artk
সোমবার, জুন ১৭, ২০১৯ ৭:৫৯   |  ৩,আষাঢ় ১৪২৬

স্টাফ রিপোর্টার

সোমবার, এপ্রিল ১৫, ২০১৯ ৮:৪৬

এনবিআর সার্ভার হ্যাকিংয়ে দুদকের অনুসন্ধান

media

অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর সোমবার দুদক পরিচালক মো. ইউসুফের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি টিম গঠন করা হয়। কমিশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রনব কুমার ভট্টাচার্য নিউজবাংলাদেশকে নিশ্চিত করেছেন।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সার্ভারে অনুপ্রবেশ বা হ্যাকিং করে পণ্য পাচারে মাধ্যমে রাজস্ব ফাঁকি দেওয়ার অভিযোগ অনুসন্ধানে নেমেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর সোমবার দুদক পরিচালক মো. ইউসুফের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি টিম গঠন করা হয়। কমিশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রনব কুমার ভট্টাচার্য নিউজবাংলাদেশকে নিশ্চিত করেছেন।

প্রনব কুমার ভট্টাচার্য বলেন, ঘটনাটি অনুসন্ধান করে পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহন করতে অনুসন্ধান কমিটিকে নির্দেশ দিয়েছে কমিশন। দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের ওপর ভিত্তি করে এ অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত হয়।

দুদক সূত্র জানায়, কাস্টমস কর্মকর্তাদের সরকারি আইডি ও পাসওয়ার্ড চুরি করে পণ্য পাচারে জড়িত সংঘবদ্ধ একটি চক্র তিন বছরের বেশি সময় ধরে এনবিআরের সার্ভারের অবৈধ ব্যবহার করেছে। এসময়ে চক্রটি শত শত কোটি টাকার পণ্য চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ছাড় করে নিয়ে গেছে।

চক্রটি ওই সার্ভারে ২০১৬ সাল থেকে তিন হাজার ৭৭৭ বার লগইন করেছে বলে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের এক তদন্তে ধরা পড়েছে। এতে সহায়তা করেছেন চট্টগ্রাম কাস্টমস বন্দর কর্তৃপক্ষ এবং পণ্য পরিবহনে নিয়োজিত বেসরকারি সংস্থার কিছু অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারী।

গত ২৮ মার্চ এক সংবাদ সম্মেলনে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. সহিদুল ইসলাম দাবি করেন সার্ভারে অনুপ্রবেশ বা হ্যাকিংয়ের সঙ্গে জড়িত চক্রটি চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদের সংশ্লিষ্টতার নথিপত্র সংগ্রহ করা হচ্ছে। মামলা হয়েছে। 

আমাদের পক্ষ থেকে সংস্থাটির অতিরিক্ত মহাপরিচালক আবদুল হাকিমের নেতৃত্বে একটি টিম কাজ করেছেন।

শুল্ক গোয়েন্দা সূত্রে জানা যায়, দুজন কাস্টমস কর্মকর্তার চুরি করা আইডি ও পাসওয়ার্ড ব্যবহার করা হয়েছে একজন কাস্টমস কর্মকর্তার চিঠি জাল করে। এর মধ্যে দুটি চালানে দুই ধরনের জালিয়াতি হয়েছে। এ ঘটনায় দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। 

বিদেশ থেকে পণ্য আমদানি করার পর তার শুল্কায়ন থেকে শুরু করে সবকিছুই হয় এনবিআরের ‘অ্যাসাইকুডা ওয়ার্ল্ড সিস্টেম’ নামের একটি সফটওয়্যারের মাধ্যমে। যে দুই কর্মকর্তার নামে আইডি ও পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে পণ্য খালাস করা হয়েছে, তারা হলেন- ডি এ এম মহিবুল ইসলাম ও ফজলুল হক। 

মহিবুল ইসলাম ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে চাকরি শেষে অবসরে যান। ২০১৩ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেড় বছর তিনি চট্টগ্রাম বন্দরে ছিলেন। আর ফজলুল হক ২০০৯ সাল থেকে মধ্যে এক বছর বাদে ২০১৫ সালের আগস্ট মাস পর্যন্ত প্রায় ছয় বছর চট্টগ্রাম বন্দরে কর্মরত ছিলেন।

যৌন সুবিধা নেওয়া পুরুষের সংখ্যা অগণিত: ম্যাডোনা বিকেলে উইন্ডিজের বিপক্ষে সেমির স্বপ্ন বাঁচানোর লড়াই এবারও ভারতের কাছে হারলো পাকিস্তান শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস চক্রের ২ হোতা গ্রেপ্তার বিএনপি যোগ দিলেও সংসদ বৈধতা পাবে না: হারুনুর রশিদ আ. লীগ এমপি গোলাম মোস্তফার বিরুদ্ধে হিন্দু সম্পত্তি দখলের মামলা এজলাসেই মারা গেলেন বিচারক ফাইবার অপটিক ক্যাবলের রেগুলেটরি ডিউটি প্রত্যাহার চায় আইএসপিএবি সেই ১২ ডিসিকে বদলির আদেশ বাতিল এতো দিন কোথায় ছিলেন? পাচারকালে গাছসহ সরকারি গাড়ি আটকে দিলো স্থানীয়রা বাজেটে দুর্নীতির টাকা সাদা করার সুযোগ রাখা হয়েছে: মওদুদ সেনাবাহিনীকে জনগণের পাশে থাকতে হবে: প্রধানমন্ত্রী বাজেট ঘোষণার পরবর্তী সূচকে পতন ভোক্তার অভিযোগ শুনতে হটলাইন চালুর নির্দেশ সংসদকে অবৈধ বলবেন, আবার সুযোগ-সুবিধা নেবেন: মতিয়া চৌধুরী প্রতি উপজেলায় কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হবে: শিক্ষামন্ত্রী রাজধানীতে বস্তির সংখ্যা ৩৩৩৯টি ভারতে তীব্র দাবদাহে একদিনেই ৭০ জনের মৃত্যু যুগ্ম সচিব হলেন ১৩৬ জন ‘পুঁজিবাজারের জন্য আরো প্রণোদনা জরুরি’ খালেদা জিয়ার জামিন চলতি সপ্তাহেই: মওদুদ ওসি মোয়াজ্জেম গ্রেপ্তার ডিআইজি মিজান কি দুদকের চেয়ে বেশি শক্তিশালী: হাইকোর্ট গায়ে হলুদে বাবাকে জড়িয়ে নুসরাতের কান্না নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানের নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা কারাগারের আড়াইশো বছরের নাস্তার মেন্যুতে পরিবর্তন নিউজিল্যান্ডে ৭.২ মাত্রার ভূমিকম্প অনুভূত গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের সাথে ওয়েজবোর্ড বিষয়ে বৈঠকে ওবায়দুল কাদের বাজেটের প্রস্তাবগুলো বাস্তবায়ন হলে পুঁজিবাজার ইতিবাচক হবে