artk
রোববার, জুন ১৪, ২০১৫ ৬:৪৩
কালশী ট্রাজেডির ১ বছর

মামলা ৬টি, অগ্রগতি নেই ১টিরও

media

ঢাকা: মাত্র এক বছর আগের আজকের দিনে রাজধানীর মিরপুর কালশী বিহারী ক্যাম্পে ঘটে যায় ভয়াবহ ত্রীমুখী সংঘর্ষের ঘটনা। এতে প্রাণ হারায় একই পরিবারের আটজনসহ মোট নয়জন। মামলা হয় ছয়টি। ২২ জনের নাম উল্লেখ করে আসামি করা হয় শতাধিক বিহারীকে। কিন্তু এখনো পর্যন্ত ওইসব মামলায় কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

এমনকি সে সময় সংগ্রহ করা সিসি টিভির ফুটেজ থেকেও কাউকে শনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ। আর তাই এখনো এ সংঘর্ষের নেপথ্যের কারণ রয়ে গেছে অজানা। ২০১৪ সালের ১৪ জুন পবিত্র শবে বরাতের রাতে তুচ্ছ বিষয়কে কেন্দ্র করে বহিরাগত, বিহারী ক্যাম্পবাসী ও পুলিশের মধ্যে ত্রিমুখী সংঘর্ষ, অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ বাদী হয়ে দুটি ও স্থানীয়রা বাদী হয়ে চারটি মামলা করে।

স্থানীয়দের দায়েরকৃত মামলা চারটি হলো, ২৭ থেকে ৩০ নম্বর মামলা এবং পুলিশের দায়েরকৃত মামলা দুটি হলো, ৩১ ও ৩২ নম্বর। তবে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ তদন্ত করলেও এখন পর্যন্ত এসব মামলার তদন্তে লক্ষ্যণীয় কোনো অগ্রগতি নেই, গ্রেফতারও নেই।

যে কারণে সংঘর্ষ: কালশীর বিহারীক্যাম্পে ৭০টি ঘর জুড়ে প্রায় দুই হাজার মানুষ বসবাস করে। তৎকালীন পশ্চিম পাকিস্তানের চুক্তি অনুযায়ী তারা বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংযোগের বিল পরিশোধ করে না। এ ক্যাম্পের বিপরীতেই ৬০টি ঘর নিয়ে তৈরি করা হয় রাজু বস্তি। সেখানে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয় ওই ক্যাম্প থেকে। কিন্তু বেশি লোড নিতে না পারায় প্রায়ই লাইন পুড়ে যেত। পরে তারা লাইন কেটে দিলে তা নিয়েই রাজু বস্তি ও বিহারী ক্যাম্পের লোকজনের মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়।
একপর্যায়ে ঝগড়া রূপ নেয় সংঘর্ষে। রাজু বস্তির বাসিন্দারা হামলা চালায় বিহারী ক্যাম্পে। আগুন ধরিয়ে দেয়া হয় বেশ কয়েকটি ঘরে। এসময় অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যায় একই পরিবারের ঘুমন্ত সাতজন। তারা হলেন, ইয়াসিন আলীর স্ত্রী বেবী আক্তার (৪৫), তিন মেয়ে শাহানি (২০), আফসানা (১৮) ও রুখসানা (১৪), যমজ ছেলে লালু ও ভুলু (১২), পুত্রবধূ শিখা (১৯) ও শাহানির ছেলে মারুফ (৩)।

এ অগ্নিকাণ্ডের সময় ইয়াসিনের ছেলে আশিক স্বজনদের উদ্ধার করতে গেলে হামলাকারীরা তার মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপ দেয়। সেখানেই পড়ে যান আশিক এবং অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যান।

পাল্টা জবাব দিতে মরিয়া হয়ে ওঠে বিহারী ক্যাম্পের বাসিন্দারাও। তারাও ধাওয়া করতে থাকে রাজু বস্তির বাসিন্দাদের। দুপক্ষের এ সংঘর্ষের ঠিক মাঝখানেই অবস্থান নেয় পুলিশ। কিন্তু কোনোভাবেই বস্তিবাসীর দুপক্ষকে তারা নিয়ন্ত্রণ করতে পারছিল না। পরে বাধ্য হয়ে গুলি চালালে পুলিশের গুলিতে নিহত হয় আজাদ নামের আরও এক বিহারী। সবমিলে ওই দিনের সংঘর্ষে প্রাণ হারান নয়জন।

আগুনে পোড়ানো এবং সংঘর্ষের এ ঘটনাকে ‘পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড’ বলে দাবি করেন নিহত আজাদের ভগ্নিপতি মো. সুমন। তিনি অভিযোগ করে নিউজবাংলাদেশকে বলেন, “বিহারী ক্যাম্প থেকে কাছের বস্তিতে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া ও তাদের উচ্ছেদ করার পরিকল্পনায় মিরপুর ১১ আসনের সংসদ সদস্য ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লার সমর্থকেরা এ হামলা চালিয়েছিল। এতে এলাকার কয়েকজন যুবলীগ নেতা-কর্মীও জড়িত ছিলেন।”

পুলিশের বক্তব্য: তদন্তের অগ্রগতি নিয়ে মামলার আইও ডিবির পশ্চিম জোনের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) সাইফুল ইসলাম নিউজবাংলাদেশকে বলেন, “কালশী ট্রাজেডির তদন্ত চললেও এখনো কাউকে শনাক্ত করা যায়নি। বেশ কিছু টিভির কাছ থেকে আমরা ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করেছিলাম। কিন্তু লোকজনের অতিরিক্ত সমাগমের কারণে সেখান থেকেও অপরাধীদের শনাক্ত করা সম্ভব হচ্ছে না। তাই রিপোর্টটিও এখনো প্রস্তুত হয়নি।”

তদন্তের ধীরগতির কারণ হিসেবে নিহত আজাদের ভগ্নিপতি সুমন নিউজবাংলাদেশকে বলেন, “আজাদের মৃত্যু পুলিশের গুলিতে হয়েছিল। পুলিশের বিরুদ্ধে পুলিশ কখনো তদন্ত করতে পারবে না। তাই তদন্তে এ ধীরগতি।”

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ: ক্যাম্পবাসীর অভিযোগ, নিহতদের এক বছর স্মরণে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালনে বাধা দেয় পুলিশ। স্বাধীনভাবে চলাচল করতে পারে না তারা। তবে পল্লবী থানা পুলিশের বক্তব্য, ক্যাম্পবাসীর নিরাপত্তার স্বার্থেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ১৪ জুন পবিত্র শবে বরাতে কারেন্টের লাইন নেওয়াকে কেন্দ্র করে শুরু হয় সংঘর্ষ। বিহারীদের অভিযোগ, একপর্যায়ে সকাল ৭টার দিকে পুলিশের উপস্থিতিতে স্থানীয় জনতা বিহারীদের কয়েকটি ঘরে তালা দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ সময় আগুন নেভাতে এলে বিহারীদের ওপর স্থানীয় জনতা হামলা চালায়। পুলিশও গুলি ছোড়ে।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এটিএস/কেজেএইচ

পশুর চেয়েও নিকৃষ্ট ধর্ষক: প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাসের কারণে হজে যাওয়া না হলে টাকা ফেরত: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী দাঙ্গা নয়, দিল্লিতে পরিকল্পিত গণহত্যা হয়েছে: মমতা ভারতের সম্মান তলিয়ে দিয়েছে মোদি সরকার: মমতা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে সুনামগঞ্জে এনামুল-রুপন ছয় দিনের রিমান্ডে পিরোজপুরে সাবেক ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা চলতি বছরই তিস্তা চুক্তির সম্ভাবনা: শ্রিংলা ঢাকা উত্তরের নির্বাচন বাতিল চেয়ে তাবিথের মামলা খুলনায় ছাত্রলীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যা অভিনেতা গোলাম মুস্তাফার জন্মদিন সোমবার আদালতে টাউট-বাটপার শনাক্তের নির্দেশ পাওয়ার ট্রলিকে ধাক্কা দিয়ে বিকল রেলইঞ্জিন কলকাতা সফরে এসে প্রবল বিক্ষোভের মুখে অমিত শাহ রোবট চালাবে গাড়ি! ভিপি নূরকে হত্যার হুমকি দেয়ার পর দুঃখ প্রকাশ টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৭ জন নিহত রাখাইনপ্রদেশে সেনাদের গুলিতে শিশুসহ ৫ রোহিঙ্গা নিহত ইস্কাটনে ভবনে আগুন: মায়ের পর চলে গেলেন রুশদির বাবাও চট্টগ্রামে একটি বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ২ দেশে প্রতিদিন যক্ষ্মায় মারা যায় ১৩০ জন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনাভাইরাস আতঙ্কে আয়ারল্যান্ডের স্কুল বন্ধ ঘোষণা বিশিষ্ট সুরকার সেলিম আশরাফ আর নেই মোদীকে অতিথি হিসেবে সর্বোচ্চ সম্মান দেওয়া হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী মধুর যত জাদুকরী গুণ চিপসের প্যাকেটের ভিতর খেলনা নয়: হাইকোর্ট আমার গাড়িতেও অস্ত্র আছে কী না আমি জানি না: শামীম ওসমান ফ্র্যান্সেও করোনা, অনিশ্চিত কান চলচ্চিত্র উৎসব উপনির্বাচন: গাইবান্ধা-৩ আসনে প্রতীক বরাদ্দ গুজব ও গণপিটুনি রোধে হাইকোর্টের ৫ নির্দেশনা