artk
রোববার, মে ২৬, ২০১৯ ১২:২২   |  ১১,জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
রোববার, এপ্রিল ২৮, ২০১৯ ৮:৫৪

ফিজিওথেরাপি কি এবং কোথায় করাবেন?

স্বাস্থ্য ও পুষ্টি ডেস্ক
media
তবে আশার ব্যপার হলো মানুষ এখন অনেক বেশি সচেতন, তাই তারা ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা ও পরামর্শ নেয়ার জন্য সিআরপি এর কোয়ালিফাইড ফিজিওথেরাপিস্ট এবং সিআরপিকেই বেছে নিচ্ছেন।

আধুনিক বিশ্বে মানুষ ক্রমশ নির্ভরশীল হচ্ছে যন্ত্রের ওপর। বিশেষ করে কম্পিউটারের ওপর। একনাগারে বসে থেকে কাজ করতে করতে বিভিন্ন ধরনের শারীরিক বাত ব্যথায় আক্রান্ত হচ্ছে। একজন ফিজিওথেরাপি চিকিৎসক স্বাধীনভাবে রোগীর বিভিন্ন স্বাস্থ্য সমস্যা (প্রধানত বাত-ব্যথা, আঘাত জনিত ব্যথা, প্যারালাইসিস ইত্যাদি) নির্ণয় সহকারে পরিপূর্ন চিকিৎসা সেবা প্রদান করে থাকেন।

ফিজিওথেরাপি'র সূচনা:
ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা নতুন কোন চিকিৎসা পদ্বতি নয়। প্রাচীন গ্রিসে হিপোক্রেটাস ম্যাসেজ ও ম্যানুয়াল থেরাপি দ্বারা ফিজিওথেরাপি চিকিৎসার সূচনা করেছিলেন। খ্রিস্টপূর্ব ৪৬০ সালে হেক্টর ফিজিওথেরাপি চিকিৎসার একটি শাখা ব্যবহার করতেন যাকে বর্তমানে হাইড্রোথেরাপি বলা হয়। তথ্য-উপাত্ত অনুসারে ১৮৯৪ সালে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসার বর্তমান ধারা অর্থাৎ ম্যানুয়াল থেরাপি, ম্যানিপুলেটিভ থেরাপি, এক্সার্সাইজ থেরাপি, হাইড্রোথেরাপি, ইলেক্ট্রোথেরাপি ইত্যাদি প্রবর্তন করা হয়। নিউজিল্যান্ডে ১৯১৩ এবং আমেরিকাতে ১৯১৪ সালে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা শুরু হয়।

বাংলাদেশে ফিজিওথেরাপি:
যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা ও পুনর্বাসনের জন্য ১৯৭২ সালে বিদেশি ফিজিওথেরাপিস্ট দ্বারা স্বাধীন বাংলাদেশে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসার সূচনা হয়। ফিজিওথেরাপি চিকিৎসার গুরুত্ব ও অনুধাবন করে ১৯৭৩ সালে আরআইএইচডি (বর্তমানে নিটোর) ফিজিওথেরাপি চিকিৎসার ওপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা অনুষদের (এমবিবিএস ও বিডিএস একই অনুষদের অধিভুক্ত) অধিনে স্মাতক ডিগ্রি চালু করা হয় । বর্তমানে নিটোর, সিআরপি, পিপলস্‌ ইউনিভার্সিটি, গণবিশ্ববিদ্যালয়, স্টেট্‌ কলেজ অব হেলথ্‌ সায়েন্সসহ ৭টি ইনস্টিটিউটে ফিজিওথেরাপি গ্রাজুয়েশন কোর্স চালু রয়েছে।

কেন এই ফিজিওথেরাপি :
আমরা যদি আমাদের শরীরের বিভিন্ন রোগের কথা চিন্তা করি তাহলে দেখতে পাব যে, শুধুমাত্র ওষুধ সব রোগের পরিপুর্ণ সুস্থতা দিতে পারে না। বিশেষ করে যে সব রোগের উৎস বিভিন্ন মেকানিক্যাল সমস্যা সেসব ক্ষেত্রে ওষুধের ভূমিকা তুলনামূলকভাবে কম। যেমন: বাত-ব্যথা, স্পোর্টস ইনজুরি, হাড় ক্ষয়জনিত রোগ, জয়েন্ট শক্ত হয়ে যাওয়া, স্ট্রোক, প্যারালাইসিস ইত্যাদি। তাহলে এসব রোগ হতে পরিপূর্ণ সুস্থতা লাভের উপায় কি?

মাল্টি ডিসিপ্লিনারি টিম:
বর্তমানে উন্নত বিশ্বে সব ধরনের শারীরিক সমস্যার পরিপূর্ণ সমাধানের লক্ষ্যে চিকিৎসা বিজ্ঞানে এক নতুন ধারার প্রবর্তন হয়েছে। যাকে বলা হয় মাল্টি ডিসিপ্লিনারি টিম। এই টিমে থাকেন সার্জন, মেডিসিন স্পেশালিস্ট, জেনারেল ফিজিশিয়ান, ফিজিওথেরাপিস্ট, অকুপেশনাল থেরাপিস্ট, নার্স, সোশ্যাল ওয়ার্কার। রোগীর শারীরিক সমস্যা দুর করে কার্যক্ষমতা ফিরিয়ে আনার ক্ষেত্রে ফিজিওথেরাপিস্টের ভূমিকা অপরিসীম।

ফিজিওথেরাপিস্ট কারা?
ফিজিওথেরাপিতে শুধুমাত্র ব্যাচেলর অথবা পোস্ট গ্রাজুয়েশন ডিগ্রিধারীকেই ফিজিওথেরাপিস্ট বলা যাবে। বর্তমানে আমাদের দেশে বিভিন্ন মানের ফিজিওথেরাপিস্ট আছেন।

কোয়ালিফাইড ফিজিওথেরাপিস্ট:
যিনি কমপক্ষে ফিজিওথেরাপি ব্যাচেলর ডিগ্রি (৪ বছর কোর্স + ১ বছর ইন্টার্নশিপ সম্পন্ন) নিয়েছেন। একজন কোয়ালিফাইড ফিজিওথেরাপিস্ট রোগীর রোগ নির্ণয় সহকারে চিকিৎসা সেবা দিতে পারবেন।

ডিপ্লোমা ফিজিওথেরাপিস্ট:
যিনি ফিজিওথেরাপি ডিপ্লোমা (৩ বছর কোর্স ) ডিগ্রি নিয়েছেন। একজন কোয়ালিফাইড ফিজিওথেরাপিস্টের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা সেবা দিতে পারবেন।

ফিজিওথেরাপি এসিস্ট্যান্ট
যিনি এসিস্ট্যান্ট ফিজিওথেরাপি (১ বছর) কোর্স করেছেন। একজন কোয়ালিফাইড ফিজিওথেরাপিস্টের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা সেবায় সহায়ককারী হিসেবে কাজ করতে পারবেন।

এছাড়াও অন্যান্য কিছু চিকিৎসক ফিজিথেরাপি চিকিৎসার কিছু পরামর্শ দেয়ার চেষ্টা করে থাকেন। এক্ষেত্রে কোয়ালিফাইড ফিজিওথেরাপিস্ট হতে চিকিৎসা ও পরামর্শ নেয়াই উত্তম।

যে সব ক্ষেত্রে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা অত্যাবশ্যক:
 বাত-ব্যথা
 কোমড় ব্যথা
 ঘাড় ব্যথা
 হাঁটু অথবা গোড়ালির ব্যথা
 আঘাতজনিত ব্যথা
 হাড় ক্ষয়জনিত রোগ
 জয়েন্ট শক্ত হয়ে যাওয়া
 স্ট্রোক
 প্যারালাইসিস জনিত সমস্যায়
 মুখ বেঁকে যাওয়া বা ফেসিয়াল পালসি
 বিভিন্ন ধরনের অপারেশন পরবর্তী সমস্যায়
 আইসিইউ (ওঈট) তে অবস্থানকারী রোগীর জন্য
 পা বাঁকা (ক্লাবফিট)
 গাইনোকলজিক্যাল সমস্যায়
 সেরিব্রাল পলসি (প্রতিবন্ধী শিশু)
 বার্ধক্যজনিত সমস্যা ইত্যাদি চিকিৎসার ক্ষেত্রে ও পুনর্বাসন সেবায় ফিজিওথেরাপির ভূমিকা অপরিসীম।

ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা পদ্ধতি:
একজন ফিজিওথেরাপিস্ট রোগীর রোগ বর্ণনা, ফিজিক্যাল টেস্ট, ফিজিওথেরাপিউটিক স্পেশাল টেস্ট, প্রয়োজন সাপেক্ষে বিভিন্ন রেডিওলজিক্যাল টেস্ট এবং প্যাথলজিক্যাল টেস্টের মাধ্যমে রোগ নির্ণয় বা ডায়াগনোসিস করে থাকেন। অতঃপর রোগীর সমস্যানুযায়ী চিকিৎসার পরিকল্পনা অথবা ট্রিটমেন্ট প্লান করেন এবং সেই অনুযায়ী নিন্মোক্ত পদ্ধতিতে ফিজিওথেরাপি সেবা প্রদান করে থাকেন।
-ম্যানুয়াল থেরাপি
-ম্যানিপুলেটিভ থেরাপি
-মোবিলাইজেশন
-মুভমেন্ট উইথ মোবিলাইজেশন
-থেরাপিউটিক এক্সারসাইজ
-ইনফিলট্রেশন বা জয়েন্ট ইনজেকশন
-পশ্চারাল এডুকেশন
-আরগোনমিক্যাল কনসালটেন্সি
-হাইড্রোথেরাপি
-ইলেকট্রোথেরাপি বা অত্যাধুনিক মেশিনের সাহায্যে চিকিৎসা (যেমন: TENS, IRR, Traction ইত্যাদি)। তবে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসাতে মেশিনের ব্যবহার খুবই নগন্য।
-কিছু কিছু ক্ষেত্রে ড্রাগ্‌স বা ওষুধ

কোথায় ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা সেবা পাওয়া যাবে?

বাংলাদেশে প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৯০ হাজার মানুষ ফিজিওথেরাপি চিকিৎসার ওপর নির্ভরশীল। কিন্তু এর মধ্যে শতকরা প্রায় ৯০ ভাগ সঠিক ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা পায় না এবং অপচিকিৎসার স্বীকার হন। (বিপিএ-২০০৯)

 সিআরপি এর শাখাসমূহ: ঢাকা: সাভার, মিরপুর-১৪, নবাবগঞ্জ, সিলেট: মৌলভিবাজার, চট্টগ্রাম: কালুরঘাট।
 এছাড়াও সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন হাসপাতালে (যেমন: স্কয়ার হসপিটাল, এপোলো হসপিটাল, ইউনাইটেড হসপিটাল ইত্যাদি), প্রাইভেট ক্লিনিক ও চেম্বারে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা সেবা পাওয়া যায়।
 তবে মানসম্পন্ন ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা ও পুনর্বাসন সেবার জন্য সিআরপি অন্যতম।

ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা একটি বিজ্ঞানসম্মত ও সুপ্রতিষ্ঠিত চিকিৎসা পদ্ধতি যা আন্তর্জাতিকভাবে সুপরিচিত। আমাদের দেশসহ বিভিন্ন দেশে ফিজিওথেরাপিস্টরা ফার্স্ট কন্ট্যাক প্রাকটিশনার হিসেবে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছেন। তবে আমারদের দেশে এই চিকিৎসা সেবাটি বিভিন্ন মহলের অপপ্রচার (ব্যায়াম ও স্যাক) ও অপব্যবহার (কোয়ালিফাইড ফিজিওথেরাপিস্ট ছাড়া অন্য কোন চিকিৎসক কর্তৃক ফিজিওথেরাপি পরামর্শ দেয়া) এর কারণে সাধারণ মানুষ সঠিক চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

তবে আশার ব্যপার হলো মানুষ এখন অনেক বেশি সচেতন, তাই তারা ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা ও পরামর্শ নেয়ার জন্য সিআরপি এর কোয়ালিফাইড ফিজিওথেরাপিস্ট এবং সিআরপিকেই বেছে নিচ্ছেন।

লেখক: ডা. মাহমুদুল হাসান আল ইমাম, ক্লিনিক্যাল ফিজিওথেরাপিস্ট, অর্থোপেডিক বিভাগ, সিআরপি, সাভার, ঢাকা।

খালেদার চিকিৎসা নিয়ে মির্জা ফখরুলের বক্তব্য দায়িত্বহীন: নাসিম নাটোরে একসঙ্গে ৪ সন্তানের জন্ম দেশের ৯০ শতাংশ সম্পদ সুপার ধনীদের হাতে বিড়ির শুল্ক প্রত্যাহার চান শতাধিক সংসদ সদস্য ‘আ.লীগের বিরুদ্ধে শাজাহান খান’ বরিশাল নগরীতে দেশের প্রথম থ্রি ডি জেব্রা ক্রসিং এবার রংপুরে কৃষকের ধান কেটে দিলো পুলিশ বান্দরবানে হরতালের ডাক দিয়েছে স্থানীয় আ.লীগ শান্তিরক্ষা মিশনে সুদান যাচ্ছে বাংলাদেশের ১৪০ পুলিশ সদস্য ১ কেজি রসমালাইয়ে ২৫০ গ্রাম কম! চালক-হেলপারদের সন্দেহ হলে ডোপ টেস্ট করান: ডিএমপি কমিশনার বাটা ও ইনফিনিটিকে ১ লাখ টাকা জরিমানা গোররক্ষকদের হাতে নারীসহ ৩ মুসলিম মারধোরের শিকার মধ্যপ্রাচ্যে আরও দেড় হাজার সেনা পাঠানোর ঘোষণা ট্রাম্পের ‘কৃষি যন্ত্রপাতি কেনার টাকা খেয়ে ফেলছেন সরকার দলীয় লোকজন’ বরুণ কুমার বিশ্বাসের ৫ কবিতা কাজী নজরুলের সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর অনেক মিল আছে: হানিফ ভারতের লোকসভায় মুসলিম এমপি বাড়লো ৪ জন প্রতি মণ ধানের দাম হওয়া উচিত ১২০০ টাকা: বারকাত অযোধ্যার সীতা রাম মন্দিরে ইফতার আয়োজন ভারতের নির্বাচন থেকে শিক্ষা নিন: ড. মোশাররফ মেট্রোরেলের পর চালু হচ্ছে বিদ্যুৎচালিত ট্রেন: প্রধানমন্ত্রী অবশেষে বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা অনুমোদনের সিদ্ধান্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রাক চাপায় অটোরিকশার ৩ যাত্রী নিহত বেহুলার বাসরঘরের দরজার ছিদ্রের কথা ভুলে গেছে আ.লীগ: রিজভী ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের কারণে বাক্‌স্বাধীনতা ব্যাহত হচ্ছে’ সেই হারের ক্ষত এখনও আমাকে কষ্ট দিচ্ছে গুড়ে টিকটিকি-তেলাপোকা-ফিটকিরি, ২ লাখ টাকা জরিমানা অভিজ্ঞদের নিয়ে ‘টিম ইউনাইটেড’ প্যানেল ৩১ কোটি টাকা আত্মসাৎ, বগুড়া যুবলীগের সাবেক নেতা গ্রেপ্তার