artk
রোববার, আগষ্ট ১৮, ২০১৯ ৪:২০   |  ৩,ভাদ্র ১৪২৬
সোমবার, জুন ১৭, ২০১৯ ১১:০৮

ওসি মোয়াজ্জেমের পলাতক জীবনের ২০ দিন

নিউজ ডেস্ক
media
মোয়াজ্জেম শনিবার রাতে ঢাকায় তার বাসায় ছিলেন। জামিনের জন্য তিনি ঢাকায় ঘুরছিলেন।

ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে অবশেষে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সাইবার ট্রাইব্যুনাল গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করার পর থেকে ২০ দিন ধরে পালিয়ে ছিলেন তিনি। আদালতের পরোয়ানা পৌঁছানো এবং অবস্থান নিয়ে অনেক লুকোচুরির পর গত এক সপ্তাহ অভিযান চালিয়েও পুলিশ মোয়াজ্জেমকে খুঁজে পাচ্ছিল না।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা যেকোনো সময় মোয়াজ্জেম ধরা পড়বেন বলে আসছিলেন। এর মধ্যেই গতকাল রোববার সকালে উচ্চ আদালতে উপস্থিত হয়ে আইনজীবীর মাধ্যমে তিনি জামিন আবেদন করেন। এরপর আদালত চত্বর থেকে বের হলে কদম ফোয়ারা এলাকা থেকে শাহবাগ থানার পুলিশের হাতে মোয়াজ্জেম গ্রেপ্তার হন।

পুলিশ সূত্র জানায়, গত ২০ দিন মোয়াজ্জেম ঢাকার আত্মীয়ের বাসায় আবার কখনো গ্রামের বাড়ির আশপাশের প্রতিবেশীর বাসায় এবং কখনো ঢাকার বাইরের অন্য জেলায় ছিলেন। গত শনিবার রাত থেকেই ওসি মোয়াজ্জেমের অবস্থান ঢাকায় বলে নিশ্চিত হয় পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)। তিনি তার এক আত্মীয়ের বাসায় ছিলেন। সকালে আদালতে আইনজীবীর চেম্বারে গেলে সেটিও টের পায় ডিবি।

শাহবাগ থানার পুলিশের একটি সূত্র গত রাতে জানায়, থানার কর্মকর্তাদের সঙ্গে ‘আলাপচারিতায়’ ওসি মোয়াজ্জেম কিভাবে পালিয়ে ছিলেন সেটা জানান। তিনি প্রথমে ঢাকার কল্যাণপুরে তার এক খালার বাসায় ছিলেন। তাকে গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু হয়েছে টের পেয়ে গত ১০ জুন তিনি সেখান থেকে সটকে পড়েন। এরপর যান কুমিল্লায়, যেখানে তার নিজের বাড়ি আছে। তিনি নিজের বাড়িতে না উঠে চান্দিনায় খালাতো ভাই আসাদুজ্জামানের বাড়িতে আত্মগোপন করেন। এই আসাদুজ্জামান চান্দিনা থানার পরিদর্শক (তদন্ত)।

এ তথ্য পুলিশ পেয়ে চান্দিনায়ও অভিযানে যায়। টের পেয়ে গত শুক্রবার রাতে ওই বাসা থেকে ঢাকায় চলে আসেন মোয়াজ্জেম। এরপর দূর সম্পর্কের আত্মীয় ও বন্ধু খায়রুল ইসলামের বাসায় ওঠেন। সেখান থেকেই গতকাল আদালতে যান।

খায়রুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, মোয়াজ্জেম শনিবার রাতে ঢাকায় তার বাসায় ছিলেন। জামিনের জন্য তিনি ঢাকায় ঘুরছিলেন।

মোয়াজ্জেমকে গ্রেপ্তার অভিযানে অংশ নেওয়া শাহবাগ থানার এক উপপরিদর্শক (এসআই) নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, যেহেতু তিনি জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা তাই গ্রেপ্তারের সময় তাকে সম্মান দেখানো হয়েছে। তিনি মোয়াজ্জেমকে বলেন, ‘স্যার, আপনি গ্রেপ্তার। ইউ আর আন্ডার অ্যারেস্ট।’ এটা শুনে তাৎক্ষণিক মোয়াজ্জেমের মুখ কালো হয়ে যায়। তিনি কিছুটা আতঙ্কিতও ছিলেন। তবে তিনি মুখে কোনো কথা না বলে শুধু মাথা ঝাঁকিয়ে সম্মতি দিয়ে ধরা দেন। এর পর শাহবাগ থানার পুলিশের গাড়িতে (পিকআপ) করে তাকে নেওয়া হয় শাহবাগ থানায়। সেখানে পরিদর্শকের (তদন্ত) কক্ষে নেওয়া হয় তাকে। একটি চেয়ারে বসতে দেওয়া হয় মোয়াজ্জেমকে। তখন তিনি ঘামছিলেন। কিছুটা অসুস্থ লাগছিল তাকে। তবে কথা বলছিলেন না। কেউ তাকে তখন কোনো বিষয়ে প্রশ্নও করেনি।

সরেজমিনে শাহবাগ থানায় গিয়ে পরিদর্শকের (তদন্ত) কক্ষে দরজা বন্ধ দেখা যায়। একপর্যায়ে দরজার ফাঁক দিয়ে মোয়াজ্জেমকে বিমর্ষ অবস্থায় চেয়ারে বসে থাকতে দেখা যায়। তাকে গ্রেপ্তারের খবরে সেখানে গণমাধ্যমকর্মীরা ভিড় করেন। তবে দায়িত্বরত পুলিশ কর্মকর্তারা ওসি মোয়াজ্জেমের ছবি তুলতে দেননি। তারা অনুরোধ করে বলেন, থানায় আসামির ছবি তোলা যায় না। আদালতে নেওয়ার সময় যেন সাংবাদিকরা ছবি তোলেন।

ঘনিষ্ঠ সূত্র জানায়, সবার চোখ ফাঁকি দিতে মোয়াজ্জেম দাড়ি ও গোঁফ বড় করেন। তার উদ্দেশ্য ছিল আদালত থেকে জামিন নেওয়া।
মোয়াজ্জেমের সাবেক গাড়িচালক (ব্যক্তিগত) মো. জাফর শাহবাগ থানার সামনে বলেন, জামিনের জন্য তিনি (মোয়াজ্জেম) এসেছিলেন হাইকোর্টে। সঙ্গে জাফরও ছিলেন। সকাল ১০টার দিকে তিনি অ্যাডভোকেট সালমা ইসলামের চেম্বারে যান। সেখান থেকে জামিনের জন্য আবেদন করা হয়। আবেদনটির নম্বর পড়ে ৪২৭৭০। দুপুর ১টার দিকে আদালত থেকে শুনানির তারিখ পিছিয়ে কাল সোমবার দিলে তিনি চলে আসেন। বিকেল ৩টার পর আদালত থেকে বের হন মোয়াজ্জেম। এরপর সাড়ে ৩টার দিকে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

রিং সাইনের আইপিও আবেদন ২৫ আগস্ট অন্তঃসত্ত্বা প্রেমিকার মামলায় শিঞ্জনের ১ দিনের রিমান্ড ঈদযাত্রায় সড়ক দুর্ঘটনায় ২২৪ নিহত, আহত ৮৬৬ জন গাইবান্ধায় ছোট ভাইয়ের হাতে বড় ভাই খুন ‘সেরা পুলিশ’ ভূষিত হওয়ার পরদিনই ঘুষ নিতে গিয়ে ধরা কুমিল্লায় বাস-অটোরিকশা সংঘর্ষে একই পরিবারের ৭ জন নিহত চামড়ার অস্বাভাবিক দরপতনের তদন্ত চেয়ে হাইকোর্টে রিট মিন্নির জামিন আবেদন উত্থাপন সোমবার যুদ্ধ ছাড়াই বিধ্বস্ত ভারতের জঙ্গিবিমানগুলো ইথিওপিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে শোক দিবস পালিত মোটরসাইকেল কেনার পরদিনই প্রাণ গেল কিশোরের ফেসবুকে যুক্ত হলো চাকমা ভাষা টানা ১১ জয়ের রেকর্ড গড়লো লিভারপুল হবিগঞ্জের মাকালকান্দি গণহত্যা দিবস রোববার শিশু ধর্ষণের অভিযোগে চা দোকানদার আটক রাজধানীতে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নারীসহ নিহত ২ জমকালো আয়োজনে সাব্বিরের হলুদ অনুষ্ঠান সিরাজগঞ্জে ডেঙ্গুতে কলেজছাত্রের মৃত্যু ঐশ্বরিয়াকে আত্মহত্যার হুমকি দিয়েছেন সালমান আফগানিস্তানে বিয়ের অনুষ্ঠানে বোমা হামলা, নিহত ৬৩ ‘প্রেমিকার’ অশ্লীল ছবি তুলে ১০ লাখ টাকা দাবি তৃতীয় শ্রেণির স্কুলছাত্রী ধর্ষিত কানে ব্যথা হলে কি করবেন? বেনাপোলে নারীর ব্যাগে মিললো ৪৯ লাখ ৫৯ হাজার টাকার বিদেশি মুদ্রা চাঁদাবাজি করতে গিয়ে গণধোলাই খেল পুলিশের সোর্স সুদানে ক্ষমতা ভাগাভাগির চুক্তি স্বাক্ষর বস্তিতে আগুনের ঘটনায় জড়িতদের শাস্তি দিতে হবে: ড. কামাল খালেদার মুক্তির জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে যাবে বিএনপি কলকাতায় দুই বাংলাদেশির মৃত্যু, চালক গ্রেপ্তার ডেঙ্গু পরিস্থিতি মোকাবিলায় চ্যালেঞ্জিং আগামী ৭ দিন