artk
সোমবার, আগষ্ট ১৯, ২০১৯ ১২:১৮   |  ৩,ভাদ্র ১৪২৬
সোমবার, ফেব্রুয়ারী ১৮, ২০১৯ ১:০৯

শ্রীনগরে বেচাকেনা হচ্ছে আশ্রায় প্রকল্পের ঘর!

লৌহজং (মুন্সীগঞ্জ) সংবাদদাতা
media

আমি এখানকার সভাপতি হওয়ার আগেও ঘর বিক্রি হয়েছে; এখনো হয়। তার ঘরটিও তার নামেই বরাদ্দ হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন

শ্রীনগরে সরকারের দেয়া হতদরিদ্রদের আশ্রায় প্রকল্পের ঘর বেচাকেনা করা হচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

উপজেলার রাঢ়ীখাল ইউনিয়নের নতুন বাজার (কলাগাইচ্ছা) এলাকায় সরকারি অর্থায়নে ওই প্রকল্পে তৈরি করা হয় হতদরিদ্রদের জন্য ৪৫টি ঘর। বসবাসের জন্য পরিপূর্ণভাবে শোবার ও রান্না করাসহ সব ধরনের সুযোগ সুবিধা রয়েছে ওই টিনসেট ঘরগুলোতে।

খবর পাওয়া গেছে, আশ্রায় প্রকল্পের সভাপতি নুরু শেখ ও সদস্য আজিবরসহ একটি সিন্ডিকেটের কারসাজিতে টাকার বিনিময় ঘর কেনাবেচা করা হয়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, আরিয়ালবিলের পাশে আশ্রয় প্রকল্প কেন্দ্রটিতে বসবাস করছেন বিভিন্ন পরিবার। লক্ষ্য করা গেছে ঘরের মধ্যে শোবার ও রান্না করার সুযোগ সুবিধা রয়েছে। তার পরেও বসবাসকারীর অনেক পরিবার সরকারি আইন লঙ্ঘন করে ওই ঘরের সিস্টেম ভঙ্গ করে বাহিরে তাদের ইচ্ছে মতো জায়গা দখল করে আবাসন তৈরি করছেন।

এসময় আশ্রয় প্রকল্পে বসবাসকারী আজিবর শেখ, নারগিস বেগম, শাহিন শেখ, কল্পনা বেগম মনখুশিসহ অনেকেই বলেন, ঘরের ভিতর থেকে রান্না করার রুম ভেঙে বাহিরে নিয়ে এসেছি। এখানকার সবাই তা করছেন।

পাশেই নতুন টিনের ঘর তোলার বিষয়ে জানতে চাইলে আজিবর বলেন, থাকার সমস্যা তাই ঘর তুলেছি।

টাকার বিনিময় এখানে ঘর বিক্রির বিষয়ে তিনি জানান, ৮০ থেকে ১ লাখ টাকার বিনিময়ে এখানে ঘর বিক্রি করা হয়েছে।
আজিবর আরো বলেন, কমিটির সভাপতি মো. নুরু শেখও ঘর ক্রয়সূত্রে এখানে বসবাস করছেন। তার মতো অনেকেই এখানে ঘর কেনাবেচা করেছেন।

অনুসন্ধানে জানা যায়, স্থানীয় ভূমি অফিসের কর্মকর্তারা সরেজমিনে গিয়ে আশ্রয় প্রকল্পের ঘরের মধ্যে কোন প্রকার সিস্টেম ভেঙে আলাদাভাবে স্থাপনা করতে নিষেধ করলেও মানা হচ্ছে না।

উপজেলার সদর ইউনিয়নের হরপাড়ার আজিবর ওই আশ্রয় প্রকল্পের এফ-৫ রুমে বসবাস করছেন। তিনি এর বাহিরেও আলাদাভাবে টিনের ঘর, রান্না ঘর তুলেছেন।

স্থানীয়দের অভিযোগ নূরু ও আজিবর ঘর কেনাবেচায় সহযোগিতা করে সুবিধা ভোগ করেন। এমন আনেকেই রয়েছেন কেন্দ্রের সিস্টেম ভঙ্গ করছেন। এছাড়া কেউ কেউ ভাড়া দিয়েছেন। বিষয়টি সংশ্লিষ্টদের নজরে নেয়া উচিত।

প্রকল্পের সভাপতি মো. নূরু শেখের কাছে জানতে চাইলে ঘর কেনাবেচার বিষয়ে সত্যতা স্বীকার করে তিনি বলেন, আমি এখানকার সভাপতি হওয়ার আগেও ঘর বিক্রি হয়েছে; এখনো হয়। তার ঘরটিও তার নামেই বরাদ্দ হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাহিদুল ইসলাম বলেন, প্রকল্পের ঘর কেনাবেচা করার কোন সুযোগ নেই। যদি কেউ না থাকতে চায় তাহলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের জানাবে। পুনরায় অন্য কোন হতদরিদ্র পরিবাকে সেখানে থাকার ব্যবস্থা করা হবে। যদি কেউ প্রকল্পের ঘর কেনাবেচা করে থাকে তাহলে তদন্ত সাপেক্ষে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পেয়ারা পাড়তে গিয়ে স্কুলছাত্রীর করুণ মৃত্যু খুলনার সঙ্গে রেল যোগাযোগ বন্ধ ভারত পরমাণু যুদ্ধ বাধাতে পারে: ইমরান খান রাঙামাটিতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে সেনা সদস্য নিহত এক মাসেই তিনবার বাড়লো সোনার দাম ছাত্রদলের নেতেৃত্বে আসতে মনোনয়নপত্র কিনলেন ১০৮ জন ‘অদৃশ্য খুঁটির’ জোরে ৪ লাখ টাকার গাছ ৮০ হাজার টাকায় বিক্রি সিপিডির ভবনে এডিস মশার লার্ভা, ২০ হাজার টাকা জরিমানা শোক দিবসের আলোচনা সভা করবেন ড. কামাল চামড়া শিল্পে আপাতত সমস্যা নেই: শিল্পমন্ত্রী শোক দিবসের অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগের রক্তদান সোমবার রাতে ঢাকায় আসছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অতিরিক্ত ডিআইজি হলেন পুলিশের ২০ কর্মকর্তা এএসপির মেয়ের টেবিলের ওপর আঘাত হানলো কনস্টেবলের গুলি চামড়া বিক্রি বন্ধের সিদ্ধান্তে নেই আড়তদাররা দেশে এলো কলকাতায় নিহত ২ বাংলাদেশির মরদেহ ২৪ ঘণ্টায় ১৭০৬ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে সাকিবের সঙ্গে আমার দ্বন্দ্ব নেই: মাহমুদউল্লাহ বিমানবন্দরে ১০ হাজার ইয়াবাসহ আটক ১ ধর্ষণ মামলায় খুলনার কর কমিশনারের ছেলে রিমান্ডে মওদুদ আহমদ এ যুগের শয়তান: কৃষিমন্ত্রী রেকর্ড গড়া টেস্টে কিউইদের ৬ উইকেটে হারালো শ্রীলঙ্কা জারিন খানকে বিয়ে করছেন সালমান! এফআর টাওয়ার দুর্নীতি মামলায় তাসভির গ্রেফতার লঙ্কানদের কাছে টাইগারদের লজ্জার হার আলোকচিত্রী শহিদুলের বিরুদ্ধে মামলায় হাই কোর্টের আদেশ বহাল নিজেই তৈরি করুন পছন্দের নেইল পলিশ ভেড়ার লোভে স্ত্রীকে দিলেন প্রেমিকের হাতে! ঈদ পরবর্তী কার্যদিবসে সূচকে উত্থান খাবার দিতে দেরি করায় ওয়েটারকে গুলি করে হত্যা