artk
শনিবার, ডিসেম্বার ৭, ২০১৯ ৯:৫৭   |  ২৩,অগ্রহায়ণ ১৪২৬
শুক্রবার, জুলাই ১৯, ২০১৯ ১১:৩২

আনারসে প্রয়োগ করা হচ্ছে মাত্রাতিরিক্ত কেমিক্যাল

ময়মনসিংহ সংবাদদাতা
media
এক সময় আনারস বাগানে আনারস পাকার যে মৌ মৌ গন্ধ ছিল এখন তাও নেই। এক সময় শেয়ালে প্রচুর আনারস নষ্ট করতো এখন আনারস ক্ষেতে শেয়াল খুঁজে পাওয়া যায় না।

আনারস গাছে ফুল আসার পর থেকেই শুরু হয় মাত্রাতিরিক্ত কেমিক্যাল প্রয়োগ। রাসায়নিক কেমিক্যালে বড় হতে থাকা আনারসে কয়েক দফায় রাসায়নিক উপাদান প্রয়োগের পর তা বাজারে তোলা হয় ফরমালিন মিশিয়ে। আনারসে অতি মাত্রায় মেডিসিন প্রয়োগে মানুষ পেটের অসুখসহ নানা স্বাস্থ্য ঝুঁকির কারণে আনারস কেনার আগ্রহ হারিয়ে ফেলছে। যত্রতত্র ভাবে আনারসে মেডিসিন প্রয়োগের বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসন জানার পরও কোন প্রদক্ষেপ গ্রহণ না করায় মেডিসিন ছাড়া আনারস পাওয়া এখন দুষ্কর হয়ে পড়েছে।

ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া উপজেলার সন্তোষপুর বনাঞ্চলে আবাদ হওয়া আনারস চাষিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, জুলাই মাসের দিকে আনারস প্রাকৃতিকভাবে পাকার কথা থাকলেও মে মাস থেকে শুরু হয় বেচাকেনা। ইথোপেন ও কার্বাইডে পাকানো এসব আনারস বাজারে তোলার পর মানুষ একবার আনারস কিনে পরে আর আনারস কিনতে চান না। ফলে মৌসুমে দাম কমে আনারসের। এ কারণে আনারস চাষিরা মৌসুম শুরুর আগেই মহাজনদের কাছে আনারসের ক্ষেত বিক্রি করে দেন। মহাজনরা বেশি লাভের আশায় মৌসুম শুরুর আগে আনারস রাসায়নিক উপাদান দিয়ে পাকিয়ে বাজারে চড়া দামে বিক্রি করে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক আনারস চাষি জানান, রাসায়নিক উপাদান ছাড়া পাকা আনারস এখন খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। তিনি বলেন, এক সময় আনারস বাগানে আনারস পাকার যে মৌ মৌ গন্ধ ছিল এখন তাও নেই। এক সময় শেয়ালে প্রচুর আনারস নষ্ট করতো এখন আনারস ক্ষেতে শেয়াল খুঁজে পাওয়া যায় না।

আনারস চাষি মজনু জানান, সকলেই আনারসে এখন মেডিসিন প্রয়োগ করে আনারস পাকান। আনারস ক্ষেতে কোন চাষিই যদি মেডিসিন প্রয়োগ না করতো তবে আমিও করতাম না।

বিশেষ করে ইথোপেন ও কার্বাইড দিয়ে আনারস পাকালে দেখতে সুন্দর টসটসে হয়। খেতে কখনো টক, কখনো পানসে পাকে ভেতরে আঁশ থাকে ধলা পাকানো। বেশি খেলে পেট খারাপ হয়। শরীর ঘামে মাথা ঘোরে বমিবমি ভাব হয়।

নজরুল নামে এক চাষি জানান, সঠিত মাত্রায় কেমিক্যাল প্রয়োগ দোষের নয়। কিন্তু ক্ষতিকর ক্যামিকেলে পাকিয়ে ভোক্তা পর্যায়ে সরবরাহ করা বড় ধরনের প্রতারণা।

আনারস কিনতে আসা পাইকার শফিক জানান, ২০১১ সাল থেকে বেসরকারি উদ্যোগে বেনাপোল বন্দর হয়ে সীমিতভাবে ভারতে আনারস রপ্তানি হত। কিন্তু কেমিক্যাল আনারস পাকানোর বিষয়টি নজরে আসায় আনারস রপ্তানি বন্ধ হয়ে গেছে। আমরা এখন আনারস কিনে ঢাকা, যশোর, রাজশাহী, নরসিংদী, সিরাজগঞ্জ ও পাবনায় পরিবহন করে থাকি। প্রতিদিন গড়ে এখান থেকে ৫/৬ ট্রাক আনারস কেনাবেচা হয়।

কৃষি বিভাগ সূত্র জানায়, ফুলবাড়ীয়া উপজেলার নাওগাঁও রাঙামাটিয়া ইউনিয়নে ১২শ ৫০ হেক্টর জমিতে আনারসের আবাদ হয়। উৎপাদন হওয়ার কথা ১ লাখ ১২ হাজার ৫শ মে.টন। যার বাজার মূল্য হবে প্রায় ৫ কোটি ৬২ লাখ টাকা।

উপজেলা কৃষি অফিসার নারগিস আকতার আনারসে কেমিক্যাল প্রয়োগের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, আনারসে মাত্রাতিরিক্ত কেমিক্যাল প্রয়োগ হয়। আমরা কৃষক পর্যায়ে পরামর্শ দিয়ে থাকি মাত্রা ঠিক রাখার জন্য। অভিযানের বিষয়ে তিনি বলেন, আসলে অভিযান পরিচালনা করা কঠিন কাজ। তারপরও আমাদের চেষ্টার কমতি নেই।

ফুলবাড়ীয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লীরা তরফদার জানান, বিষয়টি তার জানা নেই। তবে তিনি খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নিবেন।





ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ কাশ্মীরের হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীদের অ্যাকাউন্ট বাতিল অভিশংসনের দ্বারপ্রান্তে ট্রাম্প মুন্সিগঞ্জে লঞ্চের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ১ আহত ২০ বাংলাদেশের ১৭ জেলেকে ফেরত দিয়েছে মিয়ানমার বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব বাতিলের দাবিতে গণস্বাক্ষর শনিবার বাঁশখালীতে জেলের জালে বিশাল হোয়েল শার্ক! সিলেট আ.লীগের নেতৃত্ব হারালেন কামরান পৃথিবীর অনেক দেশের তুলনায় আমরা মেধাবী: তথ্যমন্ত্রী ধর্মঘটে অচল অবস্থা বিরাজ করছে ফ্রান্সে চট্টগ্রামে এবার থানায় বিক্রি হবে পেঁয়াজ ভারতের অবদান ছাড়া মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস অসম্পূর্ণ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী শিকাগোর অফিস-আদালতে বাংলা ভাষা! খালেদার স্বাস্থ্য বিষয়ে নিরপেক্ষ প্রতিবেদন নিয়ে ফখরুলের সংশয় ১৭ জেলেকে আটক করেছে মিয়ানমার উল্টোপথের বাসের চাকায় পিষ্ট পথচারী অবশেষে বিয়ের পিঁড়িতে মিথিলা-সৃজিত রুম্পার মৃত্যুর ধোঁয়াশা কাটেনি ১ জন ছাড়া অন্য যেকোনো পদে পরিবর্তন: কাদের আপিল বিভাগে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে সরকার: মন্ত্রী বীরত্বে পদক পাচ্ছেন ডিজিসহ বিজিবির ৬০ সদস্য আইএস এর সেই টুপি খুঁজে পাচ্ছে না পুলিশ নামাজ পড়লে সুস্থ থাকা যায়: মার্কিন গবেষণা মৌলভীবাজারে ৪শ একর জমিতে কমলার চাষ ২০১৯ সালের সেরা অ্যাপ কল অফ ডিউটি আ.লীগে এখন কর্মীর চেয়ে নেতার সংখ্যা বেশি: কাদের প্রকৌশল শিক্ষায়ও সৃজনশীলতার প্রচুর সুযোগ রয়েছে: রাষ্ট্রপতি ‘সুদের হার কমেনি, ১১ মাস কী করলেন অর্থমন্ত্রী’ ৬ রানে অলআউট মালদ্বীপ পিরোজপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ২ জনের মৃত্যু