artk
শনিবার, জুলাই ১১, ২০১৫ ৯:৪০

নজরুল একাডেমির ভূমি রক্ষায় অর্থমন্ত্রীর আশ্বাস

media

সিলেট: সিলেট নজরুল একাডেমির ভূমি জামায়াত শিবিরের কতিপয় দুর্বৃত্তের হাত থেকে রক্ষায় সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত।

এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জেলা প্রশাসককে নির্দেশ দেন তিনি।

শনিবার নজরুল একাডেমি সিলেটের সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ান আহমদ অর্থমন্ত্রীকে একাডেমির ভূমি রক্ষার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও সবশেষ অবস্থা অবহিত করলে তিনি এ আশ্বাস দেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ, মদন মোহন কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক আবুল ফতেহ ফাত্তাহ, গণতন্ত্রী পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা ব্যারিস্টার আরশ আলী, জাসদের কেন্দ্রীয় নেতা লোকমান আহমদ, সিপিবির সভাপতি অ্যাডভোকেট বেদানন্দ ভট্টাচার্য্য, জেলা আইনজীবি সমিতির সাবেক সভাপতি ইইউ শহিদুল ইসলাম শাহিন ও আওয়ামী লীগ নেতা বিজিত চৌধুরী।

জানা যায়, সিলেটের জেলা প্রশাসক নজরুল একাডেমির ভূমি ও ভবনের দখল বুঝিয়ে দিতে গত ২৫ মার্চ নোটিশ প্রদান করেন।

জেলা প্রশাসক স্বাক্ষরিত এ নোটিশে নজরুল একাডেমিকে ১০ দিনের মধ্যে আইনগত মালিক/উত্তরাধিকারীর কাছে ভূমির দখল বুঝিয়ে দিতে বলা হয়।

পরবর্তীকালে ২ জুন জেলা প্রশাসন দ্বিতীয় নোটিশ জারি করে ৭ দিনের মধ্যে এলএ শাখার কানুনগো মলয় করের কাছে দখল বুঝে দেওয়ার নির্দেশ দেন।

এই নোটিশের পরিপ্রেক্ষিতে ৫ জুলাই নজরুল একাডেমির সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ান আহমদ হাইকোর্টে রিট পিটিশন দায়ের করলে হাইকোর্ট রুল জারি করেন। হাইকোর্টের বিচারপতি নাঈমা হায়দার ও বিচারপিত মোস্তফা জামাল ইসলাম সমন্বয় গঠিত বেঞ্চ এ রুল জারি করেন।

এতে নজরুল একাডেমির স্থিতাবস্থা বহালসহ উচ্ছেদ প্রক্রিয়া কেনো বেআইনি হবে না এ মর্মে কারণ দর্শাতে বাংলাদেশ সরকারের ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিব, সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার, সিলেটের জেলা প্রশাসকসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে রুল জারি করা হয়।

নজরুল একাডেমির পক্ষে মামলা পরিচালনা করছেন অ্যাডভোকেট এএসএম আব্দুল মুবিন। শুনানিকালে উত্তরাধিকারী দাবিদার কপিল দাশের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক আইন উপদেষ্টা ও অ্যাটর্নি জেনারেল এএফ হাসান আরিফ।

অভিযোগে বলা হয়, ২০০৩ সালে ‘ভূমিখেকো’ জামায়াত-শিবির চক্রের যোগসাজশে জনৈক কপিল দাস দেবোত্তর সম্পত্তিটির সেবাইত কিরণ বিহারী দাস ও সেবাইত কমলা কান্ত দাসের উত্তরাধিকারী দাবি করে ভূমি মন্ত্রণালয়ে বাড়িটি অবমুক্তির জন্য আবেদন করেন। আর এই আবেদনের পূর্বেই কপিল দাস জামায়াতি চক্রটির সাথে সেরে নেন গোপন আঁতাত।

জানা যায়, জামায়াতের এ চক্রই নজরুল একাডেমিকে দখলের জন্য দাঁড় করায় এক উত্তরাধিকারী। গত বিএনপি জোট সরকারের সময় মন্ত্রণালয় থেকে ছাড়িয়ে আনা আর দখল বুঝে পাওয়ার জন্য উত্তরাধীকারী দাবিদার কপিল দাস বাহ্যত আবেদন করলেও মূলত আড়ালে থেকে জামায়াতি চক্রটি এর ক্রীড়ণক হিসেবে কাজ করছে।

এর পরিপ্রেক্ষিতে ভূমি মন্ত্রণালয় সিলেট জেলা প্রশাসকের নিকট ২০০৩ সালের ১ এপ্রিল প্রতিবেদন চেয়ে পাঠায়। সিলেটের তৎকালীন জেলা প্রশাসক আবুল হোসেন রহস্যজনক কারণে নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে অবমুক্তির পক্ষে প্রতিবেদন দাখিল করেন। ফলে ভূমি মন্ত্রণালয় অস্থায়ীভাবে হুকুম দখলকৃত ২১বি/৪৮-৪৯ নম্বর বাড়িটি মূল মালিক যাচাই বাছাই পূর্বক অবমুক্ত করে দেওয়ার নির্দেশ দেন।

পরবর্তী জেলা প্রশাসকরা অবমুক্তির বিষয়টি আইনি দৃষ্টিতে বিবেচনা করে সেই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেন। ভূমি মন্ত্রণালয় থেকে যথারীতি সিলেট জেলা প্রশাসকের নিকট জানতে চাওয়া হয় কেনো প্রকৃত মালিককে দখল বুঝিয়ে দেওয়া হলো না?

ভূমি মন্ত্রণালয়ের এই কারণ দর্শনো পত্রের প্রতিউত্তরে সিলেটের তৎকালীন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হারুণ চৌধুরী আত্মপক্ষ সমর্থকমূলক আবেদন পাঠান ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিব বরাবরে। এতে হারুণ চৌধুরী তার পূর্ববর্তী জেলা প্রশাসকের প্রেরিত প্রতিবেদন সম্পর্কে উল্লেখ করেন ‘এ কার্যালয় হতে পূর্বে প্রেরিত প্রতিবেদনে অসাবধানতাবশতঃ নিম্ন বর্ণিত বিষয় সমূহ অর্ন্তভূক্ত করা হয়নি।’

অগ্রজ ডিসির ‘অসাবধানতায় অর্ন্তভূক্ত না হওয়া’ বিষয় হিসেবে উল্লেখ করে তিনি কথিত উত্তরাধিকারীর অবমুক্তির  আবেদন বাতিল হওয়ার জন্য তিনটি সুষ্পষ্ট কারণ তুলে ধরেন প্রতিবেদনে।

এসএ রেকর্ড মতে, উক্ত বাড়িটি শ্রী শ্রী গিরীধারী জিউ দেবতার পক্ষে সেবাইত কিরণ বিহারী দাস ও কমলা কান্ত দাস এর নামে রেকর্ডভুক্ত আছে। যা দেবত্তোর সম্পত্তির তালিকার ১৫নম্বর ক্রমিকে অর্ন্তভুক্ত আছে। আবেদনকারীগণ সেবাইতের উত্তরাধিকারী মাত্র। সেবাইতের উত্তরাধিকারীগণের নামে দেবত্তোর সম্পত্তি অবমুক্ত করার কোন আইনগত সুযোগ নাই। তারপরও কতিপয় লোককে উত্তরাধিকারী সাজিয়ে স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী একটি অপশক্তি জাতীয় কবির নামাঙ্কিত প্রতিষ্ঠানটির নাম নিশানা মুছে দিতে তৎপর হয়ে ওঠে।

বাড়িটি রিকুইজিশন করার সুদীর্ঘ ৫৩ বৎসর পর আবেদনকারীগণ স্থানীয় পৌরসভা চেয়ারম্যান কর্তৃক প্রদত্ত উত্তরাধিকারী সনদপত্রের ভিত্তিতে অবমুক্ত করার আবেদন করেন। ২০০৩ সালে কপিল দাস যে উত্তরাধিকারী সনদের মাধ্যমে ভূমি মন্ত্রণালয়ে বাড়িটি অবমুক্তির জন্য আবেদন করেন সেই সনদটিও জাল। ২০১০ সালে উচ্চ আদালতের নির্দেশ মতে ভূমি সমঝিয়ে দেওয়ার পূর্বে কাগজপত্র যাচাই-বাছাইকালে বিষয়টি ধরা পড়ে।

কাগজপত্র যাচাইকালে দেখা যায়, উত্তরাধিকার সনদে মেয়রের কোনো স্বাক্ষর নেই। তার পক্ষে সচিবের স্বাক্ষর রয়েছে। তা দেখে বিস্ময় প্রকাশ করেন তৎকালীন মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান।

নিউজবাংলাদেশদ.কম/কেজেএইচ

পশুর চেয়েও নিকৃষ্ট ধর্ষক: প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাসের কারণে হজে যাওয়া না হলে টাকা ফেরত: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী দাঙ্গা নয়, দিল্লিতে পরিকল্পিত গণহত্যা হয়েছে: মমতা ভারতের সম্মান তলিয়ে দিয়েছে মোদি সরকার: মমতা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে সুনামগঞ্জে এনামুল-রুপন ছয় দিনের রিমান্ডে পিরোজপুরে সাবেক ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা চলতি বছরই তিস্তা চুক্তির সম্ভাবনা: শ্রিংলা ঢাকা উত্তরের নির্বাচন বাতিল চেয়ে তাবিথের মামলা খুলনায় ছাত্রলীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যা অভিনেতা গোলাম মুস্তাফার জন্মদিন সোমবার আদালতে টাউট-বাটপার শনাক্তের নির্দেশ পাওয়ার ট্রলিকে ধাক্কা দিয়ে বিকল রেলইঞ্জিন কলকাতা সফরে এসে প্রবল বিক্ষোভের মুখে অমিত শাহ রোবট চালাবে গাড়ি! ভিপি নূরকে হত্যার হুমকি দেয়ার পর দুঃখ প্রকাশ টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৭ জন নিহত রাখাইনপ্রদেশে সেনাদের গুলিতে শিশুসহ ৫ রোহিঙ্গা নিহত ইস্কাটনে ভবনে আগুন: মায়ের পর চলে গেলেন রুশদির বাবাও চট্টগ্রামে একটি বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ২ দেশে প্রতিদিন যক্ষ্মায় মারা যায় ১৩০ জন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনাভাইরাস আতঙ্কে আয়ারল্যান্ডের স্কুল বন্ধ ঘোষণা বিশিষ্ট সুরকার সেলিম আশরাফ আর নেই মোদীকে অতিথি হিসেবে সর্বোচ্চ সম্মান দেওয়া হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী মধুর যত জাদুকরী গুণ চিপসের প্যাকেটের ভিতর খেলনা নয়: হাইকোর্ট আমার গাড়িতেও অস্ত্র আছে কী না আমি জানি না: শামীম ওসমান ফ্র্যান্সেও করোনা, অনিশ্চিত কান চলচ্চিত্র উৎসব উপনির্বাচন: গাইবান্ধা-৩ আসনে প্রতীক বরাদ্দ গুজব ও গণপিটুনি রোধে হাইকোর্টের ৫ নির্দেশনা