artk
সোমবার, ডিসেম্বার ৯, ২০১৯ ৬:২৭   |  ২৫,অগ্রহায়ণ ১৪২৬

দেবদুলাল মুন্না

শনিবার, মার্চ ১৬, ২০১৯ ১২:০৪

ক্রাইস্টচার্চের খুনী: ভয়ংকর মনস্তত্ব

media

ক্রাইস্টচার্চের হামলাকারী ব্রেন্টন টারেন্ট

স্কটিশ বংশোদ্ভূত অস্ট্রেলিয়ায় জন্ম নেয়া জঙ্গি খুনি ব্রেন্টন ট্যারেন্ট ২০১৭ সালে ইউরোপের কয়েকটা দেশ ভ্রমণ করে এবং সেই সময়ে স্টকহোম, প্যারিসে কয়েকটা মুসলিম জঙ্গিদের অ্যাটাক হয়।

প্যারিসে জনবহুল একটা রাস্তায় ট্রাক চালিয়ে দিয়ে কয়েকজনকে হত্যার ঘটনা মনে আছে নিশ্চয়ই, সেখানে একটা বাচ্চা মারা পড়েছিল, যার কিনা সেদিনই ছিল জন্মদিন। বাচ্চাটি হেঁটে হেঁটে তার মায়ের কাছে যাচ্ছিল ঠিক ওই সময় সন্ত্রাসী ট্রাক দিয়ে তাকে পিষে ফেলে! এই ঘটনার সময় সে আশেপাশে অবস্থান করছিল এবং মূলত এই ঘটনা তার মনে দাগ কাটে বলে সে বুঝিয়েছে। তখন সে দেশে ফিরে গোটা বিশ্বে চলা সাদাদের উপর বিভিন্ন জঙ্গি আক্রমণ বিষয়ে গবেষণা করতে শুরু করে এবং দেখে এই জঙ্গিদের মূল টার্গেট সাদারা। তার গবেষণায় উঠে আসে অস্ত্রধারী জঙ্গিদের থেকেও অস্ত্রহীন মুসলিম মাইগ্রেন্টরা বেশি ভয়ংকর, কেন না অস্ত্রধারী মুসলিম সন্ত্রাসীদের মোকাবেলা করা সহজ এবং বৈধ, এবং এদেরকে মোকাবেলা করার মতো অস্ত্র সৈন্য অর্থ ক্ষমতা সাদাদের আছে, কিন্তু অস্ত্রহীন মাইগ্রেন্ট অসাদাদের দমন করার কোনো পথ নেই। 

আর এই অস্ত্রহীন মাইগ্রেন্ট পপুলেশন দিনদিন প্রচণ্ড আকারে বেড়ে যাচ্ছে ইউরোপ আমেরিকাসহ অস্ট্রেলিয়া নিউজিল্যান্ডের মতো দেশগুলোতে। সে স্থানীয় এবং মাইগ্রেন্টদের জন্মহার গবেষণা করে দেখতে পায় স্থানীয় সাদাদের জন্মহার যেখানে কমে যাচ্ছে সেখানে মাইগ্রেন্টদের জন্মহার বেড়ে যাচ্ছে ফলে সংখ্যাতেও তারা বেড়ে যাচ্ছে, এভাবে চললে আগামী ৫০ কিংবা ১০০ বছরের ভেতর স্থানীয় জনসংখ্যা থেকে মাইগ্রেন্টদের সংখ্যা বেশি হয়ে যাবে এবং তারাই তাদের দেশ, কালচার সব দখল করে পরিবর্তন করে ফেলবে, ফলে স্থানীয়রা পড়বে অস্তিত্ব সংকটে।

মূলত এটার আশংকা থেকে এবং মাইগ্রেন্টদের দ্বারা আগামীর এই অস্তিত্ব সংকট ঠেকাতে সে চেয়েছে অবৈধ তুমুল একটা ঝড় তুলতে এবং সেই ঝড়ের পরিকল্পনা হলো নিউজিল্যান্ডে এই নৃশংস বর্বর হত্যাযজ্ঞ ঘটানো। এই হত্যাযজ্ঞের ফলে গোটা ইউরোপ আমেরিকা অস্ট্রেলিয়া নিউজিল্যান্ডের স্থানীয় অধিবাসীদের ভেতর একটা পরিবর্তন আসবে এবং তারা আগামী নিয়ে ভাবতে শুরু করবে। তার ধারণা আগামীতে অস্তিত্ব সংকটে পড়তে যাওয়া স্থানীয় সাদাদের এই সংকট সমাধানে লিগ্যাল কোনো পথ নেই, ফলে সন্ত্রাসী কার্যকলাপের পথ হতে পারে মোক্ষম উপায় বলে তার ভেতর ধারণা জন্ম নিয়েছে। এটা ছাড়াও সাদাদের এই পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য সে কয়েকটি পরামর্শ দিয়েছে যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য অন্যতম একটি হলো- সে তিনজন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে হত্যার পরামর্শ দিয়েছে। জার্মান চ্যান্সেলর এঞ্জেলো মার্কেল, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এর্দোয়ান এবং লন্ডনের মেয়র সাদিক খান।

তার ধারণা, এই তিন ব্যক্তি সাদাদের ভূমিতে মাইগ্রেন্টদের শক্ত অবস্থান তৈরিতে সবথেকে বড় ভূমিকা পালন করছে।

হত্যাকাণ্ড ঘটানোর আগে এই জঙ্গি খুনি নিজস্ব ওয়েবসাইটে এই আক্রমণ এবং গোটা বিষয় নিয়ে বিশাল আকারে ম্যানিফেস্টো প্রকাশ করেছে, গত দেড় ঘণ্টা যাবৎ সেই ম্যানিফেস্টো পড়ার পরে মূল বিষয়টি সংক্ষিপ্ত আকারে ওপরে তুলে ধরলাম। মূলত তার ম্যানিফেস্টো হতে যাচ্ছে বিশ্বজুড়ে একটি গবেষণার বিষয় এবং গোটা বিশ্বে জঙ্গিদের দ্বারা হত্যা হওয়া সাধারণ সাদা নিরীহ জনতার সাথে সাথে এখন যুক্ত হচ্ছে সাদা জঙ্গিদের হাতে নিহত হওয়া মাইগ্রেন্ট জনতার যোগ। তার এই ম্যানিফেস্টো এবং আজকের এই হত্যাযজ্ঞ তার মতো বর্ণবিদ্বেষী আরো সাদা তরুণ যুবকদের এমন খুনি জঙ্গি হতে অনুপ্রেরণা যোগাবে এটা নিশ্চয়তা দিয়ে বলা যায়। কারণ ইউরোপ আমেরিকা অস্ট্রেলিয়া নিউজিল্যান্ডসহ সকল সাদাদের ভেতর একটা বিরাট অংশ মনে মনে প্রচণ্ডভাবে মুসলিম বিদ্বেষ ধারণ করে। মুসলিমদের ভেতর তরুণ যুবকদের যেভাবে উৎসাহ দিয়ে জঙ্গি খুনি হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে ঠিক একইভাবে এই বর্ণবিদ্বেষী খুনির প্রকাশিত ম্যানিফেস্টো এবং হত্যাযজ্ঞ ঘটাতে সফল হবার ঘটনা এই দুটি মিলিয়ে সাদা তরুণ যুবকদের ভেতর অনেককেই সাধারণ নিরীহ মুসলিম হত্যাতে উৎসাহ যোগাবে!

মোট কথা মুসলিম এবং অমুসলিম এবার দুপক্ষ থেকেই জঙ্গিদের হাতে সাধারণ নিরীহ মানুষের মারা পড়ার শংকা জন্মালো!

আজকের এই হত্যাযজ্ঞের প্রভাব অনেক অনেক গভীর পর্যায়ে পৌঁছে যাবে...

নিউজিল্যান্ডে অগ্নুৎপাতে ৫ পর্যটকের মৃত্যু ‘বিশ্ববিদ্যালয়কে ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করছেন এক শ্রেণির শিক্ষক’ আন্তর্জাতিক ক্রীড়াঙ্গনে ৪ বছর নিষিদ্ধ রাশিয়া বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন সানা ম্যারিন ৬৪ শতাংশ কোম্পানির শেয়ার দর কমেছে সেই শ্রীলঙ্কাকেই হারিয়ে স্বর্ণ জয় সৌম্য-শান্তদের কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে অবৈধ স্থাপনা ধ্বংসে কেন নির্দেশ নয় মন্ত্রিসভায় ভালো না করলে দায়িত্ব পরিবর্তন করা হবে: কাদের চলতি মাসেই পুরান ঢাকায় চক্রাকার বাস মিস ইউনিভার্স হলেন আফ্রিকান সুন্দরী ইতিবাচক মনোভাবে প্রজন্ম হবে দুর্নীতিবিরোধী: ড. আনিসুজ্জামান মারা গেলেন বরেণ্য অধ্যাপক অজয় রায় ধর্ষণ মামলা: যুক্তরাষ্ট্র আ.লীগের সেই নেতাকে বহিষ্কার দেশে সর্বক্ষেত্রে দুর্নীতি শুরু হয়েছে: ফখরুল সামাজিক-রাজনৈতিক দুর্নীতিই বড় দুর্নীতি: মির্জা ফখরুল শ্রমজীবীরা নয়, কর্মকর্তারাই দুর্নীতি করে: আমু পাঁচ বিশিষ্ট নারীকে বেগম রোকেয়া পদক তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকে অনেক ভালোবাসি: সালমান খান আর্চারির চার ইভেন্টের সব ক’টিতে সোনা জিতল বাংলাদেশ শত্রুতা করলে সবই হারাবেন কিম: ট্রাম্প অবৈধ সম্পদ নিয়ে কাউকে শান্তিতে থাকতে দেয়া হবে না: দুদক চেয়ারম্যান কায়রো থেকে রাজধানী সরাচ্ছে মিশর মিয়ানমার থেকে এলো আরও ৪১ হাজার মণ পেঁয়াজ এসএ গেমসে সোনা জিতে কাঁদলেন সোমা সমাবর্তনে উৎসবমুখর ঢাবি ক্যাম্পাস প্রেমিকার বাবা-মাকে দায়ি করে স্টামফোর্ড ছাত্রের আত্মহত্যা বাসে যৌন হয়রানি: যাত্রীকে ৬ মাসের কারাদণ্ড উগ্রবাদবিরোধী জাতীয় সম্মেলন শুরু শাজাহান খানের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে নিসচার বিবৃতি উগান্ডায় বৃষ্টি ও ভূমিধসে ১৬ জনের প্রাণহানী