artk
বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বার ১৯, ২০১৯ ৫:১৯   |  ৪,আশ্বিন ১৪২৬
মঙ্গলবার, এপ্রিল ৩০, ২০১৯ ৯:৪৯

এ টি এম শামসুজ্জামান লাইফ সাপোর্টে

বিনোদন ডেস্ক
media

দেশবরেণ্য অভিনয়শিল্পী এ টি এম শামসুজ্জামানকে লাইফ সাপোর্টে আছেন। রাজধানীর পুরান আসগর আলী হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন আছেন তিনি। 

দেশবরেণ্য অভিনয়শিল্পী এ টি এম শামসুজ্জামানকে লাইফ সাপোর্টে আছেন। রাজধানীর পুরান আসগর আলী হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন আছেন তিনি। 

শারীরিক অবস্থার অবণতি হলে মঙ্গলবার দুপুর থেকে তাকে লাইফ সাপোর্ট দেয়া হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অভিনয়শিল্পী সংঘের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব নাসিম।

আহসান হাবিব নাসিম বলেন, ‘আজ দুপুরের পর আমাদের সবার প্রিয় অভিনয়শিল্পীকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে। এর আগে একই হাসপাতালে ২৭ এপ্রিল এই বরেণ্য অভিনেতার শরীরে অস্ত্রোপচার করা হয়। তখন তাকে ৭২ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছিল। কিংবদন্তি এ অভিনেতাকে শুক্রবার রাতে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

৮৮ বছর বয়সী এ অভিনেতা অধ্যাপক রাকিব উদ্দিনের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাসেবা নিচ্ছেন।

এ টি এম শামসুজ্জামান বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা, পরিচালক, কাহিনিকার, চিত্রনাট্যকার, সংলাপকার ও গল্পকার। অভিনয়ের জন্য কয়েকবার পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। শিল্পকলায় অবদানের জন্য ২০১৫ সালে পেয়েছেন রাষ্ট্রীয় সর্বোচ্চ সম্মাননা একুশে পদক।

নোয়াখালীর দৌলতপুরে নানাবাড়িতে এ টি এম শামসুজ্জামান ১৯৪১ সালের ১০ সেপ্টেম্বর জন্মগ্রহণ করেন। গ্রামের বাড়ি লক্ষ্মীপুর জেলার ভোলাকোটের বড়বাড়ি আর ঢাকায় থাকতেন দেবেন্দ্রনাথ দাস লেনে। পড়াশোনা করেছেন ঢাকার পোগোজ স্কুল, কলেজিয়েট স্কুল, রাজশাহীর লোকনাথ হাইস্কুলে। তার বাবা নূরুজ্জামান ছিলেন নামকরা উকিল এবং শেরেবাংলা এ কে ফজলুল হকের সঙ্গে রাজনীতি করতেন। মা নুরুন্নেসা বেগম। পাঁচ ভাই ও তিন বোনের মধ্যে শামসুজ্জামান ছিলেন সবার বড়।

এ টি এম শামসুজ্জামানের চলচ্চিত্র জীবনের শুরু ১৯৬১ সালে পরিচালক উদয়ন চৌধুরীর ‘বিষকন্যা’ চলচ্চিত্রে সহকারী পরিচালক হিসেবে। প্রথম কাহিনি ও চিত্রনাট্য লিখেছেন ‘জলছবি’ চলচ্চিত্রের জন্য। ছবির পরিচালক ছিলেন নারায়ণ ঘোষ মিতা, এ ছবির মাধ্যমেই অভিনেতা ফারুকের চলচ্চিত্রে অভিষেক। এ পর্যন্ত শতাধিক চিত্রনাট্য ও কাহিনি লিখেছেন। প্রথম দিকে কৌতুক অভিনেতা হিসেবে চলচ্চিত্র জীবন শুরু করেন তিনি। অভিনেতা হিসেবে চলচ্চিত্র পর্দায় আগমন ১৯৬৫ সালের দিকে। ১৯৭৬ সালে চলচ্চিত্রকার আমজাদ হোসেনের ‘নয়নমণি’ চলচ্চিত্রে খলনায়কের চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে আলোচনায় আসেন তিনি। ১৯৮৭ সালে কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘দায়ী কে?’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান। রেদওয়ান রনি পরিচালিত ‘চোরাবালি’ ছবিতেও অভিনয় করে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে পার্শ্বচরিত্রে শ্রেষ্ঠ অভিনেতার সম্মাননা অর্জন করেন।

অবৈধ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত রাজনীতি-প্রশাসনের কাউকে ছাড় নয় নারায়ণগঞ্জে মা ও দুই মেয়েকে গলাকেটে হত্যা সফলভাবে ডেঙ্গু মোকাবেলা করেছি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী পুঁজিবাজারে ৭৫ শতাংশ কোম্পানির শেয়ার দর কমেছে প্রধানমন্ত্রী নিউইয়র্ক যাচ্ছেন শুক্রবার ‘ফেসবুকে স্ট্যাটাসের জন্য কোনো শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হবে না’ পাসপোর্ট অধিদপ্তরের নতুন ডিজি সাকিল আহমেদ আফগানিস্তানে দুই হামলায় নিহত ৪০ ক্যাসিনো মালিকরা যত প্রভাবশালীই হোক রেহাই নেই: ডিএমপি কমিশনার নারায়ণগঞ্জে ২ শিশুসহ নারীকে গলা কেটে হত্যা জাতিসংঘের অধিবেশনে যেতে ভিসা পাচ্ছেন না রুহানি কানাডায় নূর চৌধুরীর অবস্থান জানার আবেদন মঞ্জুর মাটির নিচে যুক্তরাষ্ট্রের ৬৩ কোটি ব্যারেল জরুরি তেলের ভাণ্ডার দুদুর বাড়িতে হামলা আলিয়াকে হাতছাড়া করতে চান না বানসালি নায়ক সালমান শাহর ৪৮তম জন্মবার্ষিকী দুর্ঘটনায় প্রেমিক নিহত, প্রেমিকার আত্মহত্যা কমলাপুরে যুবলীগ নেতা খালেদের টর্চার সেল ২৮ বছর পর সরাসরি ভোটে ছাত্রদলের নতুন নেতৃত্ব নির্বাচিত টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ রোহিঙ্গাসহ নিহত ৩ জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ ক্যাসিনো থেকে আটক: ৩১ জনকে ১ বছর ও বাকিদের ৬ মাসের কারাদণ্ড জাপানি মেয়েদের কাছে বাংলাদেশের অসহায় আত্মসমর্পণ কাঁপছে জিম্বাবুয়ে মির্জা আব্বাসের বাসায় হচ্ছে ছাত্রদলের কাউন্সিল মৃত্যুর আগে রিকশাচালককে রিফাতের শেষ কথা মাহমুদউল্লাহ ঝড়ে জিম্বাবুয়েকে ১৭৬ রানের টার্গেট দিলো টাইগাররা মানসম্পন্ন রিপোর্ট পুঁজিবাজারকে উচ্চস্তরে নিয়ে যাবে: ডিএসই পরিচালক যুবলীগ নেতা খালেদ মাহমুদ অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার ই-সিগারেট নিষিদ্ধ করলো ভারত সরকার