artk
বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ২৪, ২০১৯ ৮:০৭   |  ১১,মাঘ ১৪২৫
বুধবার, জানুয়ারি ৯, ২০১৯ ৪:২১

সিলেটকে জেতালেন তাসকিন

স্পোর্টস রিপোর্টার
media

সিলেটেরে দেয়া ১৬৯ রানের জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ওভারে ৭ উইকেটে ১৬৩ রান সংগ্রহ করে মুশফিকের চিটাগং। সিলেটের ওপেনার মোহাম্মাদ শেহজাদ ব্যক্তিগত ৬ রান করে দলীয় ৬ রানের মাথায় তাসকিনের বলে ওয়ার্নারের তালুবন্দি 

বিপিএলে নিজেদের প্রথম ম্যাচে হারের পর দ্বিতীয় ম্যাচেই জয় পেয়েছে ডেভিড ওয়ার্নারের সিলেট সিক্সার্স। বুধবার মিরপুরে টানটান উত্তেজনার ম্যাচে চিটাগং ভাইকিংসকে ৫ রানে হারিয়েছে তারা। সিলেটের হয়ে অসাধারণ বল করেছেন পেসার তাসকিন। তিনি একাই চার উইকেট শিকার করেন।

সিলেটেরে দেয়া ১৬৯ রানের জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ওভারে ৭ উইকেটে ১৬৩ রান সংগ্রহ করে মুশফিকের চিটাগং। সিলেটের ওপেনার মোহাম্মাদ শেহজাদ ব্যক্তিগত ৬ রান করে দলীয় ৬ রানের মাথায় তাসকিনের বলে ওয়ার্নারের তালুবন্দি হন। তবে দ্বিতীয় উইকেটে জুটিতে বেশ ভালোই জবাব দেন ক্যামেরন ডেলপোর্ট ও মোহাম্মদ আশরাফুল। এ জুটিতে তারা ৬৩ রান যোগ করেন। 

ঝড়ো ব্যাটিং শুরু করে দলীয় ৬৯ রানের মাথায় রানআউটের শিকার হন ডেলপোর্ট। ২২ বলে ৩৮ রান করেন চার বাউন্ডারি ও তিন ছক্কায়। মোহাম্মদ আশরাফুলকে ফিরিয়ে দিয়ে নিজের দ্বিতীয় উইকেট পূর্ণ করেন তাসকিন। ২৩ বলে ২২ রান করে সাব্বির রহমানের তালুবন্দি হন আশরাফুল। এরপর ভাইকিংসের শিবিরে জোড়া আড়াতা হানেন অলক কাপালি। অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ৫ রান করে অলকের বলে আফিফি হোসেন তালুবন্দি হন। মোসাদ্দেক হোসেন ৭ রান করে অলকের বলে সরাসরি বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন। ১৩ ওভারে দলীয় ৯৪ রানে ৫ উইকেটে হারায় চিটাগংয়ের দলটি।

ইনিংসের ১৮তম ওভারে নিজের চতুর্থ ওভারে আরও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেন সিলেটের পেসার তাসকিন আহমেদ। ওভারের শেষ দুই বলে দুই উইকেট তুলে নিয়ে ভাইকিংর্সের চাপ বাড়িয়ে দেন। সিলেটের জন্য বিপদ হয়ে ওঠা সিকান্দারকে সরাসরি বোল্ড করেন এই পেসার। সাজঘরে ফেরার আগে ২৮ বলে দুটি করে চার ছক্কায় ৩৭ রান করেন সিকান্দার। নাঈম ওভারের শেষ বলে নাঈম হাসানকে শূন্য রানে ফিরিয়ে দেন তাসকিন।

শেষ মুহূর্তে ভাইকিংসের হয়ে ব্যাটিংয়ে ঝড় তোলেন বরি ফ্লাইলিংক। কিন্তু তার ২৪ বলে অপরাজিত ৪৪ রানের ঝড়ো ইনিংসও ভাইকিংসের হার এড়াতে পারেনি। বল হাতে তাসকিন আহমেদ ৪ ওভারে ২৮ রানে একাই চারটি উইকেট নেন। এছাড়া অলক কাপালি নেন তুটি উইকেট।

এর আগে মিরপুরে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে জ্বলে উঠেন সিলেটের অধিনায়ক ওয়ার্নার ও আফিফরা। ওয়ার্নার ও নিকোলাসের হাফসেঞ্চুরি এবং আফিফের ৪৫ রানের ঝড়ো ইনিংসে ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৬৮ রান সংগ্রহ করে সিলেট। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই ওপেনার লিটন শূন্য রাতে সাজঘরে ফেরেন।

এরপর নাসির হোসেন ৩ রানে বিদায়ের পর সাব্বির রহমানও ফেলেন শূন্য রানে। চতুর্থ ওভারে দলীয় ৬ রানে তিন উইকেট হারিয়ে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পরে সিলেট। এরপর অধিনায়ক ওয়ার্নারের সাথে জুটি বেধেঁ ঝড়ো ব্যাটিং শুরু করে আফিফ হোসেন। দারুণ শুরু করে দলীয় ৭৭ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৪৫ রান করে খালিদ আহমেদের বলে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন আফিফ। ২৮ বলে পাঁচ বাউন্ডারি ও তিন ছক্কার এ রান করেন তিনি। 

অভিজ্ঞ ওয়ার্নারের সাথে জুটি গড়েন এবার ঝড় তোলেন নিকোলাস পুরান। দু-জনেই হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন। শেষ দিকে ওয়ার্নার ৪৭ বলে দুই বাউন্ডারি ও একটি ছক্কায় ৫৯ রান করে ফ্লাইলিংকের বলে মুশফিকুরের তালুবন্দি হন। তবে পুরান ৩২ বলে তিন বাউন্ডারি ও তিন ছক্কায় ৫২ রান করে অফরাজিত থাকেন। এছাড়া ২ রান করে অপরাজিত থাকেন অলক কাপালি। বল হাতে চিটাগং ভাইকিংসের হয়ে ফ্লাইলিংক চার ওভার ২৬ রানে তিনটি এছাড়া নাঈম ও খালিদ নেন একটি করে উইকেট।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এসএস/এএইচকে