artk
বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ২৪, ২০১৯ ৯:১৯   |  ১১,মাঘ ১৪২৫
বুধবার, জানুয়ারি ৯, ২০১৯ ১১:১৯

নওগাঁয় ডায়রিয়ায় আক্রান্ত শতাধিক শিশু, হাসপাতালে শয্যা সংকট

media

উত্তরবঙ্গে বয়ে যাচ্ছে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ। আর এর প্রভাব পড়েছে সীমান্তবর্তী জেলা নওগাঁর সাপাহার উপজেলাতেও। প্রচণ্ড ঠাণ্ডা ও শীত জনিত কারণে নওগাঁর সাপাহারে ব্যাপক হারে ডায়রিয়া রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে শিশু ও বৃদ্ধরা এই রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, ৫০ শয্যা হাসপাতালটিতে শয্যা সংকুলন না হওয়ায় অনেক শিশু মেঝেতে বিছানা করে চিকিৎসা সেবা নিচ্ছে। প্রতিদিন গড়ে ১০ থেকে ১৫ জন ডায়রিয়া রোগে আক্রান্ত শিশুরা হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে। বর্তমানে হাসপাতালটিতে ২৮টি শিশু ও তিন জন বৃদ্ধ রোগী ভর্তি রয়েছে। দিন দিন রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় পূর্বের রোগী সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে ওঠার আগেই তাদের রিলিজ দিয়ে নতুন রোগী ভর্তি করা হচ্ছে বলে রোগীর লোকজনদের অভিযোগ। জানুয়ারির প্রথম থেকে এ পর্যন্ত শতাধিক ডায়রিয়া রোগীর চিকিৎসা সেবা দেয়া হয়েছে বলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে। 

উপজেলার শিরন্টি গ্রামের আখতার বানু বলেন, “আমার ছেলে হঠাৎ করেই ঘন ঘন পায়খানা করছে। তাই ছেলেকে হাসপাতালে নিয়ে এসেছি। ডাক্তার ছেলেকে দেখে হাসপাতালে ভর্তি করার নির্দেশ দিয়েছেন আর বলেছেন যে আমার ছেলের ডায়রিয়া রোগ হয়েছে।” 

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রুহুল আমিন বলেন, “এটি শীতজনিত একটি ভাইরাস রোগ। শীতের প্রভাব বেশি হলে সাধারণত যার শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম সে ব্যক্তিই এই রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকে। বর্তমানে সাপাহারে এর প্রভাব একটু বেশি হলেও আগামী দিনে তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেলে রোগের প্রাদুর্ভাবও কমে যাবে। ডায়রিয়া নিরোধে আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি সরকারিভাবে যে সমস্ত ওষুধপত্র সরবরাহ রয়েছে আমরা রোগীদের তা সরবরাহ করছি। তবে শহরের তুলনায় গ্রামাঞ্চলের সাধারণ পরিবারের মায়েরা তেমন একটা সচেতন নয় বলে রোগটি এলাকায় প্রভাব ফেলেছে। আশা করছি কয়েক দিনের মধ্যেই সাপাহার হতে ডায়রিয়া রোগ কমে যাবে এবং স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসবে।”