artk
সোমবার, জুলাই ২২, ২০১৯ ৪:৪৯   |  ৭,শ্রাবণ ১৪২৬

স্টাফ রিপোর্টার

শনিবার, জুন ১৫, ২০১৯ ৫:৪৭

ঘাটতি মেটাতে ব্যাংক ঋণের সাহায্য নিলে সমস্যা ঘনীভূত হবে: জাপা

media

জিএম কাদের বলেন, বর্তমানে দেশের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোতে তারল্য সংকট চলছে। কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, সরকারের অধিক হারে ঋণ গ্রহণ। ফলে বেসরকারি খাতে নতুন উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ীরা প্রয়োজনমত যথেষ্ট ঋণ পাচ্ছেন না।

নতুন বাজেটের ঘাটতি মেটাতে সরকার ব্যাংক ঋণের সাহায্য নিলে বিরাজমান সমস্যা আরও ঘনীভূত হবে বলে মনে করেন জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জিএম কাদের এমপি।

শনিবার জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয় রজনীগন্ধায় ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর দলের পক্ষ থেকে প্রতিক্রিয়ায় তিনি এ কথা বলেন।

জিএম কাদের বলেন, বর্তমানে দেশের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোতে তারল্য সংকট চলছে। কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, সরকারের অধিক হারে ঋণ গ্রহণ। ফলে বেসরকারি খাতে নতুন উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ীরা প্রয়োজনমত যথেষ্ট ঋণ পাচ্ছেন না।

‘এ কারণে বিনিয়োগ ও ব্যবসা বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে সমস্যা হচ্ছে। এ অবস্থায় ঘাটতি মেটাতে সরকার যখন আবার ব্যাংক ঋণের সাহায্য নেবে, তা বিরাজমান সংকটকে আরও ঘনীভূত করতে পারে।’

তিনি বলেন, জাতীয় পার্টি বিশ্বাস করে গণমানুষের জন্যই বাজেট প্রণয়ন করা হয়। প্রস্তাবিত ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকার বাজেট এ যাবৎকালের সর্ববৃহৎ বাজেট। আকৃতি বেশ বড়। বড় অংকের অর্থ রাজস্ব খাতে আয় করতে হবে।

‘আবার নির্ধারিত খাতে বড় ধরনের ব্যয়ও করতে হবে। দুটিই বড় চ্যালেঞ্জ সরকারের জন্য। আয়ের প্রশ্নে আমাদের চাওয়া, যাতে অপেক্ষাকৃত অবস্থাপন্নদের কাছ থেকে বেশি হারে রাজস্ব আদায়ের ব্যবস্থা থাকে ও স্বল্প আয়ের মানুষের ঘাড়ে কম দায় চাপানো হয়।’

‘অর্থাৎ প্রত্যক্ষ কর যেমন আয়কর থেকে যতদূর সম্ভব রাজস্ব আদায় করা হয় ও পরোক্ষ কর (যেমন আমদানি শুল্ক ইত্যাদি) থেকে কম অংশ আয়ের ব্যবস্থা করা হয়,’ জানালেন জিএম কাদের।

তিনি বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে আয়-ব্যয়ের মধ্যে একটি বিশাল ফারাক আছে, যাকে বলা হয় বাজেট ঘাটতি ও যার আকার অঙ্কে ১ লাখ ৪৫ হাজার ৩৮০ কোটি টাকা।

‘এ ঘাটতি মেটানোর জন্য প্রস্তাব করা হয়েছে ব্যাংক থেকে ঋণ গ্রহণ (৪৭ হাজার ৩৬৪ কোটি) + বিদেশী ঋণ ও সাহায্য (৬৩ হাজার ৮৪৮ কোটি) + ব্যাংকের বাইরে (সঞ্চয়পত্র ইত্যাদি) থেকে নেয়া ঋণ (৩০ হাজার কোটি) টাকা।’

তিনি বলেন, এ ধরনের ঋণের খরচ অধিক ও প্রভাব সুদূরপ্রসারী। এ ধরনের ঋণ গ্রহণের আগে বিষয়টি ভালোমতো পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা বাঞ্ছনীয়। তাছাড়া মোট ঘাটতি আরও অধিক হওয়ার আশঙ্কা আছে।

বান্দরবানেও আ.লীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা ঢাকা ২ সিটির স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে হাইকোর্টে তলব গুজব-গণপিটুনি রোধে সারা দেশের পুলিশকে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ বন্যা থেকে দেশকে বাঁচাতে হলে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে: ড. কামাল হিন্দুদের কটূক্তির অভিযোগে ব্যারিস্টার সুমনের বিরুদ্ধে মামলা আ. লীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা স্ত্রী-সন্তানকে কুপিয়ে হত্যার পর যুবকের আত্মহত্যার চেষ্টা ‘প্রিয়া সাহার বিষয়ে রয়েসয়ে এগোতে চায় সরকার’ জবানবন্দি প্রত্যাহার ও চিকিৎসা- মিন্নির দুই আবেদনই নামঞ্জুর মা ও স্বামীর সাথে ধূমপান করে সমালোচিত প্রিয়াঙ্কা ফের প্রিয়ার অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ভিডিও ভাইরাল দেড় বছর ধরে বাবা-ছেলে ও দুই ভাতিজা মিলে কিশোরীকে ধর্ষণ! অভিনেতা বিশ্বজিতের ৬ মাসের কারাদণ্ড গরু পাচার রোধে অধিক কঠোর হচ্ছে ভারত! প্রিয়া সাহার অভিযোগ কতটা আমলে নিবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প চোখের ছানি প্রতিরোধে ঘরোয়া কিছু উপায় ডেঙ্গু জ্বরে মারা গেছেন হবিগঞ্জের সিভিল সার্জন এখনো উদ্ধার হয়নি তুরাগে পড়ে যাওয়া ট্যাক্সি ক্যাব টাকার জন্য পাঁচ বন্ধুর কাছে স্ত্রীকে বিক্রি, স্বামী গ্রেপ্তার বাড্ডায় গণপিটুনিতে নারীকে হত্যা: ৩ যুবক আটক উত্তর প্রদেশে বজ্রপাতে প্রাণ গেল ৩২ জনের সাভারে প্রাইভেটকার নদীতে জামালপুরে বন্যার পানিতে ডুবে শিশুসহ ৫ জনের মৃত্যু কারাবন্দীর পেট থেকে ১ হাজার ইয়াবা বড়ি উদ্ধার! লাইট-ফ্যান ছাড়া কিছু না চললেও বিদ্যুৎ বিল ১২৮ কোটি ৪৫ লাখ! মসজিদের সম্পতি পুলিশের সাবেক পরিদর্শকের নামে রেকর্ড মাউশির মহাপরিচালককে হাইকোর্টের তলব বাড্ডায় ছেলেধরা সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা: দোষীদের শনাক্ত করেছে পুলিশ ত্রিদেশীয় সিরিজে আসছে না জিম্বাবুয়ে এবার ব্যারিস্টার সুমনের বিরুদ্ধে আরেক আইনজীবীর মামলার প্রস্তুতি