artk
বৃহস্পতিবার, আগষ্ট ২২, ২০১৯ ১০:৩৮   |  ৭,ভাদ্র ১৪২৬
মঙ্গলবার, মে ২১, ২০১৯ ৪:৩৭

আইসিডিডিআরবি, বুয়েট, ঢাবি ল্যাবে ওয়াসার পানি পরীক্ষার নির্দেশ

স্টাফ রিপোর্টার
media

ঢাকা ওয়াসার পানি ‘শতভাগ বিশুদ্ধ’ দাবি করেছিলেন প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাকসিম এ খান। তাকে সেই পানির শরবত পান করাতে ওয়াসা ভবনের সামনে হাজির হয় জুরাইনের একটি পরিবার: ছবি সংগ্রহ

রাজধানীর ৩৪টি পয়েন্ট থেকে ঢাকা ওয়াসার পানির নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার নির্দেশ দিয়েছেন হাই কোর্ট। আইসিডিডিআরবি, বুয়েটের ব্যুরো অব রিসার্চ, টেস্টিং অ্যান্ড কনসোলেশন এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুজীব বিজ্ঞান বিভাগের ল্যাবে ওয়াসার পানির ওই নমুনা পরীক্ষা করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

রাজধানীর ৩৪টি পয়েন্ট থেকে ঢাকা ওয়াসার পানির নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার নির্দেশ দিয়েছেন হাই কোর্ট। আইসিডিডিআরবি, বুয়েটের ব্যুরো অব রিসার্চ, টেস্টিং অ্যান্ড কনসোলেশন এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুজীব বিজ্ঞান বিভাগের ল্যাবে ওয়াসার পানির ওই নমুনা পরীক্ষা করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

পানি পরীক্ষার জন্য আদালতের নির্দেশে গঠিত চার সদস্যের কমিটিকে ২ জুলায়ের মধ্যে এ বিষয়ে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

প্রতিটি নমুনা পরীক্ষায় ৫ হাজার টাকা খরচ ধরে মোট ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা ওয়াসাকে দিতে বলা হয়েছে। আর স্থানীয় সরকার সচিবকে বলা হয়েছে ওয়াসার কাছ থেকে এ টাকা আদয় করে দিতে।

আদেশে আদালত চারটি উৎস (বুড়িগঙ্গা, শীতলক্ষা, ভূ-গর্ভস্থ ও ভূমিস্থ), ১০টি বিতরণ জোন (যা মডস জোন নামে পরিচিত) এবং গ্রাহকদের অভিযোগের ভিত্তিতে ১০টি ঝুঁকিপূর্ণ ও দৈবচয়নের ভিত্তিতে ১০টি স্থান থেকে নমুনা সংগ্রহ করতে বলেছে।

পানি পরীক্ষার ব্যয় সংকোচন ও সার্বিক চিত্র পাওয়ার বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান ড. সাবিতা রিজওয়ানা রহমান আদালতে তার মতামত তুলে ধরার পর মঙ্গলবার বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেয়।

অধ্যাপক সাবিতা রিজওয়ানা রহমান আদালতের নির্দেশে গঠিত ওয়াসার পানি পরীক্ষা কমিটিরও সদস্য। অন্য সদস্যরা হলেন আইসিডিডিআরবির জ্যেষ্ঠ বিজ্ঞানী মনিরুল আলম ও বুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক এ বি এম বদরুজ্জামান। স্থানীয় সরকার বিভাগের একজন অতিরিক্ত সচিব এ কমিটির আহ্বায়ক।

আদালতে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের পক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু। রিটকারী পক্ষে ছিলেন আইনজীবী তানভীর আহমেদ।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের পক্ষে বৃহস্পতিবার একটি প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করে রাষ্ট্রপক্ষ। গত তিন মাসে ওয়াসার হট লাইনে পাওয়া অভিযোগের ভিত্তিতে ১০টি মডস জোনের ৫৯টি এলাকার পানিতে ময়লা থাকার প্রবণতা সবচেয়ে বেশি বলে সেখানে উল্লেখ করা হয়।

ওয়াসার ১০টি জোনের প্রত্যেক এলাকা থেকে ৩৫৫টি নমুনা সংগ্রহ করে তিনটি ল্যাবরেটরিতে রোগজীবাণু ও ভৌত রাসায়নিক পরীক্ষা করতে মোট ৭৫ লাখ ৬১ হাজার ৫০০ টাকা খরচ হবে বলে সেদিন হিসাব দিয়েছিল ওয়াসা।

এরপর হাই কোর্ট পানি পরীক্ষার ব্যায় সংকোচন ও পরীক্ষা পদ্ধতির বিষয়ে মতামত দিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের (মাইক্রোবায়োলজি ডিপার্টমেন্ট) চেয়ারম্যান ড. সাবিতা রিজওয়ানা রহমানকে আদালতে আসতে বলে। এর ধারাবাহিকতায় অধ্যাপক সাবিতা মঙ্গলবার হাই কোর্টে উপস্থিত হয়ে তার মতামত তুলে ধরেন।

শুনানির এক পর্যায়ে বিচারক বলেন, “মূলত বেশি বাজেটের বিষয়ে আপনার মতামত জানতে চাচ্ছি। আমাদের মূল উদ্দেশ্য দূষিত পানি সরবরাহের বিষয়টি নিয়ে। কেন এটা সাপ্লাই হচ্ছে? এটা এক্সামিনের জন্য। এ এক্সামিনে এত লার্জ স্কেল কেন? স্যাম্পল কীভাবে নেওয়া হবে। মূলত পরীক্ষায় খরচ কীভাবে কমানো যায় সে বিষয়ে জানতে আপনাকে আসতে বলেছিলাম।”

জবাবে অধ্যাপক সাবিতা বলেন, পানি দূষিত- এমন ঢালাও অভিযোগের কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। তবে সুপেয় পানিতে কোনো রকম রং, গন্ধ বা অস্বচ্ছতা কখনোই গ্রহণযোগ্য নয়। সুপেয় পানি সকল নাগরিকের মৌলিক অধিকার। এসব লক্ষণ থাকলে অভিযোগ কেন্দ্রে আনা পানির নমুনা চূড়ান্তভাবে অগ্রহণযোগ্য বিবেচনায় কর্তৃপক্ষের তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত।”

২০০৯ সালে ঢাকা ওয়াসার সংযোগ যেখানে ছিল ২ লাখ ৭২ হাজার ৮৪৪টি, বর্তমানে তা বেড়ে ৩ লাখ ৮৭ হাজার ১৭৭টি হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, “যে পানিতে ময়লা দেখা যাচ্ছে বা ঘোলা, সেটাতো পরীক্ষার দরকার নেই। সেটা রিজেক্টেড। যেটা সাধারণত স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ, এমন পরিষ্কার পানি পরীক্ষায় অগ্রাধিকার দিতে হবে; যা পান করে কোনো এলাকার রোগ ছড়াবার তথ্য মেলে।”

দূষণের প্রকৃত চিত্র পাওয়ার জন্য অভিযোগ আছে এমন এলাকার পানি সাত দিনের মধ্যে পরীক্ষা করার ওপর জোর দেন অণুজীব বিজ্ঞানের এই অধ্যাপক।

তিনি বলেন, ওয়াসা ৫৯টি এলাকার পানি নিয়ে যে প্রতিবেদন দিয়েছে, তা কয়েক মাস আগের। ওয়াসার পানির উৎস হল ভূমিস্থ, ভূগর্ভস্থ, শীতলক্ষ্যা বা বুড়িগঙ্গা নদী। এসব উৎসের পানির ধরন ঋতু বদলের সঙ্গে সঙ্গে বদলে যেতে পারে। ঢাকা ওয়াসার ১০টি জোনের ৩ লাখ ৬০ হাজার ৩৪৩টি আউটলেট আছে ধরে আমরা ইতিমধ্যে জানিয়েছি, ৯৯ ভাগ আস্থা অর্জন করতে হলে ১৫ হাজার ৮৫৮টি আউটলেট পরীক্ষা করা প্রয়োজন। অন্তত ৯৫ ভাগ আস্থা অর্জন করতে হলেও এক হাজার ৬৫টি আউটলেট পরীক্ষা করা আবশ্যক।

আদালত তখন জানতে চায়, চারটি উৎস, বিতরণের ১০টি জোন, দৈবচয়ন ভিত্তিতে দশটি এলাকা এবং ১০টি ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার পানির নমুনা করলেও মোট ৩৪টি নমুনা পরীক্ষা করতে হব ; তাতে মোট কত টাকা খরচ হতে পারে। 

জবাবে অধ্যাপক সাবিতা বলেন, প্রতি স্যাম্পলে পাঁচ হাজার টাকা খরচ হবে। সে ক্ষেত্রে মোট ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা খরচ হবে।

আদেশের পরে অধ্যাপক সাবিতা রিজওয়ানা সাংবাদিকদের বলেন, “আজকে যে পানি সুপেয়, দুই দিন পরে কোনো রকম জটিলতার কারণে সে পানি সুপেয় নাও থাকতে পারে। সে কারণে এককালীন পরীক্ষা করে পানির বিষয়টি সমাধান করা যাবে না। পানি সুপেয় না হলে যেটা করণীর সেটার ওপর জোর দিতে হবে। পাইপ লাইনে সংস্কার, কিংবা পানির মান উন্নয়ন…।”

বাংলাদেশের পানি সরবরাহ, পয়োনিষ্কাশন, স্বাস্থ্যবিধি ও দারিদ্র্য নিয়ে সম্প্রতি বিশ্ব ব্যাংকের একটি প্রতিবেদন ও প্রতিবেদন নিয়ে প্রকাশিত খবর যুক্ত করে গত বছর ১৪ অক্টোবর হাই কোর্টে একটি রিট আবেদন হয়। সেই রিটের শুনানি নিয়ে আদালত পানি পরীক্ষার নির্দেশনার পাশাপাশি রুল জারি করে।

ওয়াসার নিরাপদ পানি সরবরাহে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের ব্যর্থতা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না এবং নিরাপদ পানি সরবরাহে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ কেন দেওয়া হবে না, জানতে চাওয়া হয় ওই রুলে।

স্থানীয় সরকার প্রশাসন, স্বাস্থ্য সচিব, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলের প্রধান প্রকৌশলী, ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালককে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়।

রাখাইনে প্রবেশাধিকার চায় ইউএনএইচসিআর-ইউএনডিপি ১৫ ও ২১ আগস্ট নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য: মাউশি পরিচালক ওএসডি থানা থেকে পুলিশের জব্দ করা মোটরসাইকেল চুরি ৫ দিনের রিমান্ডে ভারতের সাবেক অর্থমন্ত্রী কাশ্মিরে জুমার নামাজের পর কারফিউ ভাঙার ডাক বাজারের ব্যাগে ৫ কোটি টাকার হেরোইন! প্রাথমিকে আরো ২০ হাজার শিক্ষক নিয়োগ সাব-রেজিস্ট্রার অফিসকে ভূমি মন্ত্রণালয়ের অধীনে আনার সুপারিশ দেড় বছর ধরে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে আসেন না ডাক্তার জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে রেড অ্যালার্ট জারির উদ্যোগ পরমাণু বোমা আমরা এমনি এমনি রাখিনি: জাভেদ মিয়াঁদাদ কলকাতায় বাংলাদেশির মৃত্যু: আরসালান নয় চালক ছিলেন বড় ভাই রাগিব রাজধানীসহ দেশের ৬ স্থানে দুদকের অভিযান ভারতের সবচেয়ে ধনী অভিনেতা অক্ষয় কুমার! শুরুতেই ফিটনেসে মনোযোগী বাংলাদেশি কোচ কেমন আছেন মিয়ানমারের মুসলমান নাগরিকেরা? বেশি নম্বর দেয়ার কথা বলে ছাত্রীকে যৌন হয়রানি, শিক্ষক বরখাস্ত উপহাসকারী রিজভীদেরও বিচার হওয়া উচিত: তথ্যমন্ত্রী ডা. জাফরুল্লাহসহ ৭৬ জনের বিরুদ্ধে আ.লীগ নেতার মামলা ওজনে কারচুপি: ২ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে বিএসটিআইয়ের মামলা বজ্রপাতে ৫ জেলায় ৯ জনের মৃত্যু যাত্রাবাড়ীতে বাসের ধাক্কায় বাবা নিহত, ছেলে আহত তিন বিচারপতির বিষয়ে অনুসন্ধান অন্যদের জন্য বার্তা রোহিঙ্গাদের থাকতে প্ররোচনা দিলে ব্যবস্থা নেয়া হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী পুঁজিবাজারে সূচকের উত্থান বিচার বিভাগের অনেকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ আছে: খোকন ভুল চিকিৎসা: ঢাবি শিক্ষার্থীকে ৫ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ নয় কেন অনুসন্ধানে ব্যর্থরা অন্য প্রতিষ্ঠানে কাজ করুন: দুদক চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে ফরমায়েশি সাজা দেয়া হয়েছে: রিজভী ‘গার্লস প্রায়োরিটি’র অ্যাডমিন তাসনুভা কারাগারে