artk
বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ২১, ২০১৯ ৪:৫৮   |  ৯,ফাল্গুন ১৪২৫

বাগেরহাট সংবাদদাতা

শুক্রবার, জানুয়ারি ২৫, ২০১৯ ১০:৩৩

কাঙ্ক্ষিত সেবা দিতে পারছে না মোংলা সাইলো কর্তৃপক্ষ

media

গুদাম সংলগ্ন মোংলা থেকে জয়মণি পর্যন্ত ২২ কিলোমিটার সড়কটির বেহাল দশা, তার ওপর মোংলা নদীতে নেই কোনো ব্রিজ। ফলে খাদ্য গুদাম থেকে সড়ক পথে খাদ্য পন্য সরবরাহ করতে না পারায় এর সুফল ভোগ করতে পারছে না দক্ষিণাঞ্চলবাসী। 

বাগেরহাটের মোংলা নদীর ওপর ব্রিজ আর রাস্তা ভালো না থাকার কারণে কাঙ্ক্ষিত সেবা দিতে পারছে না মোংলা সাইলো কর্তৃপক্ষ। প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ বরাদ্দের নির্মাণ এই মেগা প্রকল্প তিন বছরেও শুরু হয়নি। জেলার মোংলা উপজেলার চিলা ইউনিয়নের জয়মণির ঘোল এলাকায় দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম আধুনিক খাদ্য গুদাম থেকে সড়কপথে এখনো খাদ্য সরবরাহ শুরু করতে পারেনি। প্রযুক্তিগত ত্রুটি, জেটি সংলগ্ন নদীর নব্যতা সংকট, রোডিং এর ধীরগতি, উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থাসহ নানা ত্রুটির কারণে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ এই সাইলোর সুবিধা ভোগ করতে পারছে না।

গুদাম সংলগ্ন মোংলা থেকে জয়মণি পর্যন্ত ২২ কিলোমিটার সড়কটির বেহাল দশা, তার ওপর মোংলা নদীতে নেই কোনো ব্রিজ। ফলে খাদ্য গুদাম থেকে সড়ক পথে খাদ্য পন্য সরবরাহ করতে না পারায় এর সুফল ভোগ করতে পারছে না দক্ষিণাঞ্চলবাসী। 

এছাড়াও খাদ্যগুদামে কারিগরি সমস্যা, জেটি সংলগ্ন নদী ভরাট হওয়া । নৌপথ ও সড়ক পথে মালামাল খালাস-বোঝাইয়ের চারটি পয়েন্টে দুটি পথই বন্ধ। তাই সাইলোর এসকল সমস্য সমাদান, দ্রুত ভারী যানবাহন চলার উপযোগী সড়ক ও মোংলা নদীর ওপর ব্রিজ নির্মাণের দাবি স্থানীয় ও দক্ষিণাঞ্চলবাসীর।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, আপৎকালীন দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রায় সাড়ে পাঁচশ কোটি টাকা ব্যয়ে মোংলা উপজেলার জয়মণিতে ৫০ হাজার মেট্রিক টন খাদ্য শস্য ধারণ ক্ষমতার সম্পূর্ণ অত্যাধুনিক এ সাইলোটি নির্মিত হয়। ২০১৩ সালে ১৩ নভেম্বর নির্মাণ কাজ শুরু হওয়া এ সাইলোটি গত ২০১৬ সালের ২৭ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন। এ সময় লাইটারযোগে পরীক্ষামূলক ভাবে ৪০৬ মেট্রিক টন গম গুদামজাত করা হয়। এই সাইলোর জন্য সরকারিভাবে বিদেশ থেকে আমদানিকৃত গমের প্রথম চালান নিয়ে গত ২০১৭ সালের ৯ মার্চ মোংলা বন্দরে ভিড়ে গম বোঝাই জাহাজ। রাশিয়া থেকে আসা গম নিয়ে এমভি ‘নর্ডলে’ নামের পানামার পতাকাবাহী এ জাহাজটি বন্দরের পশুর চ্যানেলের হারবাড়িয়া বহিঃনোঙ্গরে অবস্থান করে। প্রথমবারের মতো আসা গমবাহী জাহাজটি নাব্যতা সমস্যার কারণে সাইলোর জেটিতে তখনই ভিড়তে পারেনি। ফলে মাদার ভ্যাসেল থেকে ছোট লাইটারযোগে খালাসের পর সাইলো জেটিতে লোডিং কাজ শুরু করে কর্তৃপক্ষ। গম লোডিং শুরু হলেও ধীর গতি নিয়ে বিড়ম্বনার মধ্যে পড়ে সাইলো সংশ্লিষ্টরা। সাইলো জেটির দুটি লোড পয়েন্টের একটি অচল হয়ে আছে। অপরটি চললেও কিছুক্ষণ পর পর বন্ধ হয়ে থাকছে। দক্ষ জনবল না থাকায় এ অবস্থা বিরাজ করছে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা। 

মোংলা জয়মণির ঘোল সাইলো সহকারী রক্ষণ প্রকৌশলী আমিনুল ইসলাম জানান, খাদ্য গুদামটি শুরু হয়েছে প্রায় ৩ বছর, তবে এখনো সম্পূর্ণভাবে এর সুফলতা ভোগ করতে পারছে না দক্ষিণাঞ্চলবাসী। এখানে বেশ কয়েকটি কারিগরি ত্রুটি রয়েছে, এছাড়াও জয়মণি থেকে মোংলা পর্যন্ত ২২ কিলোমিটার সড়ক, এটি মানুষ চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে আছে কয়েক বছর ধরে। তার পরও সাইলো থেকে সড়ক পথে মালামাল আনা-নেয়ার জন্য মোংলা নদীতে ব্রিজ না থাকায় কাঙ্ক্ষিত সেবা দিতে পারছে না কর্তৃপক্ষ।

চিলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গাজী আকবার হোসেন বলেন, “মোংলায় নির্মিত খাদ্যশস্য মজুদ রাখার জন্য সরকারের বিশেষ বরাদ্দের মেঘা প্রকল্প এ সাইলোর প্রধান সমস্যা হলো টেকসই সড়ক নির্মাণ ও মোংলা নদীতে একটি ব্রিজ। সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরে বার বার অনুরোধের পরও সড়কটি পুনঃনির্মাণের কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। এখানে ম্যাদার ভ্যাসেল থেকে কার্গো বা লাইটারে দ্রুত গতিতে গম খালাস করা হলেও সাইলোর কারিগরি ত্রুটির কারণে লোডিংয়ে ধীর গতি চলছে।”

তিনি আরো জানান, অত্যাধুনিক এ সাইলোর প্রযুক্তি অনুযায়ী ২৪ ঘণ্টায় দুই হাজার মেট্রিক টন গম লোডিং করার কথা থাকলেও তা পেরে উঠছে না কর্তৃপক্ষ। গম নিয়ে একাধিক লাইটার সাইলো জেটির লেডিং পয়েন্টে যাওয়ার অপেক্ষায় থাকতে হয়। কিন্তু গম লোডিংয়ের ধীর গতিতে নির্ধারিত সময় খালাস করা সম্ভব হয় না কার্গো বা লাইটার থেকে। আর এ জন্য তিনি সাইলোর কারিগরি ত্রুটি ও দক্ষ জনবল সংকটকে দায়ী করেন। 

এ অবস্থা চলতে থাকলে গমবাহি ম্যাদার ভ্যালেস কর্তৃপক্ষ, আমদানিকারক, শিপিং এজেন্ট ও স্টিভিডোর্স এবং লাইটার কর্তৃপক্ষকে মোটা অংকের আর্থিক ক্ষতি গুনতে হবে। 

তবে এ বিষয়ে সাইলোর অন্য বিভাগের প্রকৌশলী রাকেশ বিশ্বাস জানান, সাইলো'র লোডিং পয়েন্টে যথা নিয়মে কাজ চলছে। কোনো প্রকার ত্রুটি থাকার কথা অস্বীকার করে তিনি আউটডোর বিভাগে যোগাযোগ করার পরামর্শ দেন। তবে তারা শুধু আমদানিকৃত গমের গুণগতমান পরীক্ষা করেই জাহাজ থেকে খালাস ও লোডিংয়ের অনুমতি প্রদান করেছেন। কিন্তু সাইলোর অভ্যন্তরের ত্রুটিসহ অন্য কোনো বিষয়ে অবগত নন বলে জানান তিনি।

খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক জানান, মোংলার পশুর নদীর তীরে জয়মণিতে ৫০ হাজার মে. টন ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম সাইলোটি (খাদ্য গুদাম) নির্মাণ করা হয়েছে। খাদ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মোতাবেক গম আমদানি, খালাস,মজুদ ও বিতরণ প্রক্রিয়াজাত করা হবে বলে ৫০০ কোটি টাকা ব্যয়ে এটি নির্মিত হয়। এ সাইলোটি দুর্যোগকালীন এবং এ অঞ্চলের মানুষের সুবিধার্থে দক্ষিণ-পাশ্চিমাঞ্চলে চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে সরকারের খাদ্য মন্ত্রণালয় সাইলো নির্মাণের পরিকল্পনা করে। আর এ পরিকল্পনা অনুযায়ী মোংলা শহর থেকে মাত্র ২২ কি.মি. দক্ষিণে সুন্দরবনের কোল ঘেঁষে পশুর নদীর তীরে মোংলা সাইলো গুদাম নামে এটি নির্মাণ করা হয় ২০১৬ সালে। সেই থেকে খাদ্য মজুদ করা শুরু হয় মোংলার এ খাদ্য গুদামটিতে। কিন্তু এখানে নৌ-পথে খাদ্য পরিবহনের ব্যাবস্থা থাকলেও কয়েক বছর পেরিয়েছে সড়ক পথে পণ্য অন্যত্র পাঠানো যাচ্ছে না।

পরিবেশ বন ও জলবায়ু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার জানান, জয়মণির ঘোল সাইলোতে সরকারের বিদেশ থেকে আমদানি করা গম নিয়ে ভিড়তে পারছে না বিদেশি জাহাজ (মাদার ভ্যাসেল)। সাইলো জেটি এলাকায় নাব্যতা সংকটের কারণে গম নিয়ে বহিঃনোঙ্গরে অবস্থান করেই গম খালাস করে তা ছোট ছোট লাইটার বা কার্গোতে করে নিয়ে আসতে হয় এখানে। এ ছাড়া নতুন এ সাইলোর দক্ষ জনবল না থাকা ও কারিগরি সমস্যার কারণে ধীরগতিতে চলছে লোডিং কাজ। কারিগরি ত্রুটির কারণে গম লোডিংয়ে চারটি পয়েন্টের দুটি মাত্র সচল থাকলেও অপর দুটি অচল হয়ে পড়ে আছে। এ অবস্থায় সাইলো উদ্বোধনের পর গম নিয়ে আসা জাহাজগুলো খালাস কাজে বিড়ম্বনায় পড়ে। এতে জাহাজ কর্তৃপক্ষ, শিপিং এজেন্ট, স্টীভিডরস সহ সংশ্লিষ্টরা মোটা অংকের টাকার অর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে। 

এখানে বড় সমস্যা হলো সড়ক পথে, সাইলো সংলগ্ন রাস্তা ও মোংলা নদীতে ব্রিজ নির্মাণ। সাইলো প্রকল্পে রাস্তা নির্মাণের অর্থ বরাদ্দ থাকায় সরকারের পক্ষ থেকে নতুন করে উদ্যোগ নেয়া হয়নি রাস্তা ও ব্রিজ নির্মাণে। তবে নদীতে ব্রিজ ও রাস্তা নির্মাণে নতুন সরকারের শুরুতেই বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখা হবে- এমনটি জানালেন স্থানীয় সাংসদ ও উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার। এ সাইলোকে কেন্দ্র করে ১২৫ মিটার ব্রিজের সাথে ২৫০ মিটার দীর্ঘ জেটি টার্মিনাল নির্মাণ করা হয়েছে। যা দিয়ে দেশের ১৯ জেলার খাদ্য নিরাপত্তাও নিশ্চিত করতে মোংলার এ গুদাম থেকে খাদ্য সরবরাহ করতে দ্রুত ব্যবস্থা নিবে সরকার এমনটাই প্রত্যাশা দক্ষিণাঞ্চলবাসীর।

রাসায়নিক কারখানা সরাতে মেয়রকে সহযোগিতা করা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চকবাজারে আগুন: ৭৮ জনের মৃতদেহ উদ্ধার কান্না থামছে না কাওসারের ফুটফুটে দুই শিশুর রামপালে মৎস্যঘের কেটে খামারির ৩ লাখ টাকা ক্ষতি ভাষা আন্দোলন থেকে শিক্ষা নিলে দুর্নীতি বাসা বাঁধতো না: দুদক চেয়ারম্যান ভাষা আন্দোলন থেকে শিক্ষা নিলে দুর্নীতি বাসা বাঁধতো না ভাই হারানো এক প্রত্যক্ষদর্শীর বর্ণনায় চকবাজারের আগুন বঙ্গোপসাগরে ১ লাখ ইয়াবাসহ মিয়ানমারের ১১ নাগরিক আটক চকবাজারে আগুন: অভিযান সমাপ্ত চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডে স্পিকারের শোক বর্তমান সরকার সব ক্ষেত্রে ব্যর্থ: ফখরুল চকবাজারে অগ্নিকাণ্ড: ফায়ার সার্ভিসের ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি ঘন কুয়াশায় শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী রুটে সাড়ে ৮ ঘণ্টা ফেরি বন্ধ চকবাজারে অগ্নিকাণ্ড: প্রয়োজনীয় সহায়তার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর সরকার যথাযথ ক্ষতিপূরণ দেবে: কাদের ঢামেকে ৫২ জন ভর্তি, আশঙ্কাজনক ২ জন মিটফোর্ডে ৭০ মৃতদেহ উদ্ধার, আরো থাকতে পারে: আইজিপি বৃহস্পতিবার অমর একুশে বিনম্র শ্রদ্ধায় ভাষা শহীদদের স্মরণ চকবাজারে ভয়াবহ আগুন, মৃতের সংখ্যা ৬৯ যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্ক করে দিলেন পুতিন একুশ আমাদের মাথা নত না করা শিখিয়েছ: প্রধানমন্ত্রী শামীমা বেগমকে নিয়ে এত হইচই কেন? সৌদি-ভারত সম্পর্ক জিনগত: সৌদি যুবরাজ ১২ দেশে ১২ বার বিয়ে! মালয়েশিয়ায় অগ্নিকাণ্ডে বাংলাদেশিসহ ৬ জনের মৃত্যু খালেদা জিয়ার মুক্তি কবে? তোপের মুখে বিএনপি নেতারা ‘শত্রুর চোখে দেখলে সেই চোখ উপড়ে ফেলা হবে’ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫ শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিষ্কার খালেদা জিয়াকে জেলে রাখার বিচার হবে: ফখরুল