artk
সোমবার, আগষ্ট ১৯, ২০১৯ ৩:০০   |  ৪,ভাদ্র ১৪২৬
শনিবার, জুলাই ২০, ২০১৯ ৯:০৪

গণপিটুনির সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে

স্টাফ রিপোর্টার
media

ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনি একটি ফৌজদারি অপরাধ। আইন নিজের হাতে তুলেন নেবেন না। গণপিটুনির ঘটনা তদন্ত করে এর সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ সদর দফতর।

ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনি একটি ফৌজদারি অপরাধ। আইন নিজের হাতে তুলেন নেবেন না। গণপিটুনির ঘটনা তদন্ত করে এর সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ সদর দফতর।

গুজবে কান দিয়ে দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করা রাষ্ট্রবিরোধী কাজের শামিল। এছাড়া গণপিটুনি দিয়ে মানুষ মারাকে বড় ধরনের অপরাধ হিসেবে উল্লেখ করে এগুলো থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দিয়েছে পুলিশ সদর দফতর।

শনিবার বিকেলে এক বার্তায় এ নির্দেশনা দেয়া হয়।

পুলিশ সদর দফতর জানায়, পদ্মা সেতু নির্মাণে মাথা লাগবে- একটি মহল এমন গুজব ছড়ানোর পর দেশের বিভিন্ন স্থানে কয়েকজন গণপিটুনিতে মর্মান্তিকভাবে প্রাণ হারিয়েছেন।

পুলিশ সদর দফতর আরও জানায়, ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনি একটি ফৌজদারি অপরাধ। আইন নিজের হাতে তুলেন নেবেন না। গণপিটুনির ঘটনা তদন্ত করে এর সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে।

পুলিশ সদর দফতরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি) সোহেল রানা বলেন, ‘পদ্মা সেতু নির্মাণে মানুষের মাথা লাগবে’ বলে একটি গুজব ছড়ানোকে কেন্দ্র করে সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন স্থানে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে মর্মান্তিকভাবে কয়েকজনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। গুজব ছড়িয়ে দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করা রাষ্ট্রবিরোধী কাজের শামিল এবং গণপিটুনি দিয়ে মৃত্যু ঘটানো ফৌজদারি অপরাধ।

তিনি আরও বলেন, ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনির শিকার হয়ে এ পর্যন্ত যতগুলো নিহতের ঘটনা ঘটেছে পুলিশ প্রত্যেকটি ঘটনা আমলে নিয়ে তদন্তে নেমেছে। এসব ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হচ্ছে। গুজবে বিভ্রান্ত হয়ে ছেলেধরা সন্দেহে কাউকে গণপিটুনি দিয়ে আইন নিজের হাতে তুলে না নেয়ার জন্য সকলের প্রতি অনুরোধ জানানো হচ্ছে। গুজব ছড়ানো এবং গুজবে কান দেয়া থেকে বিরত থাকুন। কাউকে ছেলেধরা সন্দেহ হলে গণপিটুনি না দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দিন।

শনিবার রাজধানীসহ সারা দেশে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে তিনজন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ ছাড়া আহত হয়েছেন দুজন। রাজধানীর উত্তর বাড্ডা ও কেরানীগঞ্জ এবং নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে এসব ঘটনা ঘটেছে।

হামলার পরেও মৌলিক সেবা থেকে বঞ্চিত করেছে- ভিপি নুর রাতে ঢাকায় আসছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী গুগল ম্যাপের সাহায্যে বাড়ি ফিরলো মেয়েটি নবম ওয়েজ বোর্ড নিয়ে আপিলের আদেশ মঙ্গলবার ধর্ষণের থেকে মুক্তি চাইতে গিয়ে ভাইয়ের কাছেও... রাজধানীতে ‘আল্লাহর সরকার’ ৪ জঙ্গি আটক ২০৫০-মধ্যে তলিয়ে যেতে পারে জাকার্তা মার্কিনকে চাপ অগ্রাহ্য করে জিব্রাল্টার ছাড়ল ইরানি ট্যাংকার কনস্টেবলের লক্ষ্যভ্রষ্ট গুলি এএসপির বাসায় স্বামীর লাশ দেখে মারা গেলেন স্ত্রীও পদ্মায় ফেরি-লঞ্চ সংর্ঘষ, অল্পের জন্য বেঁচে যান ৩ শতাধিক যাত্রী মেসিকে খুশি রাখতেই নেইমার ‘নাটক’ জেলা প্রশাসকের কাছে সততার পুরস্কার পেলেন অটোচালক সিরাজগঞ্জে কাপড় ব্যবসায়ীর স্ত্রী-কন্যা নিখোঁজ পেয়ারা পাড়তে গিয়ে স্কুলছাত্রীর করুণ মৃত্যু খুলনার সঙ্গে রেল যোগাযোগ বন্ধ ভারত পরমাণু যুদ্ধ বাধাতে পারে: ইমরান খান রাঙামাটিতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে সেনা সদস্য নিহত এক মাসেই তিনবার বাড়লো সোনার দাম ছাত্রদলের নেতেৃত্বে আসতে মনোনয়নপত্র কিনলেন ১০৮ জন ‘অদৃশ্য খুঁটির’ জোরে ৪ লাখ টাকার গাছ ৮০ হাজার টাকায় বিক্রি সিপিডির ভবনে এডিস মশার লার্ভা, ২০ হাজার টাকা জরিমানা শোক দিবসের আলোচনা সভা করবেন ড. কামাল চামড়া শিল্পে আপাতত সমস্যা নেই: শিল্পমন্ত্রী শোক দিবসের অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগের রক্তদান সোমবার রাতে ঢাকায় আসছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অতিরিক্ত ডিআইজি হলেন পুলিশের ২০ কর্মকর্তা এএসপির মেয়ের টেবিলের ওপর আঘাত হানলো কনস্টেবলের গুলি চামড়া বিক্রি বন্ধের সিদ্ধান্তে নেই আড়তদাররা দেশে এলো কলকাতায় নিহত ২ বাংলাদেশির মরদেহ