artk
রোববার, জুলাই ২১, ২০১৯ ১১:২০   |  ৬,শ্রাবণ ১৪২৬
মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৩, ২০১৯ ৮:৪৯

আদা কখন স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক জানেন?

স্বাস্থ্য ও পুষ্টি ডেস্ক
media
যদি আপনি ওজন বাড়ানোর চেষ্টা করে থাকেন তা হলে আদাযুক্ত খাবার বা আদা চা খাওয়া এড়িয়ে চলুন।

আদা উপকারী ভেষজ খাবার হিসেবেই আমরা জানি। মসলা হিসেবে বিভিন্ন খাদ্য উপাদানে আদা ব্যবহৃত হয়। এছাড়া ঠাণ্ডা লাগা, ব্যথা কমানো, হজমের সমস্যাও দূর করে আদা। তবে কখনো কখনো আদা আমাদের শরীরের জন্য ক্ষতিকর। আসুন জেনে নিন কোন কোন ক্ষেত্রে আদা ক্ষতিকারক হতে পারে-

রক্তজনিত রোগ:
আদা শরীরে রক্ত সঞ্চালন বাড়াতে সাহায্য করে। ওবেসিটি বা ডায়াবেটিসের সমস্যায় তাই আদা খুবই উপকারি। আবার হিমোফিলিয়ার সমস্যা থাকলে আদার এই গুণ নেগেটিভ প্রভাব ফেলতে পারে। হিমোফিলিয়া বংশগত ডিজঅর্ডার। হিমোফিলিয়ার ওষুধের সঙ্গে আদা খেলে তা ওষুধের প্রভাবে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে।

গর্ভাবস্থায়:
আদার মধ্যে এমন অনেক পদার্থ থাকে যা পেশীর স্বাস্থ্য ভালো রাখতে ও হজমে সাহায্য করে। গর্ভকালীন অবস্থায় বেশি আদা খেলে তা পেশীর সংকোচন ঘটিয়ে প্রিটার্ম লেবরের সম্ভাবনা থাকে। তাই অবশ্যই চিকিত্সকের পরামর্শ নিয়ে আদা খান।

বিশেষ ওষুধ সেবনের সময়:
হাইপারটেনসন বা ডায়াবেটিসের ওষুধ খেলে আদা খাওয়া এড়িয়ে চলাই ভাল। আদা রক্তকে পাতলা করে রক্তচাপ কমিয়ে দেয়। তাই সাধারণভাবে আদা খাওয়া উপকারী হলেও অ্যান্টি-কোয়াগুলান্ট, বিটা-ব্লকারস বা ইনসুলিনের মতো ওষুধের প্রভাব কমিয়ে দিতে পারে আদা।

কম ওজন:
যদি আপনি ওজন বাড়ানোর চেষ্টা করে থাকেন তা হলে আদাযুক্ত খাবার বা আদা চা খাওয়া এড়িয়ে চলুন। আদার মধ্যে প্রচুর পরিমাণ ফাইবার থাকে। যা পাকস্থলীর পিএইচ মাত্রা বাড়িয়ে দিয়ে পৌষ্টিকতন্ত্রকে উত্তেজিত করে তোলে।

পুলিশ যা বলতে বলেছে আদালতে তাই বলেছি, বাবাকে মিন্নি সিনেমায় চুমু খেয়ে বিয়ে ভাঙলো নায়িকার! (ভিডিও) নোয়াখালীতে এক ব্যক্তিকে ধরে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা এমপি হওয়ার পর ‘অসুরে’ প্রথম নুসরাত নিম্ন রক্তচাপকে স্বাভাবিক করুন খুব সহজে উদ্ভিদের বৃদ্ধিতে বাধার সৃষ্টি করছে সিগারেটের গোড়া যে ১৪ আত্মমূল্যায়নের প্রশ্নে বদলে যেতে পারে জীবন সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবিতে মস্কোতে হাজারো নাগরিকের বিক্ষোভ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মঞ্চেই মারা গেলেন ভারতীয় কৌতুকাভিনেতা নিজের পিস্তলের গুলিতে আহত ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতা কুমিল্লায় টেলিভিশন জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত ছেলেধরা সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা: ৫শ জনের বিরুদ্ধে মামলা পঞ্চগড়ে মাছ ধরতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই ছেলেসহ বাবার মৃত্যু হজক্যাম্পের আশপাশের রেস্তোরাঁয় পচা খাবার, জরিমানা ২৬ লাখ জনগণকে নিয়ে গণঅভ্যুত্থান ঘটাতে হবে: ফখরুল ট্রাম্পের দাবি নাকচ, এই সেই ইরানি ড্রোন! জামালপুরে বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত শ্বশুরকে হত্যা করে পলাতক জামাই ইনডোর এশিয়া কাপ হকিতে বাংলাদেশ সপ্তম আইনি লড়াইয়ে খালেদার মুক্তি নেই: গয়েশ্বর গণপিটুনির সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে কাদেরের মাথায় হাত বুলিয়ে রওশনের আশীর্বাদ ‘স্থানীয় হিন্দু-মুসলমানদের হয়রানি করছেন প্রিয়া সাহা’ দিল্লির ৩ বারের মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিত মারা গেছেন মিন্নিকে আইনি সহায়তা দিতে বরগুনায় আসকের ৪ আইনজীবী প্রিয়া সাহার অভিযোগ নিয়ে যা বলল জামায়াত সাংবাদিক পাইলেই গুলি করে মারব: ছাত্রলীগ নেতা ইঞ্জিনে পাখির বাসা, দেড়মাস বসে থাকলেন ট্রাকচালক উইন্ডিজ সফরে না গিয়ে সেনাবাহিনীতে সময় দেবেন ধোনি ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনি, প্রাণ গেলো ৩ জনের