artk
বুধবার, জুন ২৬, ২০১৯ ৩:০৪   |  ১২,আষাঢ় ১৪২৬
বুধবার, জুন ১২, ২০১৯ ৭:৪৭

অপরাধী-দুর্নীতিবাজ নিজ দলের হলেও ছাড় নয়: প্রধানমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার
media

অপরাধী-দুর্নীতিবাজ যত বড়ই হোক, এমনকি দলের হলেও কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না বলে হুঁশিয়ার করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

অপরাধী-দুর্নীতিবাজ যত বড়ই হোক, এমনকি দলের হলেও কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না বলে হুঁশিয়ার করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

বুধবার (১২ জুন) জাতীয় সংসদ অধিবেশনের প্রধানমন্ত্রীর জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে শেখ হাসিনা এ কথা জানান।

আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অব) রফিকুল ইসলাম এবং বিরোধী দল জাতীয় পার্টির রওশন আরা মান্নানের আলাদা দু’টি সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে দেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি সবসময় বলি, অপরাধী যেই হোক, আমার দলেরও যদি হয়, ছাড় দিচ্ছি না, পাবেও না। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার শাসন ঘর থেকেই শুরু করতে হয়, আমিও তাই করছি। অন্যরা করলেও ছাড় পাবে না, আমাদের দলের কেউ অপরাধ করলে তারাও ছাড় পাবে না। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কেউ জড়িত থাকলেও আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি এবং এটি অব্যাহত থাকবে।

ঘুষ গ্রহণকারীর মতো প্রদানকারীদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ঘুষ যে নেবে সেও অপরাধী, যে দেবে সেও অপরাধী। সবার বিরুদ্ধে আমরা ব্যবস্থা নেবো। কেউ ছাড় পাবে না। 

সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দুর্নীতি, অপরাধ দমনে সামাজিক সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে। এজন্য জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন স্তরের যারা আছেন সবাই একসঙ্গে কাজ করেন। তবেই এই অপরাধ-দুর্নীতি বন্ধ করতে পারবো।

রওশন আরা মান্নানের প্রশ্নে ‘দুর্নীতি দমন কমিশনের অনেকেই দুর্নীতি ব্যাধিতে আক্রান্ত বলে জনশ্রুতি আছে’- এই লাইনটি বাতিল করতে রফিকুল ইসলামের প্রস্তাবের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, প্রশ্নে তিনি জনশ্রুতি আছে এ কথাটা বলেছেন। এ কথাটা বাতিল করার প্রয়োজন নেই। কারণ কথাটা একেবারেইতো মিথ্যা নয়। আর সবাইতো একেবারে ধোয়া তুলসি পাতা নন। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই গ্যারান্টি কেউ দিতে পারবে না যে, সবাই একেবারে একশ’ ভাগ সৎ। সেক্ষেত্রে উনি বলেছেন এই সংস্থার মধ্যে অনেকেই দুর্নীতিবাজ বলে জনশ্রুতি আছে। আমি মনে করি, সংস্থাকে এখন থেকে সচেতন হতে হবে, বা যারা কাজ করবে তাদের ব্যাপারেও সচেতন হতে হবে, যেন এমন কিছু না করেন যাতে এই ধরনের জনশ্রুতি সৃষ্টি হয়। 

শেখ হাসিনা বলেন, দুর্নীতি দমনই বলেন আর খাদ্য নিরাপত্তাই, অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় এখানে এমন এমন অনেক বড় বড় জায়গা আছে, যেখানে হাত দিলেই মনে হচ্ছে হাতটা পুড়ে যাচ্ছে এবং যারা এই কাজটা করতে যায় তারাই অপরাধী হয়ে যায়। আর কিছু কিছু পত্রপত্রিকাতো আছেই যে এদের বিরুদ্ধে লেখা শুরু করে। 

তিনি বলেন, সেখানেও আমাদের এ ব্যাপারে সচেতন থাকা যে, সঠিক কাজটা করেছে কি-না, সেটা দেখে বিচার করা। কোন পত্রিকায় কী লিখলো সেটা দেখা নয়।

সরকারপ্রধান বলেন, রোজার সময় আমি দেশের বাইরে ছিলাম, তখন বেশ কিছু কিছু বড় বড় জায়গায় একজন অফিসার হাত দিয়েছেন বলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হলো, যেটা আমার কাছে মোটেও গ্রহণযোগ্য ছিল না। আমি বলে দিয়েছে তাদের আগের জায়গায় বহাল রাখতে।

হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বড় বড় জায়গায় খারাপ কিছু থাকবে না, অনিয়ম হবে না। যারা মালিক তারাও তো গ্যারান্টি দিতে পারবে না। সেখানে পরীক্ষা করতে পারবে না, কেন সচেতন করতে পারবে না। সাধারণ ছোট খাট সেগুলো ধরতে পারবে, বড় অর্থশালী সম্পদশালী হলে তাদের হাত দেওয়া যাবে না, তাদের অপরাধ অপরাধ না। এটাতো হয় না। অপরাধী সে অপরাধী, আমার চোখে অপরাধী সে অপরাধী, তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এর আগে বিরোধী দল জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য রওশন আরা মান্নানের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, চেষ্টা করি, কিভাবে দেশের মানুষের কল্যাণ করা যায়। আমি নিজেকে দেশের মানুষের সেবক হিসেবে মনে করি। প্রধানমন্ত্রী একটা দায়িত্ব, এই দায়িত্ব যথাযথ পালনের চেষ্টা করি।

শেখ হাসিনা বলেন, দেশ যখন অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যায়, উন্নয়নের পথে এগিয়ে যায়, তখন বিভিন্ন স্তরে কিছু টাউট-বাটপার শ্রেণির মানুষ তৈরি হয়। এদের শুধু আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী দিয়ে দমন  করা সম্ভব হয় না। এদের সামাজিকভাবে দমন  করতে হবে। জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন স্তরে যারা প্রতিনিধি আছেন, তাদের আমি বলবো সবাই মিলে এলাকায় এলাকায় কমিটি করতে, যেন কেউ অপরাধের সুযোগ না পায়। 

 

খালে ভাসমান অবস্থায় মিললো ছাত্রলীগ নেতার ক্ষতবিক্ষত লাশ ২৮ বছর পর সচল সগিরা মোর্শেদ হত্যা মামলা সী পার্লের আইপিও শেয়ার বিওতে জমা দুদকের অমার্জনীয় ভাষায় তলব চিঠি প্রত্যাহারসহ ৪ দফা দাবি মানবতাবিরোধী অপরাধ: রণদা প্রসাদ হত্যার রায় বৃহস্পতিবার অস্ট্রেলিয়ার সৈকতে 'রহস্যময়' মাছ টকশো'তে সাংবাদিককে পেটালেন রাজনৈতিক নেতা! (ভিডিও) সহজে রান্না করুন মজাদার আম পাবদা দাঁতের সুরক্ষায় এনামেল-এর যত্ন নিন ট্রেন দুর্ঘটনা: সিলেট গেলেন দুই মন্ত্রী যেভাবে খুন হন ইন্দিরা গান্ধী নরসিংদীর দগ্ধ কলেজছাত্রী ফুলন মারা গেছেন মাশরাফি-সাকিবদের সুবিধা বাড়ানো হবে: প্রধানমন্ত্রী মসজিদ নিষিদ্ধ যে ‘পবিত্র শহরে’ ইংল্যান্ডকে হারিয়ে সেমিতে অস্ট্রেলিয়া সম্পর্ক তাজা রাখতে বাদ দিন এ সব কথা জন্মনিরোধক জেল ব্যবহার করলেন প্রথম কোনো পুরুষ সংগীতশিল্পী মিলা লাপাত্তা! সাংবাদিক নিগ্রহে সালমানের বিরুদ্ধে মামলা যাত্রাবাড়ীতে ট্রাকচাপায় কনস্টেবল নিহত পটিয়ায় মাইক্রোবাসের সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দগ্ধ ২০ ডিআইজি মিজান সাময়িক বরখাস্ত এমন গহনা তৈ‌রি করুন ক্রেতা‌রা যেন কলকাতামুখী না হয় এখনও সাম্প্রদায়িক শক্তি হুমকি দিয়ে যাচ্ছে: কাদের পাঞ্জাবির দাম বেশি রাখায় আড়ংকে আবারও জরিমানা দুধে অ্যান্টিবায়োটিক, ফরমালিন, মসলায় টেক্সটাইল রঙ ট্রাম্পের শান্তি পরিকল্পনা মধ্যপ্রাচ্যে বিস্ফোরণ ঘটাবে: ইসরাইল সুবিধাবাদী ব্যবসায়ীরা আজ সংসদে: নাসিম চালু হচ্ছে খুলনা-কলকাতা অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস ‘ওরা কামালকে ভাড়া করল ওদের জন্য, কাজ করল আমাদের জন্য’