artk
বৃহস্পতিবার, মার্চ ২১, ২০১৯ ২:৫২   |  ৭,চৈত্র ১৪২৫
শনিবার, মার্চ ৯, ২০১৯ ৯:২৬

বেদখল হয়ে গেছে শিল্পীদের জমি

বিনোদন ডেস্ক
media

কিন্তু ৩৪ বছর পেরিয়ে গেলেও সে আশা পূরণ হয়নি তার। এমনকি শেষ বয়সে এসে নিজের কেনা জমিটুকুও হারাতে বসেছেন।

কবি ও গীতিকার মনসুর জোয়ার্দারের বয়স এখন ৮৫ বছর। ১৯৮৫ সালে বেতার বাংলার সম্পাদক হিসেবে কর্মরত অবস্থায় রাজধানীর পূর্ব বাড্ডার আরশি নগর এলাকায় চার কাঠা জমি ক্রয় করেন। শেষ বয়সে ক্রয়কৃত জমিতে বাড়ি নির্মাণ করে বসবাস করবেন-এমনটাই আশা ছিল তার। কিন্তু ৩৪ বছর পেরিয়ে গেলেও সে আশা পূরণ হয়নি তার। এমনকি শেষ বয়সে এসে নিজের কেনা জমিটুকুও হারাতে বসেছেন।

মনসুর জোয়ার্দার বলেন, আমার বয়স এখন ৮৫ বছর। চাকরি জীবনে অনেক কষ্ট করে আরশি নগরে জমি ক্রয় করেছি। কেনা জমিতে বাড়ি করে বসবাস করার ইচ্ছা ছিল। কিন্তু ওই জমি ভূমি দস্যুরা কৃত্রিমভাবে জলাবদ্ধ করে রেখেছে। বছর জুড়ে সেখানে মাছ চাষ করে। সে কারণে আমরা জমিতে মাটি ভরাট করতে পারছি না। জমিতে কোনো আবাসন করতে না পেরে খুবই অসহায় বোধ করছি। বর্তমানে আমার পরিবার নানা দুর্ভোগের মধ্যে দিনাতিপাত করছে। আমি প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, তিনি যেন ভূমি দস্যুদের কবল থেকে আমাদের রক্ষা করেন।

একুশে পদক প্রাপ্ত বিশিষ্ট সঙ্গীতশিল্পী খুরশিদ আলম ২০ বছর আগে আবাসন করার স্বপ্নে ওই এলাকায় ৫ কাঠা জমি ক্রয় করেন। তার জমিরও একই চিত্র। খুরশিদ আলম বলেন, আমি যখন জমি ক্রয় করি, তখন ফসল উত্পন্ন হতো। এখন সেই জমি সারা বছর পানির নিচে থাকে। প্রভাবশালীরা দখল করে মাছ চাষ করছে। স্বপ্ন ছিল, ওই জমিতে বাড়ি করে বসবাস করবো। আমি এখনো এলিফেন্ট রোডে ভাড়া বাসায় অতিশয় কষ্ট করে বসবাস করছি। ৭৪ বছর বয়সে এসে স্বপ্ন ভঙ্গ হওয়ায় আমি খুব অসহায় বোধ করছি। দখলদারদের হাত থেকে জমি দখলমুক্ত করার জন্য সরকারের সহযোগিতা কামনা করছি।

অন্যদিকে সঙ্গীতশিল্পী মিনা বড়ুয়া একই এলাকায় ৬ কাঠা জমি কিনেছেন ৩০ বছর আগে। তার স্বামী শিল্পী ধর্মদর্শি বড়ুয়া বলেন, একটা শক্তিশালী গ্রুপ জোরপূর্বক আমাদের জমিতে মাছের চাষ করছে। আমরা এর থেকে মুক্তি চাই।

একই এলাকায় ৬ কাঠা জমি ক্রয় করেন বাংলাদেশ বৌদ্ধ ফেডারেশনের নির্বাহী সভাপতি অশোক বড়ুয়া। তার জমিতেও প্রভাবশালীরা মাছ চাষ করছে। তিনি বলেন, আগে আমার জমিতে ধান চাষ হতো। এখন সবসময় পানির নিচে থাকে। স্থানীয় বাসিন্দা হাসান উদ্দিনের ছেলে আলমগীর, জাহাঙ্গীর এবং তাদের ক্যাডার বাহিনী সরকারি সুতিভোলা খালে বাঁধ দিয়ে এই জমি বারোমাস জলাবদ্ধ করে মাছের চাষ করছে। একই জায়গায় সঙ্গীতশিল্পী ফরিদা পারভিনের ৩০ শতাংশ এবং নাট্যশিল্পী খায়রুল আলম সবুজের ৬ কাঠা জমি রয়েছে। তাও প্রভাবশালীদের দখলে রয়েছে বলে জানা গেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আশির দশকের শেষে আরশি নগর শিল্পী সমিতির সদস্যরা বসবাসের জন্য পর্যায়ক্রমে পূর্ব বাড্ডায় জমি ক্রয় করেন। পরবর্তীতে ইস্টার্ন হাউজিংয়ের সঙ্গে শিল্পী সমিতির একটি সমঝোতা চুক্তির মাধ্যমে কয়েকজন শিল্পী তাদের জমি ভরাট করতে পারলেও রাজউকের অনুমোদন না পাওয়ায় ইস্টার্ন হাউজিং অন্যদের জমি ভরাট করতে পারেনি। পরবর্তীতে স্থানীয় একটি প্রভাবশালী গ্রুপ শিল্পীদের জমিসহ আরশি নগর ভূমি মালিক সমবায় সমিতি, গুলশান নগর বহুমুখী উন্নয়ন সমিতি, পূর্ব বাড্ডা বহুমুখী সমবায় সমিতির প্লট মালিকদের জমি ও সাঁতারকুল এলাকার সাধারণ মানুষের প্রায় ৫শ’ বিঘা (১ হাজার প্লট) জমি দখল করে। জমির পানি যাতে সরতে না পারে সেজন্য তারা বাড্ডার সুতিভোলা খালের বিভিন্ন জায়গায় বালুর বস্তা ফেলে বাঁধ নির্মাণ করেছে। এই বাঁধের কারণে তৈরি হয়েছে কৃত্রিম জলাবদ্ধতা। আর সেই জলায় সারা বছর জুড়ে মাছের চাষ করছে দখলদাররা। জমি বছরের পর বছর পানির নিচে থাকছে। ফলে ভূমি মালিকরা নিজ জমি ভরাট কিংবা কোনো ধরনের উন্নয়নমূলক কাজ করতে পারছেন না। এমনকি জমি ভরাট করতে গেলে প্লট মালিকদের নানা রকম ভয়-ভীতি ও লাঞ্ছিত করার অভিযোগ রয়েছে দখলদারদের বিরুদ্ধে।

আরশি নগর ভূমি মালিক সমবায় সমিতির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আউয়াল বলেন, আমরা এই জলবদ্ধতা নিরসনের জন্য ঢাকা ওয়াসা, বাড্ডা থানা, পরিবেশ অধিদপ্তর ও গুলশান জোনের ডিসি বরাবর আবেদন করেছি। কিন্তু আজ পর্যন্ত কোনো সুরাহা হয়নি। আমাদের জমি ও সরকারি খাল দখল করে মাছ চাষ করায় আমরা হাসান উদ্দিন, আলমগীর, বিপুল, রুমি, মানিক এর বিরুদ্ধে বাড্ডা থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছি। অথচ এখনও কোনো প্রতিকার পাইনি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রাজধানীর বাড্ডা থানার আফতাব নগর দিয়ে বয়ে গেছে সুতিভোলা খাল। হাতিরঝিলের রামপুরা এলাকা থেকে বেরিয়ে খালের একটি শাখা আফতাব নগরের ভেতর দিয়ে প্রবাহিত হয়ে সাঁতারকুল গিয়েছে। সেখান থেকে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা হয়ে বালু নদীতে মিশেছে খালটি। এই খালের বিভিন্ন স্থানে বাঁধ দিয়ে স্বাভাবিক পানি প্রবাহ বন্ধ করে খাল ও আশেপাশের আরশি নগর ভূমি মালিক সমবায় সমিতি, গুলশান নগর বহুমুখী উন্নয়ন সমিতি, পূর্ব বাড্ডা বহুমুখী সমবায় সমিতি এবং সাঁতারকুল এলাকার প্রায় ১ হাজার প্লট মালিকের জমি জলাবদ্ধ করে চলছে মাছের চাষ। আফতাব নগর সেতুর ঠিক উত্তর পাশে মাটির বাঁধ। তার ঠিক ২০০ মিটার উত্তর পাশে বালুর স্তূপ। এই বাঁধ আর স্তূপে আটকে গেছে সুতিভোলার স্বাভাবিক পানি প্রবাহ। রামপুরা-বনশ্রী খালে মিলিত হতে পারছে না সুতিভোলা খালের পানি। অন্যদিকে বাড্ডা শাহাবুদ্দিন মোড় হতে রূপনগর বরাবর খালের ওপর বাঁশ ও জাল দিয়ে প্রথমে একটি বাঁধ, এর ঠিক ৫০ মিটার উত্তরে আরেকটি বালুর বস্তার বাঁধ দিয়ে পানির স্বাভাবিক প্রবাহ বন্ধ করা হয়েছে।

গুলশান নগর বহুমুখী উন্নয়ন সমিতির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম বলেন, প্রায় ৩০ বছর ধরে ভূমি মালিকরা এখানে জমি ক্রয় করেন। কয়েকশ’ লোকের জমি এখানে আছে। অথচ কেউ কোনো উন্নয়নমূলক কাজ করতে পারছেন না। এজন্য আমরা স্বদেশ প্রোপারটিজ এর বিরুদ্ধে ২০০৫ সালে মামলা করি এবং পরবর্তীতে ২০১৮ সাথে উচ্চ আদালত থেকে আমাদের অনুকূলে রায় আসে। এরপরও আমাদের জমিতে ভরাট ও উন্নয়ন কাজ করতে বাঁধা দেয়া হচ্ছে। স্থানীয় ওই প্রভাবশালী গ্রুপ আমাদের জমি অন্যায়ভাবে বেদখল করে রাখছে। আমরা জমিতে ভরাট করতে গেলেই তাদের নিরাপত্তা বাহিনী দ্বারা বাঁধা প্রদান করা হয়। হুমকি-ধামকি এবং লাঞ্ছনা করা হয়। এজন্য কেউ জমি ভরাট এবং ঘর নির্মাণ করতে পারে না। আমরা এখন সরকারের সহযোগিতা কামনা করছি।

আলমগীরের বাবা হাসান উদ্দিন বলেন, আমাদের সঙ্গে ভূমি মালিকদের কোনো সমস্যা নাই। মূল সমস্যা স্বদেশ প্রোপারটিজ এর সঙ্গে।

জলবায়ু নীতিমালায় বিশ্বের ১০০ প্রভাবশালী ব্যক্তির তালিকায় ড. সালেমুল হক আন্দোলনকারীদের একাংশের মানববন্ধন খুলনায় ট্রলিচাপায় শিশু নিহত ২৫ ক্যাজুয়াল কর্মচারীকে স্থায়ী করলো বিমান এবার ঝরলো শিক্ষকের প্রাণ বৃহস্পতিবার শুরু হচ্ছে ‘শিশু একাডেমি বইমেলা’ জাতীয় দল থেকে ছিটকে গেলেন ডি’মারিয়া এবার সিরাজগঞ্জে কলেজছাত্রের প্রাণ নিলো ঘাতক চালক সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু সম্মেলন কেন্দ্রে গাইবেন সোমলতা ১৯৬টি শো নিয়ে কানাডায় যাত্রা করছে ‘যদি একদিন’ পদ্মাসেতুর নবম স্প্যান বসছে বৃহস্পতিবার কুমিল্লায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ১১ মামলার আসামি নিহত দক্ষিণ কোরিয়ায় হোটেলে পর্নোগ্রাফির শিকার ১৬শ মানুষ আধা স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র নিষিদ্ধ করতে যাচ্ছে নিউজিল্যান্ড চুয়াডাঙ্গা স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার পর স্বামীর আত্মহত্যা এক নারীকে ধাক্কা দিয়ে বাস নিয়ে পালাচ্ছিলেন চালক ‘গাঁজা না খেয়ে গাড়ি চালাতে পারেন না সু-প্রভাত চালক সিরাজুল’ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে বিএনপির ‘পূর্ণ সমর্থন’ আন্দোলনকারী দুই ছাত্রীর ওপর গাড়ি উঠিয়ে দিলেন জবি শিক্ষক সুপ্রভাত ও জাবালে নূরের সব বাস নিষিদ্ধ প্রাথমিকে তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষা থাকছে না একই বিমানের পাইলট মা-মেয়ে, ছবি ভাইরাল বেনাপোলে ভারতীয় ট্রাকসহ পণ্য জব্দ বিশ্বের সবচেয়ে সস্তা শহর কোনটি? সন্তানকে চৌকিদার বানাতে চাইলে মোদিকে ভোট দিন আর্ন্তজাতিক বাণিজ্যে বেসরকারি ব্যাংকের আধিপত্য খালেদা জিয়ার মানহানির দুই মামলায় অভিযোগ গঠন ১৫ এপ্রিল ত্রিশে পা দিলেন তামিম ইকবাল, আইসিসির শুভেচ্ছা ৩৭তম বিসিএসে নিয়োগ পেলেন ১ হাজার ২২১ জন আইসিসি বিশ্বকাপে কাউকে ভয় করবে না আফগানরা: রশিদ খান