artk
মঙ্গলবার, মে ১৪, ২০১৯ ১০:৫৪

রোজায় শরীরে যে পরিবর্তন ঘটে

স্বাস্থ্য ও পুষ্টি ডেস্ক
media
১৬ হতে ৩০ দিন: এই সময়ে আপনার শরীর পুরোপুরি রোজার সঙ্গে মানিয়ে নেবে। শরীরের পাচনতন্ত্র, লিভার, কিডনি এবং ত্বকে এক ধরনের পরিবর্তনের ভেতর দিয়ে যাবে।

চলছে রমজান মাস। সারা পৃথিবী জুড়ে বহু মুসলমানরা এই সময় রোজা রাখেন। টানা একমাস সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত কিছু না খেয়ে থাকেন তারা। দীর্ঘ এক মাস রোজা থাকার ফলে শরীরেও বিশ কিছু পরিবর্তন আসে। রোজা রাখার সময় প্রথম কয়েক দিনই সবচেয়ে কষ্টের। শেষ বার খাবার খাওয়ার পর অন্তত আট ঘণ্টা পার না হওয়া পর্যন্ত কিন্তু শরীরে রোজার প্রভাব পড়ে না। আমরা যে খাবার খাই, পাকস্থলিতে তা পুরোপুরি হজম হতে এবং এর পুষ্টি শোষণ করতে অন্তত আট ঘণ্টা সময় নেয় শরীর। যখন এই খাদ্য পুরোপুরি হজম হয়ে যায়, তখন আমাদের শরীর যকৃৎ এবং মাংসপেশীতে সঞ্চিত গ্লুকোজ থেকে শক্তি শুষে নেয়ার চেষ্টা করে।

শরীর যখন এই চর্বি খরচ করতে শুরু করে, তা আমাদের ওজন কমাতে সাহায্য করে। এটি কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায় এবং ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমায়। তবে যেহেতু রক্তে শর্করার মাত্রা কমে যায়, সেই কারণে হয়তো কিছুটা দুর্বল এবং ঝিমুনি আসতে পারে। এ সময়টাতেই সবচেয়ে বেশি ক্ষিদে পায়। প্রথম কয়েকদিনের পর আপনার শরীর যখন রোজায় অভ্যস্ত হয়ে উঠছে, তখন শরীরে চর্বি গলে গিয়ে তা রক্তের শর্করায় পরিণত হয়। কিন্তু রোজার সময় দিনের বেলায় যেহেতু আপনি কিছুই খেতে বা পান করতে পারছেন না, তাই রোজা ভাঙার পর অবশ্যই আপনাকে সেটার ঘাটতি পূরণের জন্য প্রচুর পানি খেতে হবে। ইফতারে যথেষ্ট শক্তিদায়ক খাবার, যেমন কার্বোহাইড্রেট বা শর্করা এবং চর্বি খেতে হবে।

৮ হতে ১৫ দিন: এই পর্যায়ে এসে আপনি অনুভব করতে পারবেন যে আপনার শরীর-মন ভাল লাগছে, কারণ রোজার সঙ্গে আপনার শরীর মানিয়ে নিতে শুরু করেছে। চিকিৎসরা বলছেন, সাধারণত দৈনন্দিন জীবনে আমরা অনেক বেশি ক্যালরিযুক্ত খাবার খাই এবং এর ফলে আমাদের শরীর অন্য অনেক কাজ ঠিকমত করতে পারে না। কিন্তু রোজার সময় না খেয়ে থাকার কারণে শরীর অন্যান্য কাজের দিকে মনোযোগ দিতে পারে।

১৬ হতে ৩০ দিন: এই সময়ে আপনার শরীর পুরোপুরি রোজার সঙ্গে মানিয়ে নেবে। শরীরের পাচনতন্ত্র, লিভার, কিডনি এবং ত্বকে এক ধরনের পরিবর্তনের ভেতর দিয়ে যাবে। সেখানে থেকে সব দূষিত পদার্থ বেরিয়ে শরীর যেন শুদ্ধ হয়ে উঠবে।

পলিন কাউসারের ‘আমি তো পাইনি মেঘের দেখা’ আইসিজের রায় বিশ্বের মানবাধিকারকর্মীদের জন্য মাইলফলক: পররাষ্ট্রমন্ত্রী হারপিক খেয়ে খুলনায় এমপি নারায়ণ চন্দ্র চন্দের পুত্রের আত্মহত্যা মার্কেন্টাইল ব্যাংকের চেয়ারম্যানসহ তিন জনের বিরুদ্ধে মামলার অনুমোদন নগরবাসী নিয়ে বিএনপির কোনো পরিকল্পনা নেই: তাপস জিরো টলারেন্স জনপ্রিয় হওয়ার একটি স্লোগান: এনবিআর চেয়ারম্যান আইপিও আসার আগে প্রতিবেদন করুন: সাংবাদিকদের ডিএসই পরিচালক অস্ট্রেলিয়ায় এয়ার ট্যাঙ্ক বিধ্বস্ত হয়ে নিহত ৩ বাংলা একাডেমি পুরস্কার পেলেন ১০ সাহিত্যিক ‘ছাত্রলীগকে দিয়ে দুঃশাসনের বিরুদ্ধে গণজাগরণ দাবিয়ে রাখা যাবে না’ তাবিথের বিরুদ্ধে সম্পদ গোপনের অভিযোগ ইসিতে নতুন শিক্ষাবর্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা সীমান্তে বিএসএফ’র গুলিতে ৪ বাংলাদেশি নিহত রাখাইনে সহিংসতা বন্ধে জরুরি ব্যবস্থা নেওয়ার আদেশ আইসিজের সৌদি আরব থেকে ফিরলেন আরও ২১৭ বাংলাদেশি রোহিঙ্গা ইস্যু আন্তর্জাতিকীকরণে প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে: জাতিসংঘ রাষ্ট্রদূত ভিপি নূরকে কেন পাসপোর্ট দেয়া হবে না: হাইকোর্ট ভোটের নিরপেক্ষ পরিবেশ নেই: ফখরুল রক্তকোষের সাহায্যে সারিয়ে তোলা যাবে ক্যান্সার চবিতে ছাত্রলীগের অবরোধ এক ধাপ উন্নতিতেও দুর্নীতি কমেনি: টিআইবি ফেনীর পৌর মেয়রকে দুদকে তলব ইনটেলের নতুন চেয়ারম্যান বাংলাদেশি-আমেরিকান ওমর ইশরাক রাজধানীতে নিজ পিস্তলের গুলিতে পুলিশ সদস্যের আত্মহত্যা বিচারক নিয়োগে নারী কোটা বাতিল এবার সোলেইমানির ঘনিষ্ঠ সহযোগীকে হত্যা পোড়া মবিলকে খাঁটি সরিষার তেল বলে বিক্রি যশোরে গণপিটুনিতে নিহত ১ শুক্রবার টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী করোনাভাইরাসে মৃত ১৭, উহানের যান চলাচল বন্ধ