artk
রোববার, মে ২৬, ২০১৯ ১২:১৩   |  ১২,জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

শেরপুর সংবাদদাতা

রোববার, মে ১২, ২০১৯ ১:১৩

শেরপুরের গারো পাহাড়ে জনপ্রিয় হচ্ছে মৌচাষ

media

শেরপুর জেলার গারো পাহাড় এলাকায় মৌচাষ দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। চাষকৃত মধু আহরণের মাধ্যমে অনেক পরিবার স্বচ্ছল জীবন যাপন করতে শুরু করেছেন।

মৌচাষের ফলে পরাগায়নের মাধ্যমে যেমন কৃষিতে ফলন বাড়ছে, তেমনি মধু বিক্রি করে অর্থনৈতিকভাবেও স্বাবলম্বী হচ্ছেন মৌচাষিরা।

সরেজমিন ঘুরে এবং জেলা কৃষি বিভাগ সূত্র জানা যায়, বর্তমানে শুধু সরিষার মৌসুমেই নয়, বরং সারাবছরই সীমান্তবর্তী শ্রীবরদী, ঝিনাইগাতী ও নালিতাবাড়ী উপজেলার গারো পাহাড় এলাকার গজারি বনে বাক্সে মৌমাছি পালন করে মধু চাষ করছেন তিনশতাধিক মৌচাষি।

যারা বৃহৎ পরিসরে মৌচাষ করছেন তাদের একশ থেকে আড়াইশ বাক্স রয়েছে। আবার অনেকে পারিবারিকভাবে দুই থেকে চারটি বাক্সের মাধ্যমে মৌচাষ করছেন।

মূলত, উন্নত জাতের মেলিফেরা ও সিরেনা- এই দুটি জাতের মৌমাছি দিয়ে এখানকার চাষিরা মধু সংগ্রহ করছেন। একশটি বাক্স থেকে বছরে ৪-৫ টন মধু সংগ্রহ করা যায়। খরচ বাদ দিয়ে ৬-৭ লাখ টাকা আয় হচ্ছে।

ঝিনাইগাতীর দুধনই গ্রামের মৌচাষি মো. আব্দুল হালিম জানান, তিনটি বাক্স দিয়ে ওই এলাকার প্রথম মৌচাষী হিসেবে তার যাত্রা শুরু হয়। সাতবছরে এসে এখন তার বাক্সের সংখ্যা দাড়িয়েছে দুইশ।

তিনি জানান, বছরে একশ বাক্সের জন্য খরচ প্রায় দুই লাখ ৫০ হাজার টাকা। খরচ বাদ দিয়ে তিনি বছরে ১০ থেকে ১১ লাখ টাকা আয় করেন।

তিনি আরও জানান, বাংলাদেশে চার প্রজাতির মৌমাছি রয়েছে। এপিস মেলিফেরা, এপিস সিরেনা, এপিস ডটসাটা, এপিস ফ্লোরিয়া। এর মধ্যে এপিস মেলিফেরা ও এপিস সিরেনা জাতের মৌমাছি বাক্সে পালন করে তারা মধু আহরণ করছেন।

আব্দুল হালিম বলেন, “নভেম্বরের ১৫ থেকে ২০ তারিখ থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত সরিষার মধু, জানুয়ারি থেকে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত কালোজিরা ও ধনিয়ার মধু, মার্চের শুরু থেকে লিচুর মধু এবং এপ্রিল মাস থেকে গারো পাহাড়ে বনের মধু আহরণ করা হয়।”

তিনি আরো জানান, ঝিনাইগাতী উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে প্রায় তিনশ মৌচাষি ২-৩টি করে বাক্সে এপিস সিরেনা মৌমাছি চাষের মাধ্যমে মধু উৎপাদন করে বাড়তি অর্থ উপার্জন করছেন।

বাকাকুড়ার পানবর এলাকা মৌচাষি কানুরাম কোচ জানান, শুরুতে তার ১৬টি বাক্স ছিল। গত পাঁচবছরে একশত বাক্স হয়েছে। গারো পাহাড়ের মধু পাইকারি ১৬ হাজার টাকা মন দরে বিক্রি হয় বলে তিনি উল্লেখ করেন।

শেরপুরের কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. আশরাফ উদ্দিন বলেন, “বিসিক ও বিভিন্ন উন্নয়ন সংস্থা মৌ চাষের প্রশিক্ষণ দিচ্ছে। ভ্রাম্যমাণ মৌচাষিরা সরিষার ফুল ছাড়াও কালোজিরা, লিচু ও বনের ফুল থেকে মধু আহরণে মনোযোগী হচ্ছেন। এতে করে এ এলাকায় মৌচাষ ও মধু আহরণ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

তেজগাও স্টেশনে রোদের মধ্যেই সারিতে টিকিট প্রত্যাশীরা নিউ লাইন ক্লোথিংসের লেনদেন শুরু সোমবার আ.লীগ নেতা হত্যা: বান্দরবানে অর্ধদিবস হরতাল পালিত দিনাজপুরে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা সিডনি যাচ্ছেন ফারুকী ও তিশা মোদি এবার কিভাবে অর্থনীতি সামলাবেন সিডনিতে সফররত বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তাদের সম্মানে ইফতার পার্টি অনুষ্ঠিত কেনিয়ার সমকামীদের জীবন যেভাবে কাটে কোলেস্টেরল কমাবে ১০ খাবার কাশ্মীরে নিহত ‘শীর্ষ জঙ্গি’ জাকির মুসা আসলে কে? অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে প্রস্তুতি ম্যাচে বাস্তবতা টের পেলো ইংলিশরা বিসিকের বর্ষা মেলা শুরু রোববার চকরিয়ায় ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে প্রাণ গেল শিক্ষার্থীর চট্টগ্রামে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় ৩ বন্ধু নিহত খালেদার চিকিৎসা নিয়ে মির্জা ফখরুলের বক্তব্য দায়িত্বহীন: নাসিম নাটোরে একসঙ্গে ৪ সন্তানের জন্ম দেশের ৯০ শতাংশ সম্পদ সুপার ধনীদের হাতে বিড়ির শুল্ক প্রত্যাহার চান শতাধিক সংসদ সদস্য ‘আ.লীগের বিরুদ্ধে শাজাহান খান’ বরিশাল নগরীতে দেশের প্রথম থ্রি ডি জেব্রা ক্রসিং এবার রংপুরে কৃষকের ধান কেটে দিলো পুলিশ বান্দরবানে হরতালের ডাক দিয়েছে স্থানীয় আ.লীগ শান্তিরক্ষা মিশনে সুদান যাচ্ছে বাংলাদেশের ১৪০ পুলিশ সদস্য ১ কেজি রসমালাইয়ে ২৫০ গ্রাম কম! চালক-হেলপারদের সন্দেহ হলে ডোপ টেস্ট করান: ডিএমপি কমিশনার বাটা ও ইনফিনিটিকে ১ লাখ টাকা জরিমানা গোররক্ষকদের হাতে নারীসহ ৩ মুসলিম মারধোরের শিকার মধ্যপ্রাচ্যে আরও দেড় হাজার সেনা পাঠানোর ঘোষণা ট্রাম্পের ‘কৃষি যন্ত্রপাতি কেনার টাকা খেয়ে ফেলছেন সরকার দলীয় লোকজন’