artk
বুধবার, জুন ১৯, ২০১৯ ১২:০২   |  ৫,আষাঢ় ১৪২৬

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

বুধবার, জানুয়ারি ৯, ২০১৯ ৯:৫৪

যুক্তরাষ্ট্রের কেয়ার হোমে এক দশক ধরে চেতনাহীন রোগীর সন্তান প্রসব

media
  • “বাচ্চার জন্ম হওয়ার আগ পর্যন্তও স্টাফদের মধ্যে কেউ বুঝতে পারেন নি যে নারীটি অন্তঃসত্ত্বা।” 

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এক কেয়ার হোমে এক দশকেরও বেশি সময় চেতনাহীন অবস্থায় থাকা এক রোগীর সন্তান জন্ম হয়েছে। এ নিয়ে শুরু হয়েছে তোলপাড়।

ঘটনার জেরে ওই কেয়ার হোমটির পরিচালনাকারী কোম্পানির প্রধান নির্বাহী পদত্যাগ করেছেন।

যৌন নিপীড়নের অভিযোগ পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। বিবিসি।

ঘটনাটি ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনা অঙ্গরাজ্যের ফিনিক্স শহরের কাছে। 

সেখানে হাসিয়েন্দা হেলথ কেয়ারের একটি ক্লিনিকে ওই নারী এক দশকেরও বেশি সময় ধরে চেতনাহীন অবস্থায় ছিলেন এবং তাকে সার্বক্ষণিক সেবা দিতে হতো।

ওই নারী গত ২৯ ডিসেম্বর একটি সন্তান জন্মদান করেন। রোগীর পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি।

স্থানীয় টিভি চ্যানেল কেএইচ-ও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সূত্রকে উদ্ধৃত করেছে। ওই সূত্র বলেছে, “আমি যেটা শুনছি তা হলো হঠাৎ করেই ওই রোগী গোঙাতে থাকেন এবং কেউ বুঝতে পারছিলেন যে তিনি কেন গোঙাচ্ছিলেন।”

“বাচ্চার জন্ম হওয়ার আগ পর্যন্তও স্টাফদের মধ্যে কেউ বুঝতে পারেন নি যে নারীটি অন্তঃসত্ত্বা।” বলেন তিনি।

কেয়ার হোমের মালিক কোম্পানির নির্বাহী ভাইস প্রেসিডেন্ট গ্যারি অরম্যান বলেন, “এই ভয়াবহ ঘটনার পুরোটা না জানা পর্যন্ত আমরা থেমে থাকবো না।”

প্রভাবশালী পত্রিকা নিউইয়র্ক টাইমসের একব খবরে বলা হয়েছে, ওই কেয়ার হোম সম্পর্কে কিছু নতুন অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযোগে বলা হচ্ছে, ‘ভিজিটেটভি স্টেটে’ থাকা এসব জ্ঞানহীন রোগীদের পোশাক পরিবর্তন বা তাদের গোসল করানোর সময় তাদের নগ্ন করে রাখা হতো এবং কোনো ব্যক্তিগত গোপনীয়তা রক্ষা করা হতো না।

এই ঘটনায় ফিনিক্স পুলিশের একজন মুখপাত্র বিস্তারিত তথ্য দিতে অস্বীকৃতি জানান এবং বলেন যে এই ঘটনা নিয়ে তাদের তদন্ত চলছে।

ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর কেয়ার হোমের কিছু নিয়মকানুনে পরিবর্তন আনা হয়েছে। এখন কেয়ার হোম কর্মী কোনো নারী রোগীর কক্ষে ঢুকতে চাইলে তাকে একজন নারী সহকর্মীকে সঙ্গে রাখতে হবে।

কেয়ার হোম কর্তৃপক্ষ বলছে, তারা পুলিশের তদন্তের সাথে পরিপূর্ণভাবে সহযোগিতা করছে।

হাসিয়েন্দা হেলথ কেয়ার তার ওয়েবসাইটে বলে থাকে, কঠিন অসুখে পড়া রোগী এবং দুর্বল নারী, শিশু, টিনএজার ও তরুণদের তারা সেবা দিয়ে থাকে।

বিকল্প পথে ঢাকা থেকে সিলেট, দীর্ঘ যানজট আকাশের তৈরি সেই পরিবেশবান্ধব গাড়ি চালালেন ডিসি ‘পাসওয়ার্ড’ ছবির বিরুদ্ধে সেন্সর বোর্ডে অভিযোগ রেস্টুরেন্টে আফগান ক্রিকেটারদের ঝগড়াঝাঁটি প্রেমের টানে জার্মান নারী স্বামী-সংসার ফেলে খুলনায় যশোরে গণপিটুনিতে সন্ত্রাসী নিহত উবার চালককে পেটানোর ভিডিও করায় নিগৃহীত মিস ইন্ডিয়া বর্ষা ঋতুতে ব্যাঙ দাঁতে পেনসিল রেখে, বুড়ো আঙুলে ফুঁ দিয়েও সমস্যায় মুক্তি সৌদির প্রথম নারী পাইলট ইয়াসমিন মেসিদের দেখে ক্রুদ্ধ ম্যারাডোনা বগুড়ায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ গুলিবিদ্ধ ৮ মামলার আসামির মৃত্যু মিষ্টি কুমড়ায় যেসব ফাস্টফুড খাবার তৈরি করা যায় গোল করেও গোলশূন্য ড্র ব্রাজিলের হেসেখেলেই আফগানদের হারালো ইংল্যান্ড বিষাক্ত পোল্ট্রি-ফিস ফিড: ৬ কারখানা সিলগালা, ১০ জনের কারাদণ্ড ডোমিনিকান রিপাবলিক: মার্কিন পর্যটকদের মৃত্যুকূপ ঢাকাগামী সুন্দরবন-১০ লঞ্চে আগুন জাপানে শক্তিশালী ভূমিকম্প, সুনামি সতর্কতা জারি গাজীপুরে আ.লীগ প্রার্থী জয়ী, বিএনপি নেতার ভোট বর্জন ভাগনে অপহরণ: ফেসবুক লাইভে যা বললেন সোহেল তাজ আব্বাস: বদলে যাওয়া এক নিরব সব বিমানবন্দরে ডগ স্কোয়াড গঠনের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর রূপপুর প্রকল্পের বালিশ-কাণ্ডে সংসদীয় কমিটির অসন্তোষ মিশরের প্রথম বৈধ প্রেসিডেন্ট মুরসির উত্থান যেভাবে দুষ্টু লোকজন সামান্য গণ্ডগোলের চেষ্টা করেছে: ইসি সচিব তুরস্কে মুরসির গায়েবানা জানাজায় জনতার ঢল দেশব্যাপী বিড়ি শ্রমিকদের বিক্ষোভ, মানববন্ধন ৩৬ বছরের লজ্জার রেকর্ড এখন রশিদের মোবাইলে লেনদেনে নতুন করে চার্জের সুযোগ নেই: বিটিআরসি