artk
বুধবার, ডিসেম্বার ২৭, ২০১৭ ৯:১৩

মগ্ন মধ্যাহ্ন-১৩

media

লেখক তৈরির ক্ষেত্রে সবদেশেই ছোট কাগজগুলোর ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ’৭১ পরবর্তীতে এদেশে শিল্প, সংস্কৃতিতে যে জোয়ার শুরু হয় তার সকল ভূমিকা পালন করে ছোট কাগজ। পরিবর্তিত ভূখণ্ড এরকম প্রবহমানতা স্বাভাবিক। নিজস্ব ভাষারীতি, বাঁক-ভঙ্গি নির্মাণে এ প্রয়াস ফলপ্রদ। ষাটদশকে প্রকাশিত স্বাক্ষর, কণ্ঠস্বর, বিপ্রতীপ, বালার্ক, স্যাড জেনারেশন, ছোট গল্প, উত্তর আকাশসহ প্রকাশিত সাহিত্যের কাগজগুলো যেমন আমাদের নতুন লেখক-কবিদের একটি শৈল্পিক পথ তৈরিতে সহায়ক দায়িত্ব পালন করেছে, তেমনি মেধাবান নতুন লেখক আবিষ্কারে অভিভাবকত্ব করেছে। ছোট কাগজগুলোর নিকট ঋণভূমে দাঁড়িয়ে স্বীকার করতেই হচ্ছে, জয়তু ছোট কাগজ। ছোট কাগজগুলোর এ দায়িত্ব অদ্যাবধি অক্ষুণ্ণ রয়েছে।

আব্দুল্লাহ আবু সায়ীদ সম্পাদিত ‘কণ্ঠস্বর’ এর যাত্রা ষাট দশকে হলেও তার প্রকাশনা সত্তর দশকের মাঝামাঝি পর্ষন্ত অব্যাহত থাকে। আর ‘কণ্ঠস্বর’ ঘিরে আবর্তিত লেখককুল এবং তাদের কর্মফসল নতুন এক সৃষ্টিশীল ভুবন উন্মোচিত করেছে, যা আমাদের সাহিত্যের মূল্যবান সম্পদ। আর এ ভূমিকা রাখতে গিয়ে রাষ্ট্র, রাজনৈতিক পরিবেশ-প্রতিবেশ, রাষ্ট্রীয় চরিত্রের প্রভাব লক্ষ্যণীয়। যখন প্রচলিত ধারার বাইরে নতুন কোনও বিষয়, বক্তব্য উত্থাপিত হয় তা রাষ্ট্রীয় কাঠামোতে গ্রহণযোগ্য হয় না। এ প্রতিকূলতার শিকার হয়েছে ভিন্নধর্মী এ কাগজগুলো।

কবি রফিক আজাদের বেশ্যাবিড়াল, আব্দুল মান্নান সৈয়দের গল্প ‘সত্যের মতো বদমাশ’, নির্মলেন্দু গুণের হুলিয়া, অসমাপ্ত কবিতাদ্বয় অনিবার্যভাবে রাষ্ট্রীয় কোপানলে পড়ে। কণ্ঠস্বর, স্বাক্ষর, স্যাড জেনারেশন এর মতো সাহিত্যের কাগজ বারবার রাষ্ট্রীয় বৈরিতার শিকার হয়েছে। এ প্রতিবন্ধকতায় লাভবান হয়েছে আমাদের সাহিত্য।

প্রবহমান জলধারা যেমন কোথাও বাধা মানতে নারাজ, তেমনি দ্রোহী শিল্পসত্বা অতীত এবং বর্তমানকে নিয়ে মহাকালের দিকে এগিয়ে যায়। কোনও বৈরিতাই তাদের স্থবির করতে পারে না। আমাদের শিল্পী, সাহিত্যিক, কবি, সংস্কৃতিসেবীরা এ ভূমিকাই পালন করছে। এ শ্রেণির কাগজ বের হয়েছে মূলত নিজস্ব শিল্পসত্বার তাগিদে।

সদিচ্ছা প্রণোদিত হয়ে সীমিত সম্পদের মধ্যে যাত্রা শুরু করে যে ভাবীকালে মহীরুহতে পরিণত হবে তা উল্লেখিত কাগজগুলোর সম্পাদকীয়তে আশাবাদ প্রকাশ পেয়েছে। কবি আসাদ চৌধুরী, কবি বুলবুল খান মাহবুব অথবা কিছুধ্বনি’র সম্পাদক কবি আন্ওয়ার আহমএদর সাংসারিক খরচ অথবা স্ত্রীদের গয়না বন্ধক রেখে টাকা ধার নিয়ে এসব প্রকাশনার প্রণোদনা যুগিয়েছে।

কবি-সম্পাদক আন্ওয়ার আহমদ প্রায় তেত্রিশ বছর সম্পাদনা করেছেন কবিতার কাগজ কিছুধ্বনি এবং ছোটগল্পের কাগজ ‘রূপম’। দীর্ঘ সময় সাহিত্য নির্ভর দুটি কাগজের প্রকাশনা অব্যাহত রাখা কী দুরূহ কাজ তা গোত্রীয় মানুষের অনুমেয়। শুধু অর্থনৈতিক দিক নয়, লেখা সংগ্রহ, সম্পাদনাসহ আনুষঙ্গিক কাজও আন্ওয়ার আহমদ নিজেই করতেন।

প্রসঙ্গত, কবি আন্ওয়ার আহমদের সঙ্গে আমার ব্যক্তিক কিছু কথা বলা দরকার। নির্ভার, নির্লোভ, পরোপকারী সাহিত্যকর্মী বর্তমানে খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। ’৭৩ ডিসেম্বর মাস। আমার মতো নবীনদের লেখার স্থান তখনও বড় কাগজগুলোতে পোক্ত নয়। বন্ধুদের মুখে শুনলাম, পলওয়েল ভবন থেকে ডিটেকটিভ নামক একটি পুলিশী মুখপত্র বের হয়। যাতে লেখা ছাপা হলে টাকা পাওয়া যায়। পরদিন পলওয়েল ভবনে হাজির। সম্পাদক আমজাদ হোসেনের পাশের চেয়ারে বসে মাথা নিচু করে ঝাঁকড়াচুলের এক লোক কী যেন অনুবাদ করছে। আমজাদ ভাইয়ের কাছে লেখা জমা দিয়ে চা খেয়ে বের হচ্ছি এ সময় পেছন দিক থেকে ডাক পড়ল- এই ছেলে, তুমি কি গল্প-কবিতা লেখ? রেজা! আমি হ্যাঁ সূচক জবাব দিলাম।
ব্যস ওই মুহূর্তে রিকশাযোগে কমলাপুরে তার বাসায়। দুপুরের ভাত, বিকেলের নাস্তা খেয়ে সন্ধেবেলা যখন ঘরে ফিরছি, হাতে ধরিয়ে দিল বিশ টাকা। কৃতজ্ঞতায় আমার চোখে পানি চলে আসে।

তারপর এই দীর্ঘ সময় কবি আন্ওয়ার আহমদের সঙ্গে আমার সম্পর্কে অবশ্যই অর্থ প্রভাব বিস্তার করতো। যেখানে দেখা হয়েছে চুপ করে হাতে কমছে কম পঞ্চাশ টাকা ধরিয়ে দিতো। ছাত্র জীবন পেরিয়ে চাকরিতে ঢুকেছি তখনও এর ব্যত্যয় ঘটে নি। আর লেখালেখির যা কিছু তা তার নিরলস তাগিদ এবং বকাবকির ফসল। কয়েক বছর আগে কবি আন্ওয়ার আহমদের মহাপ্রয়াণ ঘটেছে। সত্যি খুব কষ্ট হয় এরকম একজন অভিভাবক ব্যতিরেকে এ ঢাকা শহরে বাস করতে হবে। সাহিত্য এবং নবীন লেখকদের প্রতি তার ভালোবাসা কিংবদন্তিতুল্য। একজন অভিভাবকের জন্যে এ দেশীয় শিল্প-সংস্কৃতি আপতত এতিম হয়ে থাকলো।

নিউজবাংলাদেশ.কম/এফএ

পশুর চেয়েও নিকৃষ্ট ধর্ষক: প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাসের কারণে হজে যাওয়া না হলে টাকা ফেরত: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী দাঙ্গা নয়, দিল্লিতে পরিকল্পিত গণহত্যা হয়েছে: মমতা ভারতের সম্মান তলিয়ে দিয়েছে মোদি সরকার: মমতা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে সুনামগঞ্জে এনামুল-রুপন ছয় দিনের রিমান্ডে পিরোজপুরে সাবেক ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা চলতি বছরই তিস্তা চুক্তির সম্ভাবনা: শ্রিংলা ঢাকা উত্তরের নির্বাচন বাতিল চেয়ে তাবিথের মামলা খুলনায় ছাত্রলীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যা অভিনেতা গোলাম মুস্তাফার জন্মদিন সোমবার আদালতে টাউট-বাটপার শনাক্তের নির্দেশ পাওয়ার ট্রলিকে ধাক্কা দিয়ে বিকল রেলইঞ্জিন কলকাতা সফরে এসে প্রবল বিক্ষোভের মুখে অমিত শাহ রোবট চালাবে গাড়ি! ভিপি নূরকে হত্যার হুমকি দেয়ার পর দুঃখ প্রকাশ টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৭ জন নিহত রাখাইনপ্রদেশে সেনাদের গুলিতে শিশুসহ ৫ রোহিঙ্গা নিহত ইস্কাটনে ভবনে আগুন: মায়ের পর চলে গেলেন রুশদির বাবাও চট্টগ্রামে একটি বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ২ দেশে প্রতিদিন যক্ষ্মায় মারা যায় ১৩০ জন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনাভাইরাস আতঙ্কে আয়ারল্যান্ডের স্কুল বন্ধ ঘোষণা বিশিষ্ট সুরকার সেলিম আশরাফ আর নেই মোদীকে অতিথি হিসেবে সর্বোচ্চ সম্মান দেওয়া হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী মধুর যত জাদুকরী গুণ চিপসের প্যাকেটের ভিতর খেলনা নয়: হাইকোর্ট আমার গাড়িতেও অস্ত্র আছে কী না আমি জানি না: শামীম ওসমান ফ্র্যান্সেও করোনা, অনিশ্চিত কান চলচ্চিত্র উৎসব উপনির্বাচন: গাইবান্ধা-৩ আসনে প্রতীক বরাদ্দ গুজব ও গণপিটুনি রোধে হাইকোর্টের ৫ নির্দেশনা