artk
সোমবার, জুন ১৭, ২০১৯ ৮:০১   |  ৩,আষাঢ় ১৪২৬

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

শনিবার, জানুয়ারি ১২, ২০১৯ ৭:৩৬

ইসলামের ‘চায়নিজ সংস্করণ’ বাস্তবায়নের চেষ্টা করছে চীন

media

আইন করে ইসলামের নিয়ম নীতি ও সংস্কৃতি বদলে ফেলতে যাচ্ছে চীন। মুসলিম প্রতিনিধিদের সঙ্গে দেশটির সরকারি কর্মকর্তারা এ নিয়ে আলোচনা করে নতুন আইনের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন বলে চীনের ইংরেজি সংবাদমাধ্যম গ্লোবাল টাইমসে প্রকাশিত সংবাদে বলা হয়েছে। 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এটা ধর্মীয় বিশ্বাসের ওপর চরম আঘাত এবং অযৌক্তিক। এর মাধ্যমে ধর্মীয় বিশ্বাসকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে চায় দেশটির সরকার। এটা মানবাধিকারের পরিপন্থী। 

জানা গেছে, ইসলামকে চীনের সমাজতান্ত্রিক সংস্কৃতির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ করে তুলতেই ওই নতুন আইন করা হচ্ছে। আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে ইসলাম ধর্মের ‘চাইনিজ ভার্সন' বাস্তবায়ন করার পরিকল্পনাও ঘোষণা করা হয়েছে৷

গত সপ্তাহে চীনের তিন প্রদেশে নিবন্ধন ছাড়া মসজিদে তল্লাশি চালিয়ে ৪০ জনকে গ্রেপ্তারের পরপর ইসলাম ধর্মের চীনা রূপের ঘোষণা এলো৷

চীন বিষয়ক বিশেষজ্ঞ ওকলোহামা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ডেভিড স্ট্রোপ বলেন, চীনের এই ধরনের সিদ্ধান্তের পেছনে বড় কারণ ইসলামিক দলগুলোর ওপর নিয়ন্ত্রণ নেয়া৷ এছাড়া চীন কখনোই অধিক বিদেশি বৈশিষ্ট্য সম্বলিত ধর্ম প্রসার হতে দেবে না৷ এক কথায় বলতে গেলে ইসলাম ধর্মের হাত ধরে যে আরব সংস্কৃতির প্রসার ও আরব ঘরানার মসজিদ গড়ে উঠছে চীনে, সেটিকে নিয়ন্ত্রণ করাই চীনা প্রশাসনের মূল লক্ষ্য৷ এর মধ্য দিয়ে ধর্মীয় বিশ্বাসকেও নিয়ন্ত্রণ করতে চায় চীন৷

চীনে উইঘুর ও অন্যান্য সম্প্রদায়ের মানুষকে আটক করে তাদের মতাদর্শ পরিবর্তনের জন্য বন্দিশিবির খোলা হয়েছে৷

এ প্রসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্রস্টবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের চীনা অধ‌্যাপক হাইয়ুন মা বলেন, ‘‘ধর্মীয় আচারে পরিবর্তনের সিদ্ধান্তকে চীনাদের অতি জাতীয়তাবাদের লক্ষণ বলেই মনে হয়৷ এখানে কয়েকটি বিষয়ে নজর দেওয়া যায়, এর মধ্যে নাস্তিকতার অনুসারী প্রশাসক দল একটি ধর্মকে পরিমার্জন করছে, এটি অযৌক্তিক৷''

তিনি আরো বলেন, ‘‘চীনারা মনে করে, আরব সংস্কৃতি মানেই ভয়ানক কিছু৷ তাই চীনা মুসলমানদের জীবন থেকে তাবৎ আরব আচার মুছে ফেলাটাই সঠিক সিদ্ধান্ত৷ এটিকে চীনা জাতীয়তাবাদের চরম পর্যায় বলা যায়, যার মধ্য দিয়ে ধর্মীয় বিশ্বাসকেও নিয়ন্ত্রণ করতে চায় চীন৷''

তিনি আরো উল্লেখ করেন, ধর্ম পরিমার্জনের এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হলে চীনা মুসলমানরা বিশ্ব মুসলিম ঐক্য থেকে আলাদা হয়ে একঘরে হয়ে পড়বে৷ এটাই চীনা প্রশাসনের মূল চাওয়া বলে মনে করা হচ্ছে৷ 

এদিকে দেশটির ১০ লাখেরও বেশি মুসলিমকে বিভিন্ন অস্থায়ী ক্যাম্পে আটক রেখে ধর্ম পালনে বাধা এবং জোর করে কমিউনিস্ট মতাদর্শে আস্থাশীল করার চেষ্টা হচ্ছে বলেও ধারণা জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থার৷ ইতোমধ্যে চীনের বিভিন্ন মসজিদ থেকে গম্বুজ ও চাঁদ-তারার প্রতিকৃতি সরিয়ে নেওয়া হয়েছে৷ সেখানে মাদ্রাসার পাশাপাশি আরবি ভাষা শেখানোও নিষিদ্ধ করা হয়েছে৷

এদিকে চীনা প্রশাসন দাবি করছে, দেশে মুসলমান বাড়ছে৷ এ অবস্থায় দেশের একটি বৃহত্তর জনগোষ্ঠীকে মুসলিম দেশগুলোর চলমান সন্ত্রাসবাদ ও উগ্র ধর্মান্ধতা থেকে দূরে রাখতেই পরিবর্তন আনা হচ্ছে৷ এটিকে চীনা জাতীয়তাবাদের প্রতি শ্রদ্ধাশীল ও সম্মানজনক সিদ্ধান্ত বলেই মনে করছেন তারা৷

যৌন সুবিধা নেওয়া পুরুষের সংখ্যা অগণিত: ম্যাডোনা বিকেলে উইন্ডিজের বিপক্ষে সেমির স্বপ্ন বাঁচানোর লড়াই এবারও ভারতের কাছে হারলো পাকিস্তান শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস চক্রের ২ হোতা গ্রেপ্তার বিএনপি যোগ দিলেও সংসদ বৈধতা পাবে না: হারুনুর রশিদ আ. লীগ এমপি গোলাম মোস্তফার বিরুদ্ধে হিন্দু সম্পত্তি দখলের মামলা এজলাসেই মারা গেলেন বিচারক ফাইবার অপটিক ক্যাবলের রেগুলেটরি ডিউটি প্রত্যাহার চায় আইএসপিএবি সেই ১২ ডিসিকে বদলির আদেশ বাতিল এতো দিন কোথায় ছিলেন? পাচারকালে গাছসহ সরকারি গাড়ি আটকে দিলো স্থানীয়রা বাজেটে দুর্নীতির টাকা সাদা করার সুযোগ রাখা হয়েছে: মওদুদ সেনাবাহিনীকে জনগণের পাশে থাকতে হবে: প্রধানমন্ত্রী বাজেট ঘোষণার পরবর্তী সূচকে পতন ভোক্তার অভিযোগ শুনতে হটলাইন চালুর নির্দেশ সংসদকে অবৈধ বলবেন, আবার সুযোগ-সুবিধা নেবেন: মতিয়া চৌধুরী প্রতি উপজেলায় কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হবে: শিক্ষামন্ত্রী রাজধানীতে বস্তির সংখ্যা ৩৩৩৯টি ভারতে তীব্র দাবদাহে একদিনেই ৭০ জনের মৃত্যু যুগ্ম সচিব হলেন ১৩৬ জন ‘পুঁজিবাজারের জন্য আরো প্রণোদনা জরুরি’ খালেদা জিয়ার জামিন চলতি সপ্তাহেই: মওদুদ ওসি মোয়াজ্জেম গ্রেপ্তার ডিআইজি মিজান কি দুদকের চেয়ে বেশি শক্তিশালী: হাইকোর্ট গায়ে হলুদে বাবাকে জড়িয়ে নুসরাতের কান্না নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানের নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা কারাগারের আড়াইশো বছরের নাস্তার মেন্যুতে পরিবর্তন নিউজিল্যান্ডে ৭.২ মাত্রার ভূমিকম্প অনুভূত গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের সাথে ওয়েজবোর্ড বিষয়ে বৈঠকে ওবায়দুল কাদের বাজেটের প্রস্তাবগুলো বাস্তবায়ন হলে পুঁজিবাজার ইতিবাচক হবে