artk
মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বার ২৪, ২০১৯ ৪:০০   |  ৯,আশ্বিন ১৪২৬
শনিবার, মে ৪, ২০১৯ ১০:৩৯

বিএনপি এমপিদের শপথ এবং প্রাসঙ্গিক ভাবনা

মতিউর রহমান খান
media
২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত বাংলাদেশের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে (প্রশ্নবিদ্ধ) বিএনপি থেকে দলীয় মহাসচিবসহ সর্বমোট ৬ (ছয়) জন সদস্য নির্বাচিত হন।

সভ্যতার শুরু থেকে মানুষের মধ্যে অধিকার প্রতিষ্ঠার প্রবণতা পরিলক্ষিত হয়ে আসছে। সভ্যতার ক্রমবিকাশের ধারাবাহিকতায় বর্তমান পৃথিবীতে মানুষের মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় নানা মত ও নানা পথ বর্তমান। মতের ভিন্নতা থাকলেও প্রত্যেক আদর্শ বা মতবাদ জনকল্যাণে কাজ করে বলে দাবি করা হয়, এই প্রক্রিয়াকে বর্তমান সমাজ ব্যবস্থায় এবং রাষ্ট্রবিজ্ঞানের ভাষায় বলা হয় রাজনীতি। সাধারণত মানব কল্যাণের আকাঙ্ক্ষার বশবর্তী হয়ে সমাজের সবচেয়ে সচেতন অংশ রাজনীতিতে নিজেকে সংযুক্ত করে থাকেন এবং নিজের মতের সঙ্গে সহমত ধারণকৃত রাজনৈতিক দলে সম্পৃক্ত করে থাকেন। বাংলাদেশের প্রেক্ষিতেও সহজভাবে একই বলা যায়, ব্যতিক্রম অবশ্যই আছে।

২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত বাংলাদেশের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে (প্রশ্নবিদ্ধ) বিএনপি থেকে দলীয় মহাসচিবসহ সর্বমোট ৬ (ছয়) জন সদস্য নির্বাচিত হন। নির্বাচন উত্তরণের পর পরই বিএনপি দলীয় তড়িঘড়ি সিদ্ধান্ত ছিল কোন অবস্থাই জাতীয় সংসদে (একাদশ) যোগ না দেওয়ার ঘোষণা এবং যোগ না দেওয়ার পক্ষে তাবৎ দলীয় যুক্তি (অর্বাচীন) দেখিয়ে আসছেন। শপথ গ্রহণের সময়সীমা শেষ হওয়ার ঠিক একসপ্তাহ পূর্বে একজন দলীয় সদস্য (জাহিদুর রহমান) দলের সিদ্ধান্তের বাহিরে গিয়ে নিজ নির্বাচনী এলাকার জনগণের প্রতি সম্মান জানাতে (দাবি) একাদশ জাতীয় সংসদের নির্বাচিত সদস্য হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন। এর প্রতিক্রিয়ায়ও বিএনপি নির্বাচন পরবর্তী সময়ের মতই দ্রুত জাহিদুর রহমানকে দলের প্রাথমিক সদস্য পদ থেকে বহিষ্কারসহ নানা কটূক্তি, বিএনপি দলীয় নির্বাহী পরিষদের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে দেশ, জাতি এবং দলীয় কর্মী-সমর্থকদের কাছে একটি চরম বার্তা প্রেরণ করা হলো।

সবচাইতে ঘৃন্য প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য বাবু গয়েস্বর রায়, তিনি বলেছিলেন, ‘যে বা যারা (বিএনপি) দলীয় সিদ্ধান্তের বাহিরে গিয়ে একাদশ জাতীয় সংসদে শপথ গ্রহণপূর্বক যোগদান করে সে বা তারা থুতুর বন্যায় ভেসে যাবে।’ ঠিক তারই কয়েক দিনের মধ্যেই শপথ গ্রহণে সময়সীমা পূরণের একদিন পূর্বে ৪ (চার) জন নির্বাচিত দলীয় সদস্য কথিত দলীয় সিদ্ধান্তে শপথ গ্রহণপূর্বক জাতীয় সংসদে যোগদান করেন। দলের মহাসচিব জনাব ফখরুল ইসলাম সাহেব নিজ এবং দলীয় সিদ্ধান্তে (কৌশল) শপথ গ্রহণ থেকে বিরত থাকেন। একটি বৃহৎ রাজনৈতিক দলের মহাসচিব জাতীয় নির্বচনে বিজয়ী হওয়ার পরেও কী কারণে এবং কোন কৌশলের কারণে নিজে শপথ নিলেন না সেটা দলের অভ্যন্তরে স্পষ্টতা প্রশ্নবোধক হলেও জাতীর কাছে সম্পূর্ণ অস্পষ্ট।

রাজনৈতিক দলের রাজনীতির ক্ষেত্রে নানা কৌশল থাকে এবং বেশিরভাগ কৌশলই দায়িত্বের সাথে দলের এবং জনগণের কাছে স্পষ্ট করে থাকে। কিন্তু দলের মহাসচিব বিজয়ী হওয়ার পরও কোন কৌশল (কুট কৌশল) হিসেবে সংসদে যোগ না দিয়ে দলের অন্য সদস্যদের সংসদে পাঠালেন? অথচ আগের দিন পর্যন্ত স্থির সিদ্ধান্তে ছিলেন কোনভাবেই সংসদে যোগ না দেওয়ার। জনাব ফখরুল ইসলাম সংসদে যোগ না দেওয়ার অধিকার অবশ্যই রাখেন কিন্তু তিনি (ফখরুল সাহেব) যখন বিএনপির মতো একটি বৃহৎ রাজনৈতিক দলের মহাসচিব তখন দলীয় কর্মীসমর্থকসহ দেশের আপামর গণমানুষের কাছে তার সংসদে না যাওয়া এবং ৪ (চার) জন সদস্যকে সংসদে প্রেরণের এবং বহুল আলোচিত ইউ টার্ন বিষয়ে জবাবদিহিতার দাবি রাখে।

বিএনপি দলীয় সদস্যদের (১+৪) ৫ (পাঁচ) জন এবং জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ২ (দুই) জন সদস্যের একাদশ জাতীয় সংসদে শপথ গ্রহণপূর্বক যোগদানকে দেশের রাজনৈতিক দলসহ বেশিরভাগ মানুষ ধনাত্মক দৃষ্টিকোন থেকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। বেশিরভাগই মনে করেন এর মাধ্যমে বিএনপি একটি সঠিক সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছে। তাহলে প্রশ্ন দেখা দেয় বিএনপির মতো একটি দল তাদের বিজয়ী সদস্যদের সংসদে যোগদেওয়ার মতো একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে ৩ (তিন) মাস ধরে নেতিবাচক প্রচারণা (সিদ্ধান্ত) কেন করেছিল? আবার এমনকি বৈপ্লবিক পরিবর্তন ঘটল যে মাত্র ৬(ছয়) ঘণ্টার ব্যবধানে ৩ (তিন) মাস ধরে নানা মহলের আবেদন-নিবেদন সত্বেও যেখানে বিএনপির সর্বোচ্চ মহলের দাম্ভিক কটূক্তি প্রয়োগ বন্ধ হয়নি সেখান থেকে সরে এসে ৩৬০•(ডিগ্রি) ঘুরে কোন ধরনের ব্যাখ্যা প্রদান ছাড়াই (দেশের জনগণের/ভোটারদের প্রতি সম্মান না জানিয়ে) কেবলমাত্র দলের ভারপ্রাপ্ত প্রধানের ইচ্ছায় সংসদে যোগ দেওয়ার ঘোষণা বিএনপি দলের শুভাকাঙ্ক্ষিদের হতাশ করেছে বলে প্রতীয়মান।

দেশের আপামর জনগণ মনে করে বিএনপিকে মূলধারার রাজনীতিতে দায়িত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হলে অবশ্যই তাদের রাজনৈতিক অবস্থানে স্বচ্ছতা আনতে হবে, অন্যথায় রাজনীতির চোরাবালিতে বিএনপি একদিন হারিয়ে যাবে।

লেখক: সিডনি প্রবাসী।

পুত্র সন্তানের আশায় ৪৫ বছর গোসল বিনা মাদকসহ আটক হলেই বাড়িতে সাইনবোর্ড সিপিএলে খেলতে পারবেন সাকিব ভোলায় ১৩ ব্যারেল সয়াবিন তেল উদ্ধার সম্রাটের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা বগুড়ায় ভাগাড়ে বস্তাভর্তি টাকা ছাত্রলীগ নিষিদ্ধের দাবি জানালেন রিজভী সিলেটে মহাসমাবেশের অনুমতি পেলো বিএনপি কুমিল্লায় সাবেক যুবদলনেতা এখন যুবলীগের আহ্বায়ক শামীমের কাজ পাওয়ার বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে: গণপূর্তমন্ত্রী দুই আ.লীগ নেতা আটক, কোটি টাকা ও ৭২০ ভরি স্বর্ণ জব্দ নিরপেক্ষভাবে দিলে আমিও নোবেল পুরস্কারটা পেতাম: ট্রাম্প ফের মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রদল, ক্যাম্পাসে চাপা উত্তেজনা ফুটপাত দখলমুক্তে এবার অভিযানে নামছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি মাংসপেশিতে টান পড়লে কী করবেন পুলিশের তালিকায় দেড়শ ক্যাসিনো ও জুয়ার স্পট গুলশানের স্পা সেন্টারে অবৈধ দেহ ব্যবসা: দাবি পুলিশের পাবনায় বিদেশি রিভলবারসহ দুই ব্যক্তি গ্রেপ্তার আত্মগোপনে যুবলীগ নেতা সম্রাট চার ক্যাসিনো সরঞ্জাম আমদানিকারকের সন্ধান ফেনীর অপহৃত মৎস্য ব্যবসায়ী উদ্ধার, আটক ২ পাপিয়াকে গ্রেপ্তার করতে গিয়ে ফিরে এলো পুলিশ মঙ্গল গ্রহের মতো লাল ইন্দোনেশিয়ার আকাশ ফকিরহাটে ব্যবসায়ীকে গুলি করে হত্যা আফগানিস্তানে বিয়েবাড়িতে হামলা, নিহত ৪০ চট্টগ্রামে পুকুরে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীর শ্লীলতাহানি, শিক্ষক আটক সায়দাবাদে নিজ বাসই কেড়ে নিলো চালকের প্রাণ ভ্যাকসিন হিরো পুরস্কারে ভূষিত প্রধানমন্ত্রী সম্রাট-এমপি শাওনের ব্যাংক হিসাব খতিয়ে দেখছে ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট