artk
সোমবার, ফেব্রুয়ারী ১৮, ২০১৯ ৯:৪৭   |  ৬,ফাল্গুন ১৪২৫

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

রোববার, ফেব্রুয়ারী ১০, ২০১৯ ১১:২৭

শ্বেত ভাল্লুকের তাণ্ডবে রাশিয়ার দ্বীপে জরুরি অবস্থা জারি

media

রাশিয়ার একটি প্রত্যন্ত রাজ্যে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। কারণ গত কয়েকদিন ধরে অসংখ্য শ্বেত ভাল্লুক মানব বসতিগুলোয় এসে হাজির হচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় কর্মকর্তারা।

নোভায়া যেমালয়া দ্বীপের কর্মকর্তারা বলছেন, এলাকাটিতে কয়েক হাজার মানুষ বসবাস করে। কিন্তু ভাল্লুকগুলো আসতে শুরু করার পর অনেক মানুষ হামলা শিকার হয়েছে।

আবাসিক এবং সরকারি ভবনগুলোয় প্রবেশ করছে এসব ভাল্লুক।

জলবায়ু পরিবর্তনের সবচেয়ে শিকার প্রাণিগুলোর মধ্যে রয়েছে শ্বেত ভাল্লুক। খাবারের খোজে প্রায়শ এসব ভাল্লুক লোকালয়ে হানা দেয়।

এসব ভাল্লুককে বিলুপ্তপ্রায় প্রাণি বলে তালিকাভুক্ত করেছে রাশিয়া। তাই শ্বেত ভাল্লুক শিকার করা নিষিদ্ধ।

কর্মকর্তারা বলছেন, পুলিশ যেসব পেট্রোল বা সিগন্যাল ব্যবহার করে এসব ভাল্লুক তাড়িয়ে থাকে, তা থেকে ভীতি কেটে গেছে এসব প্রাণির। ফলে এগুলো সামলাতে আরো কঠোর ব্যবস্থা নেয়া দরকার।

তারা বলছেন, ভাল্লুকগুলোকে তাড়ানোর অন্যসব পন্থা যদি ব্যর্থ হয়, তাহলে তাদের সামনে একটি পদ্ধতিই খোলা থাকবে। তা হচ্ছে, এগুলোর মধ্য থেকে একটি অংশকে মেরে ফেলা।

ওই এলাকার মূল বসতি যেখানে, সেই বেলুশা গুবায় ৫২টি ভাল্লুক দেখা গেছে। তাদের মধ্যে ছয় থেকে দশটি সবসময়েই সেখানে থাকছে।

স্থানীয় প্রশাসনের প্রধান ভিগানশা মুসিন বলেছেন, পাঁচটির বেশি ভাল্লুক রয়েছে স্থানীয় সামরিক ঘাঁটিতে, যেখানে বিমান বাহিনী এবং বিমান প্রতিরক্ষার বাহিনী মোতায়েন রয়েছে।

“১৯৮৩ সাল থেকে নোভায়া যেমালয়াতে আমি রয়েছে, কিন্তু এভাবে এতো বেশি মাত্রায় ভাল্লুকদের আসার ঘটনা দেখিনি।”

তার সহকারী জানিয়েছেন, এ কারণে বসতিগুলোর স্বাভাবিক জীবনযাপন ব্যাহত হয়ে পড়েছে।

“মানুষজন ভীত হয়ে পড়েছে, তাদের বাড়িঘর ছাড়তেও ভয় পাচ্ছে। তাদের প্রতিদিনকার রুটিন ভেঙে পড়েছে, অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের স্কুল বা কিন্ডারগার্টেনে পাঠাচ্ছেন না।” বলছেন স্থানীয় প্রশাসনের ডেপুটি অ্যালেক্সান্ডার মিনায়েভ।

জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে উত্তর মেরুর সাগরের বরফ গলে কমে যাচ্ছে, ফলে মেরু অঞ্চলে থাকা শ্বেত ভাল্লুকগুলো তাদের শিকারের অভ্যাস পাল্টাতে বাধ্য হচ্ছে। তারা বরফের রাজ্য থেকে বেরিয়ে ভূমিতে এসে খাবার খুঁজতে বাধ্য হচ্ছে, যা মানুষের সঙ্গে তাদের সাংঘর্ষিক পরিস্থিতির সম্ভাবনা তৈরি করছে।

২০১৬ সালে পাঁচজন রাশিয়ান বৈজ্ঞানিক ট্রোনোয় দ্বীপের একটি প্রত্যন্ত আবহাওয়া স্টেশনে বেশ কয়েকদিন শ্বেত ভাল্লুক দ্বারা অবরুদ্ধ থাকতে বাধ্য হয়েছিলেন। বিবিসি।

বদিকে দিয়ে মাদক আর শাজাহান খানকে দিয়ে সড়ক নিয়ন্ত্রণ কতটা সম্ভব! বদিকে দিয়ে মাদক আর শাজাহান খানকে দিয়ে সড়ক নিয়ন্ত্রণ কতটা সম্ভব! বদিকে দিয়ে মাদক আর শাজাহান খানকে দিয়ে সড়ক নিয়ন্ত্রণ কতটা সম্ভব! ব্রিটিশ লেবার পার্টি থেকে সাত এমপির পদত্যাগ প্রয়োজন আছে বলেই নতুন তিন ব্যাংকের অনুমোদন: অর্থমন্ত্রী অপব্যবহারে রোধে বুক বিল্ডিংয়ে আসছে পরিবর্তন ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে ১২ দলের খেলোয়াড় তালিকা নতুন টি-টোয়েন্টি লিগ শুরু হচ্ছে ২৫ ফেব্রুয়ারি শুরু ব্যবসায়ী বাদল ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে দুদকের চার্জশিট তিন ফর্মেটেই ইংল্যান্ডকে হোয়াইটওয়াশ করলো বাংলাদেশের যুবারা রমেকের সবগুলো অগ্নিনির্বাপক যন্ত্রই মেয়াদোত্তীর্ণ তিন ফর্মেটেই ইংল্যান্ডকে হোয়াইটওয়াশ করলো বাংলাদেশের যুবারা প্রকল্পের মেয়াদ শেষেও গাড়ি জমা দেননি পরিচালক ‘বাড়ি পাচ্ছেন মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যরা’ ১ কোটি ৭২ লাখ টাকার ভ্যাট ফাঁকি উদঘাটন বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ জামায়াত নিষিদ্ধের জন্য যেকোনো সময়ই উপযুক্ত: কাদের ঢাকা সিটি নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নিরপেক্ষ থাকার নির্দেশ বহরমপুরে গুলিতে মৃত্যুর ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত: বিজিবি প্রধান রাশিয়া থেকে ৫০ হাজার টন গম কিনবে সরকার আইনজীবী সুমনের ফেসবুক লাইভে সরানো হলো ডাস্টবিন না.গঞ্জে সংঘর্ষ: বর্তমান, সাবেক কাউন্সিলরসহ গ্রেপ্তার ২২ লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে দুদকের অভিযোগপত্র ডিএসবির অফিস সহকারীর কয়েক কোটি টাকার সম্পদ! নতুন এমপিদের শপথের বৈধতা নিয়ে করা রিট খারিজ অভিজিৎ হত্যার চার বছর পর চার্জশিট চূড়ান্ত শ্রীনগরে বেচাকেনা হচ্ছে আশ্রায় প্রকল্পের ঘর! এবার বলিউডে সঞ্জয় কাপুরের মেয়ে শানায়া বিশ্বকাপের পরই অবসরে যাচ্ছেন গেইল টেকনাফে ২০ হাজার পিস ইয়াবা জব্দ