artk
শুক্রবার, মে ১, ২০১৫ ১২:১৭

‘সাহেব’ এসেছে আমেরিকা থেকে, মাতাচ্ছে ঢাকা

media

ঢাকা: ‘সাহেবের’ জন্ম সুদূর আমেরিকায়। ছোটবেলাটা কেটেছে ওখানেই। বড় হওয়ার আগেই সাতসমুদ্র তের নদী পাড়ি দিয়ে চলে এসেছে বাংলাদেশে। এখানেই এখন তার ঘরবসতি। পাঁচ বছরের বাংলাদেশ জীবনে কেবল খাওয়া আর ঘুমানোই কাজ নয়। প্রতিদিন অসংখ্য মানুষকে আনন্দে মাতিয়ে রাখে সাহেব। তাকে দেখতে মানুষের ভীড় লেগে যায়, পড়ে যায় সাহেবের ছবি তোলার ধুম।

সাহেব থাকে রাজধানীর হাতিরপুলে। বিকেল হলেই চলে যায় মোতালেব প্লাজার সামনে। আর সেখানেই তাকে দেখতে জটলা বাঁধে মানুষের। সন্ধ্যা অবধি থেকে ফিরে যায় নিজের ঘরে। গত পাঁচ বছর ধরে এটাই ‘সাহেবের’ কাজ।

আমেরিকা থেকে আসা এ ‘সাহেব’ এক উন্নত প্রজাতির টার্কিস মোরগ। বাংলাদেশে উড়ে আসেনি। ইয়াকুব বিন য়ামীন নামে এক পাখিপ্রেমীর হাত ধরে এসেছে। কেবল একাই না, সঙ্গে এসেছে ‘সাহেবের’ জীবন সঙ্গী মেরিসহ আরেক দম্পতি বংশী ও ময়না। ২০১০ সালে বাংলাদেশে তাদের পদার্পণ। ইয়াকুব আদর করে এ মোরগটির নাম দিয়েছেন ‘সাহেব’।

ইয়াকুব বিন য়ামীনের বাসার ছাদেই ‘সাহেব’ ও তার সঙ্গীদের থাকার জায়গা। ছোট্ট ছিমছাম ঘরেই দিন কাটে। ইয়াকুব জানান, পশু-পাখির প্রতি তার আগ্রহ অনেক। ছোটবেলা থেকেই এ আগ্রহ তার মধ্যে। আমেরিকায় বোনের বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে এ মোরগ দেখে বাংলাদেশে নিয়ে এসেছেন তিনি। এখন তার সময় কাটে মোরগ, বিড়াল, পাখি আর গাছের পরিচর্যা করে।

বিকেল হলেই ‘সাহেবকে’ নিয়ে মোতালেব প্লাজার সামনে চলে যান ইয়াকুব। সন্ধ্যা পর্যন্ত সময় কাটান ওখানে। ভিন্নজাতের বড় আকারের এ মোরগ দেখে মানুষের মাঝে তৈরি হয় নানা কৌতূহল। কেউ খাবার দেয়, কেউ আবার ছবি তুলে নিয়ে যায়। মানুষকে এমন আনন্দ দিতেও পছন্দ করেন ইয়াকুব। সেজন্যই তিনি ‘সাহেবকে’ নিয়ে বিকেলগুলো এভাবেই কাটান।

আমেরিকা থেকে ইয়াকুব নিয়ে এসেছেন চারটি মোরগ। এরমধ্যে দুটি পুরুষ ও দুটি নারী। এ দুই দম্পত্তি তিনমাস পর পর ডিম পাড়ে। সে ডিম থেকে গত পাঁচ বছরে জন্ম নেয় অর্ধশত বাচ্চা। আত্মীয় স্বজন ও শুভাকাঙ্খীদেরকেই সেগুলো দিয়ে দেন ইয়াকুব। তবে নিজের কাছেও রেখেছেন ১৪টি। বড় করে তুলছেন আদর যত্নে।

এ মোরগ দেখতে অনেকটা ময়ূরের মতো। পেছনের লেজ ছড়িয়ে দিলে ময়ূর বলে ভুল করতে পারেন যে কেউ। তবে গলার দিকে খানিকটা ঝোলানো। দূর থেকে দেখে রাগি মনে হলেও কারও ওপর কোনও আক্রোশ নেই সাহেবের’। কেউ আদর করতে চাইলে সহজেই চড়ে বসে তার কোলে।

ইয়াকুব বলেন, “আমার অবসর কাটে এদের সঙ্গেই। এদেরকে আমি সন্তানের মতো ভালবাসি। নিজ হাতে খাওয়াই। আমি ডাকলে সবকিছু ছেড়ে ছুটে আসে।”

কথা বলতে বলতে ইয়াকুব নিয়ে যান তার বাসার ছাদে। যেখানে দেখা মেলে আরও কয়েক প্রজাতির মোরগের সঙ্গে। শখেই এসব পালেন বলে জানান পঞ্চাশোর্ধ ইয়াকুব। তার পরিবারের অন্যরাও তার মতোই। স্ত্রী শাকিলা পেশায় হোমিও চিকিৎসক হলেও তারও অবসর কাটে পশু-পাখি পালন করেই। ইয়াকুবের এক ছেলে ও এক মেয়ে পড়াশোনা করছে চিকিৎসা বিজ্ঞানে। তাদেরও শখ পশু-পাখি ঘিরেই।

ইয়াকুব বলেন, “আমি চাই সবাই পশু-পাখির প্রতি যত্নবান হোক। সেজন্যই প্রতিদিন বিকেলে রাস্তার পাশে মানুষকে আমার মোরগ দেখাই। আমার তো আর কোনও চাওয়া নেই। মানুষ দেখে আনন্দ পায় আর এসব বোবা প্রাণীর প্রতি তাদের ভালোবাসা জন্মায়। এতেই আমার সুখ, আমার আনন্দ।’

নিউজবাংলাদেশ.কম/এমএ/এফএ

পশুর চেয়েও নিকৃষ্ট ধর্ষক: প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাসের কারণে হজে যাওয়া না হলে টাকা ফেরত: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী দাঙ্গা নয়, দিল্লিতে পরিকল্পিত গণহত্যা হয়েছে: মমতা ভারতের সম্মান তলিয়ে দিয়েছে মোদি সরকার: মমতা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে সুনামগঞ্জে এনামুল-রুপন ছয় দিনের রিমান্ডে পিরোজপুরে সাবেক ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা চলতি বছরই তিস্তা চুক্তির সম্ভাবনা: শ্রিংলা ঢাকা উত্তরের নির্বাচন বাতিল চেয়ে তাবিথের মামলা খুলনায় ছাত্রলীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যা অভিনেতা গোলাম মুস্তাফার জন্মদিন সোমবার আদালতে টাউট-বাটপার শনাক্তের নির্দেশ পাওয়ার ট্রলিকে ধাক্কা দিয়ে বিকল রেলইঞ্জিন কলকাতা সফরে এসে প্রবল বিক্ষোভের মুখে অমিত শাহ রোবট চালাবে গাড়ি! ভিপি নূরকে হত্যার হুমকি দেয়ার পর দুঃখ প্রকাশ টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৭ জন নিহত রাখাইনপ্রদেশে সেনাদের গুলিতে শিশুসহ ৫ রোহিঙ্গা নিহত ইস্কাটনে ভবনে আগুন: মায়ের পর চলে গেলেন রুশদির বাবাও চট্টগ্রামে একটি বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ২ দেশে প্রতিদিন যক্ষ্মায় মারা যায় ১৩০ জন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনাভাইরাস আতঙ্কে আয়ারল্যান্ডের স্কুল বন্ধ ঘোষণা বিশিষ্ট সুরকার সেলিম আশরাফ আর নেই মোদীকে অতিথি হিসেবে সর্বোচ্চ সম্মান দেওয়া হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী মধুর যত জাদুকরী গুণ চিপসের প্যাকেটের ভিতর খেলনা নয়: হাইকোর্ট আমার গাড়িতেও অস্ত্র আছে কী না আমি জানি না: শামীম ওসমান ফ্র্যান্সেও করোনা, অনিশ্চিত কান চলচ্চিত্র উৎসব উপনির্বাচন: গাইবান্ধা-৩ আসনে প্রতীক বরাদ্দ গুজব ও গণপিটুনি রোধে হাইকোর্টের ৫ নির্দেশনা