাকা যায়: মার্কিন গবেষণা মৌলভীবাজারে ৪শ একর জমিতে কমলার চাষ ২০১৯ সালের সেরা অ্যাপ কল অফ ডিউটি আ.লীগে এখন কর্মীর চেয়ে নেতার সংখ্যা বেশি: কাদের প্রকৌশল শিক্ষায়ও সৃজনশীলতার প্রচুর সুযোগ রয়েছে: রাষ্ট্রপতি ‘সুদের হার কমেনি, ১১ মাস কী করলেন অর্থমন্ত্রী’ ৬ রানে অলআউট মালদ্বীপ পিরোজপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ২ জনের মৃত্যু পুঁজিবাজারে সূচকের পতন, লেনদেনও মন্দা রোহিঙ্গাদের কারণে স্থানীয়দের কর্মসংস্থানের সুযোগ কমছে: টিআইবি বিএনপির আইনজীবীদের বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করা উচিত: নাসিম আপিল বিভাগে এমন অবস্থা আগে কখনো দেখিনি: প্রধান বিচারপতি প্রতিবন্ধীদের জন্য উপজেলায় সহায়তা কেন্দ্র চালু হবে: প্রধানমন্ত্রী চিশতির শ্যালক কামাল গ্রেপ্তার এবার হবে ২৩৮ কিলোমিটার পাতাল রেল ৩ দেশ থেকে ভারতে যাওয়া অমুসলিমরা নাগরিকত্ব পাবেন রোহিঙ্গাদের কারণে কক্সবাজারবাসী ‘মানসিক চাপে’: টিআইবি বিএনপি অরাজকতা করলে সমুচিত জবাব দেয়া হবে: কাদের খালেদার জামিনে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ: ফখরুল ব্যাংকাররা সুবিধা নিলেন কিন্তু সুদহার কমালেন না: বাণিজ্যমন্ত্রী খামারিকে খুন করে গরু-ছাগল লুট জুয়া খেলার সময় হাতেনাতে ধরা ৩ সরকারি কর্মকর্তা আমি খুব বেশি পেঁয়াজ খাই না: সংসদে ভারতের অর্থমন্ত্রী আদালতে হট্টগোল, বিচারপতিদের এজলাস ত্যাগ নেইমার-এমবাপ্পের গোলে পিএসজির টানা তৃতীয় জয় হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর ৫৬তম মৃত্যুবার্ষিকী বৃহস্পতিবার আবারও পিছিয়েছে খালেদার জামিন শুনানি বাংলাদেশের জন্য হজ কোটা বাড়লো ১০ হাজার শীতে যেসব লক্ষণে শরীরে পানির ঘাটতি প্রকাশ পায়