artk
বুধবার, ডিসেম্বার ১১, ২০১৯ ৮:১৫   |  ২৭,অগ্রহায়ণ ১৪২৬
মঙ্গলবার, মে ১৪, ২০১৯ ১০:৫৪

রোজায় শরীরে যে পরিবর্তন ঘটে

স্বাস্থ্য ও পুষ্টি ডেস্ক
media
১৬ হতে ৩০ দিন: এই সময়ে আপনার শরীর পুরোপুরি রোজার সঙ্গে মানিয়ে নেবে। শরীরের পাচনতন্ত্র, লিভার, কিডনি এবং ত্বকে এক ধরনের পরিবর্তনের ভেতর দিয়ে যাবে।

চলছে রমজান মাস। সারা পৃথিবী জুড়ে বহু মুসলমানরা এই সময় রোজা রাখেন। টানা একমাস সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত কিছু না খেয়ে থাকেন তারা। দীর্ঘ এক মাস রোজা থাকার ফলে শরীরেও বিশ কিছু পরিবর্তন আসে। রোজা রাখার সময় প্রথম কয়েক দিনই সবচেয়ে কষ্টের। শেষ বার খাবার খাওয়ার পর অন্তত আট ঘণ্টা পার না হওয়া পর্যন্ত কিন্তু শরীরে রোজার প্রভাব পড়ে না। আমরা যে খাবার খাই, পাকস্থলিতে তা পুরোপুরি হজম হতে এবং এর পুষ্টি শোষণ করতে অন্তত আট ঘণ্টা সময় নেয় শরীর। যখন এই খাদ্য পুরোপুরি হজম হয়ে যায়, তখন আমাদের শরীর যকৃৎ এবং মাংসপেশীতে সঞ্চিত গ্লুকোজ থেকে শক্তি শুষে নেয়ার চেষ্টা করে।

শরীর যখন এই চর্বি খরচ করতে শুরু করে, তা আমাদের ওজন কমাতে সাহায্য করে। এটি কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায় এবং ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমায়। তবে যেহেতু রক্তে শর্করার মাত্রা কমে যায়, সেই কারণে হয়তো কিছুটা দুর্বল এবং ঝিমুনি আসতে পারে। এ সময়টাতেই সবচেয়ে বেশি ক্ষিদে পায়। প্রথম কয়েকদিনের পর আপনার শরীর যখন রোজায় অভ্যস্ত হয়ে উঠছে, তখন শরীরে চর্বি গলে গিয়ে তা রক্তের শর্করায় পরিণত হয়। কিন্তু রোজার সময় দিনের বেলায় যেহেতু আপনি কিছুই খেতে বা পান করতে পারছেন না, তাই রোজা ভাঙার পর অবশ্যই আপনাকে সেটার ঘাটতি পূরণের জন্য প্রচুর পানি খেতে হবে। ইফতারে যথেষ্ট শক্তিদায়ক খাবার, যেমন কার্বোহাইড্রেট বা শর্করা এবং চর্বি খেতে হবে।

৮ হতে ১৫ দিন: এই পর্যায়ে এসে আপনি অনুভব করতে পারবেন যে আপনার শরীর-মন ভাল লাগছে, কারণ রোজার সঙ্গে আপনার শরীর মানিয়ে নিতে শুরু করেছে। চিকিৎসরা বলছেন, সাধারণত দৈনন্দিন জীবনে আমরা অনেক বেশি ক্যালরিযুক্ত খাবার খাই এবং এর ফলে আমাদের শরীর অন্য অনেক কাজ ঠিকমত করতে পারে না। কিন্তু রোজার সময় না খেয়ে থাকার কারণে শরীর অন্যান্য কাজের দিকে মনোযোগ দিতে পারে।

১৬ হতে ৩০ দিন: এই সময়ে আপনার শরীর পুরোপুরি রোজার সঙ্গে মানিয়ে নেবে। শরীরের পাচনতন্ত্র, লিভার, কিডনি এবং ত্বকে এক ধরনের পরিবর্তনের ভেতর দিয়ে যাবে। সেখানে থেকে সব দূষিত পদার্থ বেরিয়ে শরীর যেন শুদ্ধ হয়ে উঠবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ে সান্ধ্য কোর্স বন্ধে নির্দেশনা সাংবাদিকদের প্রশ্ন শুনেই ফর্ম হারান ইমরুল! ১৩৫ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ, চিশতিসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা সূচকের উত্থান লেনদেন মন্দা কেরানীগঞ্জে প্লাস্টিক কারখানায় আগুন, দগ্ধ ২৫ আ.লীগে দূষিত রক্ত রাখা হবে না: কাদের বঙ্গবন্ধু বিপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে চট্টগ্রামের ৫ উইকেটে জয় শাজাহান খান নিচসা নিয়ে মিথ্যাচার করেছেন: ইলিয়াস কাঞ্চন এফআর টাওয়ারের তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল ১৩ জানুয়ারি খালেদা জিয়ার জামিনে সরকার হস্তক্ষেপ করছে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী খালেদার মুক্তির দাবিতে কাফনের কাপড় পরে যুবদলের বিক্ষোভ বনানী থেকে চীনা নাগরিকের মরদেহ উদ্ধার মিঠুন তাণ্ডবে চট্টগ্রামকে ১৬৩ রানের লক্ষ্য দিল সিলেট সুপ্রিম কোর্টে যাচ্ছে খালেদা জিয়ার মেডিকেল রিপোর্ট পদ্মা সেতুতে বসল ১৮তম স্প্যান, দৃশ্যমান ২.৭ কিলোমিটার রাখাইন বিষয়ে অসম্পূর্ণ-বিভ্রান্তিকর চিত্র তুলে ধরেছে গাম্বিয়া: সু চি কুষ্ঠ বেশি দেখা যাচ্ছে এমন একলাকায় বিশেষ দৃষ্টি দিন: প্রধানমন্ত্রী খালেদার মেডিকেল রিপোর্ট পাল্টানোর চেষ্টা চলছে: ফখরুল বঙ্গবন্ধু বিপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিংয়ে চট্টগ্রাম টিপু রাজাকারের মৃত্যুদণ্ড দুই বাসের প্রতিযোগিতা, মা-শিশু নিহত আন্তর্জাতিক আদালতে বুধবার বক্তব্য দেবেন সু চি গভীর রাতে চবির ৫ হলে তল্লাশি চালিয়ে দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার চিরকুট লিখে অধ্যক্ষের কক্ষে কলেজছাত্রীর আত্মহত্যা ভ্যাট আদায়ে হয়রানি করলে আমাকে জানাবেন, ব্যবস্থা নেবো: অর্থমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুকযুদ্ধে পুলিশসহ নিহত ৬ মিয়ানমারের সেনাপ্রধানসহ ৪ কর্মকর্তার ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা মিয়ানমারকে হত্যাযজ্ঞ বন্ধ করতে বলুন: জাতিসংঘ আদালতে গাম্বিয়া ডাকসু ভিপি নুরের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা ‘খালেদার মুক্তির নামে নতুন করে নৈরাজ্য সৃষ্টির পায়তারা হচ্ছে’