artk
বুধবার, সেপ্টেম্বার ১৮, ২০১৯ ৪:০৬   |  ৩,আশ্বিন ১৪২৬

স্টাফ রিপোর্টার

বৃহস্পতিবার, মে ১৬, ২০১৯ ৮:৪৫

খুবই দুঃশ্চিন্তার মধ্যে আছি: কৃষিমন্ত্রী

media

কৃষক ধানের ন্যায্যমূল্য না পেয়ে ক্ষেতে আগুন দিচ্ছে। এ ব্যাপারে সরকারের উদ্যোগের বিষয়ে জানতে চাইলে আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘ধান ভালো হলে আমরা খুশি হই, বাম্পার ফলন হয়েছে। কেন ভালো হয়েছে? ধানে আমরা ঘাটতি ছিলাম। সারা পৃথিবীতে আমরা খাদ্যের ঝুলি নিয়ে ঘুরে বেড়াতাম। সেই বাংলাদেশে ধান এত উৎপাদন হয়েছে যে চাষিরা এখন এটাকে বার্ডেন মনে করছে।’

বোরোতে কৃষক ন্যায্যমূল্য না পাওয়ায় খুবই দুঃশ্চিন্তার মধ্যে আছেন বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দুর রাজ্জাক। কৃষকের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিতে সরকার গভীরভাবে চিন্তা-ভাবনা করছে বলেও জানান মন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত ঝাং জুর সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

কৃষক ধানের ন্যায্যমূল্য না পেয়ে ক্ষেতে আগুন দিচ্ছে। এ ব্যাপারে সরকারের উদ্যোগের বিষয়ে জানতে চাইলে আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘ধান ভালো হলে আমরা খুশি হই, বাম্পার ফলন হয়েছে। কেন ভালো হয়েছে? ধানে আমরা ঘাটতি ছিলাম। সারা পৃথিবীতে আমরা খাদ্যের ঝুলি নিয়ে ঘুরে বেড়াতাম। সেই বাংলাদেশে ধান এত উৎপাদন হয়েছে যে চাষিরা এখন এটাকে বার্ডেন মনে করছে।’

তিনি বলেন, ‘ইমিডিয়েটলি এ সমস্যার সমাধান করা কঠিন। আমরা বলি যে বাংলাদেশে মায়ের মুখের হাসি সোনালী ধানের শীষে। সোনালী ধান দেখে মানুষের মুখে হাসি ফোটে। কিন্তু এটা যে আমাদের জন্য এমন বিড়ম্বনা হবে আমরা ভাবিনি।’

কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা বিভিন্ন সহযোগিতা দিয়েছি, আমরা সারের দাম কমিয়েছি, বিভিন্ন উপকরণের দাম কমিয়েছি। ঋণ দিয়েছি, ভালো বীজ দিয়েছি, গবেষণার ক্ষেত্রে অনেক বিনিয়োগ করেছি। ধানের ভালো জাত এসেছে।’

‘আমাদের এখন এগ্রো প্রসেসিং ইন্ডাস্ট্রি করতে হবে। খাদ্যকে কীভাবে প্রক্রিয়াজাত করা যায়, ভ্যালু অ্যাড করা যায়,’যোগ করেন কৃষিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘এ মুহূর্তে উৎপাদন যা দেখছি, আমরা কিছু চাল রফতানির বিষয়টি গভীরভাবে চিন্তা করছি। দ্বিতীয়ত উপকরণ যেমন সেচের খরচ কীভাবে আরও কমানো যায়। সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে শ্রমিকের খরচ। ধান লাগানো থেকে শুরু করে মাড়াই পর্যন্ত অনেক খরচ হচ্ছে, পোষাতে পারছে না কৃষক। এটাও জাতির জন্য অর্থনীতির জন্য একটি খুশির খবর যে, আজ শ্রমিকদের ঘাটতি। এর চেয়ে খুশির খবর আর কী হতে পারে।’

‘কিন্তু অন্যদিকে চাষির জন্য এটা একটা দুঃসংবাদ, সে এত কষ্ট করে মাথার ঘাম পায়ে ফেলে রোদে পুড়ে বৃষ্টিতে ভিজে সে ধান আবাদ করছে। তার রক্তকে সোনালী ফসলে রূপান্তর হচ্ছে, কিন্তু সে ন্যায্য দাম পাচ্ছে না’ বলেন আব্দুর রাজ্জাক।

তিনি বলেন, ‘এটার জন্য সরকারের একদম সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে আমরা আলাপ করেছি, খুবই দুঃশ্চিন্তায় রয়েছি। এবং এটা নিয়ে আমরা গভীরভাবে চিন্তা-ভাবনা করছি, কী কী পদক্ষেপ নিলে এ পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে পারি এবং চাষির মুখে হাসি ফোটাতে পারি।’

কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘চাল রফতানি, উপকরণের দাম কমানো ও আরও উন্নত জাত আবিষ্কার করে উৎপাদনশীলতা বাড়ানো- এই পদক্ষেপ আমাদের নিতে হবে। এগুলো খুব দীর্ঘেমেয়াদী প্রক্রিয়া নয়। তাৎক্ষণিকভাবে আমরা ১০ থেকে ১৫ লাখ টন রফতানিতে যেতে পারি।’

সরকার যাতে আরও বেশি চাল কিনতে পারে, সেই সক্ষমতাও অর্জন করতে হবে বলেও জানান মন্ত্রী।

কৃষকের কাছ থেকে সরাসরি ধান কিনে কৃষককে লাভবান করার ক্ষেত্রে স্থানীয় রাজনীতি প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে জানিয়ে কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘সেই এরশাদের আমল থেকে কৃষকদের কাছ থেকে সরাসরি কিনে কৃষককে লাভবান করার বিষয়ে গভীরভাবে চিন্তা হচ্ছে। আমরা ৩৬টাকা কেজি দরে কিনছি, কিন্তু চাষি পাচ্ছে না। এ বাস্তবতা এক কঠিন যে, কোনো পদ্ধতি বের করতে পারছি না, কীভাবে কৃষকের কাছ থেকে সরাসরি কেনা যায়।’

ঢাবিতে আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা (ভিডিও) শাহজালালে কোটি টাকার সোনা জব্দ ছাত্রদলের কাউন্সিলরদের বিকেলের মধ্যে নয়াপল্টনে থাকার নির্দেশ পটুয়াখালীতে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় দুই আরোহী নিহত বিএসএফের গুলিতে নিহত বাংলাদেশির মরদেহ ফেরত জাবিতে আন্দোলনকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মোবাইল সেবা বন্ধ রাঙামাটিতে ২ জেএসএস কর্মীকে গুলি করে হত্যা গাজীপুরে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত জাকির নায়েককে কেউ নিতে চায় না: মাহাথির সকালের নাস্তায় ভুল খাবার নয়, রাখুন এসব যে গ্রামের সব মানুষ দৃষ্টিহীন গণধর্ষণ মামলার বাদীর দুই পা গুড়িয়ে দিয়েছে আসামিরা নারায়ণগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শীর্ষ সন্ত্রাসী নিহত বিপদসীমার ২১ সেন্টিমিটার ওপরে তিস্তার পানি, নিম্নাঞ্চল প্লাবিত সাইবার ক্রাইম বিভাগে দ্বারস্থ মেহজাবিন নকল বিদেশি ওষুধ বিক্রি করায় ২ প্রতিষ্ঠানকে ৪০ লাখ টাকা জরিমানা গণহত্যার ঝুঁকিতে এখনো ৬ লাখ রোহিঙ্গা: জাতিসংঘ গাজীপুরে বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে অবৈধ গ্যাস লাইনে অগ্নিকাণ্ড ফেসবুক স্ট্যাটাস দেখেই শিক্ষার্থীদের বহিষ্কার করেন উপাচার্য পাবনায় ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে ট্রেন চালকের আত্মহত্যা সৌদি আরবে ফের হামলা চালিয়েছে ইয়েমেন ঢাকার শতাধিক বিএনপি নেতাকর্মী জাতীয় পার্টিতে যোগ দিয়েছে চাঁদাবাজির অভিযোগে ঢাকা উত্তর ছাত্রলীগ নেতা বহিস্কার ‘ডাক্তার বলার আগেই আয়া রোগীর পোশাক খুলে নেয়’ দুর্নীতি নির্মূলে টাস্কফোর্স গঠনের দাবি সম্পাদক পদে প্রার্থী হবেন না ওবায়দুল কাদের রিজার্ভ চুরির ব্যাপারে কিছুই বলা যাবে না: অর্থমন্ত্রী আলিয়ার সঙ্গে চুমুর দৃশ্যে আপত্তি সালমান খানের? মামলাকে কর ফাঁকির হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে মেঘনা গ্রুপ! খালেদা জিয়া আলেমদের কিছু দেন নাই: আল্লামা শফী