artk
বুধবার, জুন ১৭, ২০১৫ ৯:৩২

‘আ.লীগ কিছুদিন পরপর আনসারুল্লাহ রহমাতুল্লাহ বানায়’

media

ঢাকা: জঙ্গিবাদের উত্থানের জন্য আওয়ামী লীগকে দায়ী করে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, ‘‘সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ আওয়ামী লীগের তৈরি। আওয়ামী লীগই এর সঙ্গে জড়িত। কিছুদিন পর পর আনসারুল্লাহ, রহমাতুল্লাহ বানানো হয়। যখনই তাদের (আওয়ামী লীগ) অবস্থা খারাপ হয়, তখন বিদেশিদের দেখানোর জন্য আনসারুল্লাহ, রহমাতুল্লাহকে ধরছে। বিদেশিদের বলে, আমরা না থাকলে এই জঙ্গিবাদের উত্থান হবে।’’

তিনি বলেন, ‘‘ আমরা বলতে চাই, আওয়ামী লীগের সময়ই জঙ্গিবাদ ও বোমাবাজের উত্থান হয়েছিল। যশোরে উদীচী বোমা বিস্ফোরণ, পল্টন ময়দানে সিপিবির সমাবেশে, রমনা বটমূলে, গোপালগঞ্জে বোমার ঘটনা হয়েছিল কোন সময়ে? যত ঘটনা ঘটেছে আওয়ামী লীগের আমলে। ওই সময়ে জঙ্গিদের তারা ধরেনি। আমরা জঙ্গিদের ধরেছি, সাজাও দিয়েছি।’’

মঙ্গলবার রাতে গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে নোয়াখালী জেলার নবনির্বাচিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

সভার শুরুতে নবনির্বাচিত নেতারা খালেদা জিয়ার হাতে ফুলের তোড়া তুলে দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, ‘‘২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নিবার্চনের কথা বাদই দিলাম। গত সিটি নিবার্চন দেখে বিদেশিরাও বলেছে, আওয়ামী লীগের অধীনে কোনওদিন সুষ্ঠু নিবার্চন হতে পারে না। কারণ তারা হতে দেবে না। ওরা (আওয়ামী লীগ) জানে সুষ্ঠু নিবার্চন হলে তাদের কী অবস্থা হবে। সেজন্য ওরা ভোটেও যেতে চায় না। আমরা স্পষ্টভাষায় বলতে চাই, আওয়ামী লীগকে অবশ্যই একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নিবার্চনের ব্যবস্থা করতে হবে। দেশে সেই নিবার্চন ভবিষ্যতে অবশ্যই হবে ইনশাল্লাহ।’’

খালেদা জিয়া বলেন, ‘‘ক্ষমতাসীনরা জানে একটি সুষ্ঠু নিবার্চন হলে তাদের কি পরিণতি হবে? আগে তারা ২১ বছর ক্ষমতার বাইরে ছিল। এবার তারা ক্ষমতার থেকে বিদায় নিলে এবার তাদের অবস্থা মুসলিম লীগের মতো টুকরো টুকরো হবে। আওয়ামী লীগ আর আওয়ামী লীগ থাকবে না।’’

দেশের বর্তমান অবস্থা তুলে ধরে খালেদা জিয়া বলেন, ‘‘দেশে আজ গণতন্ত্র নেই, সুশাসন, মৌলিক অধিকার, মানবাধিকার ও জনগণের নিরাপত্তা নেই। আইনের শাসনও নেই। আদালতে গেলে আমরা (বিরোধী দল) জামিন পাই না।’’

তিনি বলেন, ‘‘আজকে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সভাপতি ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া এই অনুষ্ঠানে আসার কথা ছিল, তার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দিয়ে পরোয়ারা জারি করা হয়েছে। তিনি খারাপ বিপদের মধ্যে আছে। অ্যাডভোকেট পাপিয়া আদালতে হাজিরা দিতে গেছে, তাকে কারাগারে ভরে দিয়েছে। এখন যেই যায়, তাকে ভরে দেয়। ওরা মনে করে জেলে ভরে মিথ্যা মামলা দিয়ে বিএনপিকে শেষ করা, বিএনপিকে ধ্বংস করা। এতে কোনো লাভ হবে না।’’

আসন্ন বার কাউন্সিল নির্বাচনে আইনজীবীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে জাতীয়তাবাদী প্যানেলকে বিজয়ী করার আহ্বানও জানান বিএনপি চেয়ারপারসন।

দলের বিষয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের সমালোচনা করে খালেদা জিয়া বলেন, ‘‘ আজকে সরকার খবরের কাগজগুলো নিয়ন্ত্রণ করছে। বিএনপির নামে উল্টা-পাল্টা, মিথ্যা-বানোয়াট যা মর্জি হচ্ছে, তা লিখছে। ওইসব তাদের বানোয়াট ও মিথ্যা। আমি বলতে চাই, বিএনপি শক্তিশালী ছিল, আছে এবং ইনশাল্লাহ থাকবে। বিএনপি ঐক্যবদ্ধ আছে, এই দলে কোনো বিভেদ নেই।’’

দলকে পুনর্গঠন করা হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘‘দলকে সচল রাখার জন্য পুনর্গঠন করতে হয়। এটা একটা চলমান প্রক্রিয়া। এটা করতেই হয়। এটাই আমরা করছি। সেজন্য বিএনপি শেষ হয়ে গেছে, বিএনপি নাই বা বিএনপি শক্তিশালী হতে পারছে না, এটা ঠিক নয়। আমরা ঠিক আছি। আমরা শুধু সময়ের অপেক্ষায় আছি।’’

ছাত্রদল, যুবদল, মহিলাদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, কৃষকদল, শ্রমিকদলসহ সব সংগঠনে নতুন নেতৃত্ব এনে পুনর্গঠিত করা হবে বলেও জানান বিএনপি চেয়ারপারসন।

খালেদা জিয়া বলেন, ‘‘আজকে দেশ হাসিনার নিয়ন্ত্রণে নয়, পুলিশের নিয়ন্ত্রণে চলছে। পুলিশ বলছে যে আমরা এ সরকারকে টিকিয়ে রেখেছি। আমরা সবকিছু করি। এ জন্য তারা সরকারের কোনও কথা শুনে না। আজকে মহিলা পুলিশও নিরাপদ নয়, তাদেরকে লাঞ্ছিত করা হচ্ছে।’’

তিনি বলেন, ‘‘ ছাত্রলীগ হয়ে গেছে দৈত্য, তারা দানব হয়ে গেছে। একদিকে পুলিশ অন্যদিকে ছাত্রলীগ-যুবলীগ মিলে বিএনপিকে ধ্বংস করতে চায়। আমরা বলতে চাই- বিএনপিকে জনগণের দল। একে শেষ করা যাবে না।’’

সরকার দুর্নীতিতে নিমজ্জিত মন্তব্য করে খালেদা বলেন, ‘‘তারা বড় বড় প্রকল্প নিয়ে কমিশন খায়।’’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বৈরাচার আখ্যা দিয়ে তিনি বলেন, ‘‘হাসিনা কেবল স্বৈরাচারীই নয়। সে খুনি। গুম-হত্যার সঙ্গে সরাসরি জড়িত। সালাহউদ্দিন আহমেদ, ইলিয়াস আলী, চৌধুরী আলম থেকে যতজন গুম হয়েছে, খুন হয়েছে- সব খুন-গুমের সঙ্গে তেনারা জড়িত। আওয়ামী লীগ হল সন্ত্রাসী, লুটেরা দল। তারা গণতন্ত্র হত্যাকারী, আইনের শাসন ও মানুষের মৌলিক অধিকার হরণ করার দল।’’

সংসদ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘‘একটা সংসদ বসিয়েছে। এটা জনগণের সংসদ নয়। ওখানে শুধু আমাদের বিরুদ্ধে গালমন্দ করা হয়। অথচ আমরা সংসদের বাইরে।’’

প্রধান বিচারপতির সাম্প্রতিক এক বক্তব্যের উদ্ধৃতি দিয়ে খালেদা জিয়া বলেন, ‘‘প্রধান বিচারপতি সিনহা বলেছেন, বিচার বিভাগের স্বাধীনতার ব্যাপারে অনেকে কটাক্ষ করে। আমরা চুপ করে থাকি। উচ্চ আদালত সবসময় স্বাধীন ছিল। এখন কথা উঠেছে নিম্ন আদালত...।’’

তিনি বলেন, ‘‘প্রধান বিচারপতি বলেছেন, উচ্চ আদালত সব সময় স্বাধীন ছিল। তিনি বলেছেন, ‘ছিল’। তার মানে এখন নেই। আরও বলেছেন, নিম্ন আদালত নির্বাহী বিভাগের হাতে। আমি প্রধান বিচারপতির এই কথার পর বলছি, মানুষ আজ কোথাও ন্যায় বিচার পাচ্ছে না। যোগ্যতা না থাকা সত্ত্বেও দলীয় বিচারপতি নিয়োগের ফলে ন্যায় বিচার বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

খালেদা জিয়া বলেন, “বিএনপির দিকে সারাদেশের মানুষ তাকিয়ে আছে। আজকে আমরা আন্দোলন সংগ্রাম বন্ধ করে দিয়েছি। তারপরও কেন দেখা যায় প্রতিদিন মানুষ গুম হচ্ছে খুন হচ্ছে। কেন সম্পদ দখল করা হচ্ছে। তারা বলে তারা সেক্যুলার। তারা সেক্যুলার হলে হিন্দুদের বাড়িঘর মন্দির ভাঙা হয় কেন? দখল করা হয় কেন? বৌদ্ধদের মন্দির ভাঙা হয় কেন?

মতবিনিময় সভায় অন্যান্যের মধ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ, জমিরউদ্দিন সরকার, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি খন্দকার মাহবুব হোসেন, সম্পাদক মাহবুব উদ্দিন খোকন, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এবিএম জাকারিয়া, সাধারণ সম্পাদক সাহাদাৎ হোসেন, সমিতির সাবেক নেতা আবদুর রহীম, কামরুল ইসলাম, আবদুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য দেন। ঢাকা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি সানাউল্লাহ মিয়া, বর্তমান সভাপতি মাসুদ আহমেদ তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক ফারুকীসহ জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের শতাধিক সদস্য এসময় উপস্থিত ছিলেন।

নিউজবাংলাদেশ/আরআর/এফএ

যুক্তরাষ্ট্রকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিল হুয়াওয়ে ‘ভারত বুঝুক, হারের পর সামনে এসে উল্লাস করলে কেমন লাগে’ মৎস্য কর্মকর্তা লাঞ্ছিত, উপজেলা চেয়ারম্যান বরখাস্ত নারায়ণগঞ্জে শিশুসহ একই পরিবারের দগ্ধ ৮ নায়ক মান্না চলে যাওয়ার ১ যুগ করোনায় মৃত্যুর মিছিলে আরও ১০০ জন বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে ২ মেডিক্যাল শিক্ষার্থী নিহত ইঁদুরেই খেয়েছে ১ লাখ মেট্রিক টন ফসল করোনাভাইরাস আতঙ্কে সিঙ্গাপুরফেরত স্বামীকে রেখে পালালেন স্ত্রী ঘুষের অভিযোগ থেকে সিনহাকে অব্যাহতি কোভিড ১৯: এবার তাইওয়ানে প্রথম মৃত্যু ভোটাররা দেরিতে ঘুম থেকে উঠায় ভোট হবে ৯টায়: ইসি সচিব এই সেলফি তোলার পরেই ট্রেনের ধাক্কায় স্কুলছাত্রের মৃত্যু করোনাভাইরাস: প্রযুক্তিই চীনের শেষ ভরসা সঞ্চয়পত্রে নয়, সুদ কমেছে ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমের: অর্থ মন্ত্রণালয় বিশ্বকাপজয়ী ৬ ক্রিকেটার নিয়ে বিসিবি একাদশ ঘোষণা সিরাজগঞ্জে বাস খাদে পড়ে নিহত ৩ চট্টগ্রাম, বগুড়া ও যশোর সিটিতে ভোট ২৯ মার্চ করোনাভাইরাস শনাক্তে বাংলাদেশকে উন্নত কিটস দেবে চীন একত্রে কাজ করবে ডিএসই ও সিএসই বিশ্রামে রিয়াদ, ফিরলেন তাসকিন-মোস্তাফিজ করের বকেয়া অর্থ না দেয়াও দুর্নীতি: দুদক চেয়ারম্যান দক্ষদের নিয়োগ দিচ্ছে টেসলা, ডিগ্রি না হলেও চলবে খালেদা জিয়ার প্যারোল আবেদন সরকার পায়নি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চিকেন পক্স হলে কী খাবেন বাংলা তারিখ ব্যবহারে নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট কারিগরি শিক্ষার্থীদের বেশি গুরুত্ব দেয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ডিএসইএক্সের সেরা দ্বিতীয় উত্থান মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে তৃতীয় মেয়াদে শপথ নিলেন কেজরিওয়াল ফিটনেস ও নিবন্ধনহীন গাড়ি বন্ধে সব জেলায় টাস্কফোর্স গঠনের নির্দেশ