artk
মঙ্গলবার, এপ্রিল ১৪, ২০১৫ ১১:২৩

রোগীদের সঙ্গে বৈশাখ কাটালেন ডা. এজাজ

media

ঢাকা: চেম্বারে রোগী দেখে বাংলা বছরের প্রথম দিনটি কাটিয়েছেন অভিনেতা ডা. এজাজুল ইসলাম। বাইরে ঘুরে বেড়ানোর চাইতে একজন অসুস্থ মানুষকে সেবা দেওয়াই তার কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। সেজন্যই দিনের বেশিরভাগ সময় কাটিয়েছেন রোগীদের সঙ্গে। দুপুর থেকে রাত অবধি এ চিকিৎসক অভিনেতা ৮০ জন রোগীর চিকিৎসা সেবা দিয়েছেন।

গত কয়েকবছর এভাবেই পহেলা বৈশাখ উদযাপন করেন ডা. এজাজ। তবে এতে তার বন্ধুরা বঞ্চিত হলেও তিনি মনে করেন, বছরের প্রথম দিন অন্তত কোনো রোগীকে তার চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত করা উচিত না।

তবে দিনের শুরুটা পরিবারের জন্যিই বরাদ্দ রেখেছেন অভিনেতা এজাজ। তিনি বলেন, “সকালে ঘুম থেকে উঠেই নাশতার জন্য ছুট দিলাম। কিংস থেকে পরিবারের সবার পছন্দের নাশতা কিনে আনলাম।”

“তাহলে পান্তা ইলিশ বাদ পড়েছে” এমন প্রশ্ন করতেই যেনো এজাজের মুখটা ছোট হয়ে এলো। কিছুটা আক্ষেপ নিয়েই বললেন, “পান্তা আমার প্রিয় খাবার। নুহাশ পল্লিতে প্রতিদিন সকালে এক গামলা পান্তা খেতাম। এজন্য হুমায়ুন স্যার বলতেন, আমাদের ডাক্তার উটের মতো। উট যেমন একবারই অনেক খেয়ে নেয়, আমিও তেমন খেতাম। সারাদিন আর কিছু খেতে হতো না।”

তবে এখন নানা কারণে ভাত খাওয়া কমিয়ে দিয়েছেন জনপ্রিয় এ অভিনেতা। তিনি বলেন, “স্বাস্থ্যের বিষয় চিন্তা করে ভাত আর আগের মতো খাই না। তাছাড়া ছেলে মেয়েরাও কেনো জানি ভাতের প্রতি খুব একটা আগ্রহী না। তাই আগের মতো ভাত খাওয়া হয় না। আমাকেও তাই ভাত কমাতে হয়েছে।”

কিছুটা আক্ষেপ করেই বলেন, “এটা আমার দুর্ভাগ্যই বলতে হবে যে, আমার সন্তানদের আমি মাছের প্রতি আগ্রহী করে তুলতে পারিনি। অনেক চেষ্টা করেও এটা সম্ভব হয়নি। তাই তাদের জন্য পহেলা বৈশাখের দুপুরেও স্টার কাবাব থেকে চিকেন বিরিয়ানি কিনে এনেছি। বাইরের অস্বাস্থ্যকর খাবারেই তাদের যতো আগ্রহ।”

তবে এজাজের পরিবার ভোজন বিলাসী বলেও জানান তিনি। নিজেও অনেক খেতে পছন্দ করেন। একটু রসিকতা করেই বললেন, “এখন খাওয়া দাওয়া কন্ট্রোল করি। বাঁচার ব্যর্থ আশা নিয়েই খেতে গিয়ে সংযত হই। আর সকালে পান্তা খেতে হলে আমাকে এক গামলাই খেতে হতো। সে লোভ অনেক কষ্টে সংবরণ করেছি।”

পহেলা বৈশাখে রোগী দেখা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “বছরের প্রথম দিন কোনো রোগী যদি চিকিৎসককে না পেয়ে ফেরত যান, তাহলে সেটা তার জন্য অনেক কষ্টকর। আমাদের দেশে তো নানা কুসংস্কার আছে। কেউ কেউ হয়তো মনেও করতে পারেন, প্রথম দিন ডাক্তারের দেখা পাইনি তো, সারা বছর আমার এমনই কাটবে। মূলত সেবা দিতেই আমি এদিন সব ফেলে চেম্বারে বসে রোগী দেখি।”

“কোথাও ঘুরতে যাননি” প্রশ্নটা করার সঙ্গে সঙ্গেই এজাজ বললেন, “ছেলে-মেয়েদের পরীক্ষা সামনে। ঘোরার প্রপোজাল তাই পাওয়া যায়নি। তাদের অনেক পড়াশোনা। তাই ঘোরাঘুরি বাদ। তারা খেতে পছন্দ করে। তাই তাদের পছন্দের খাবারের আয়োজন করা হয়েছে।”

দিনশেষে ডা. এজাজ তার চেম্বারে থাকা লোকজনের খাবারের ব্যবস্থা করতেও ভুলে যাননি। চেম্বারের বিভিন্ন কাজে নিয়োজিত থাকা কর্মীদের জন্য নিজে আয়োজন করেছেন পছন্দের খাবার। তিনি বলেন, “সবাইকে নিয়ে এভাবেই আনন্দ করে বছর কাটিয়ে দিতে চাই।”

নিউজবাংলাদেশ.কম/কেজেএইচ

পশুর চেয়েও নিকৃষ্ট ধর্ষক: প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাসের কারণে হজে যাওয়া না হলে টাকা ফেরত: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী দাঙ্গা নয়, দিল্লিতে পরিকল্পিত গণহত্যা হয়েছে: মমতা ভারতের সম্মান তলিয়ে দিয়েছে মোদি সরকার: মমতা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে সুনামগঞ্জে এনামুল-রুপন ছয় দিনের রিমান্ডে পিরোজপুরে সাবেক ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা চলতি বছরই তিস্তা চুক্তির সম্ভাবনা: শ্রিংলা ঢাকা উত্তরের নির্বাচন বাতিল চেয়ে তাবিথের মামলা খুলনায় ছাত্রলীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যা অভিনেতা গোলাম মুস্তাফার জন্মদিন সোমবার আদালতে টাউট-বাটপার শনাক্তের নির্দেশ পাওয়ার ট্রলিকে ধাক্কা দিয়ে বিকল রেলইঞ্জিন কলকাতা সফরে এসে প্রবল বিক্ষোভের মুখে অমিত শাহ রোবট চালাবে গাড়ি! ভিপি নূরকে হত্যার হুমকি দেয়ার পর দুঃখ প্রকাশ টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৭ জন নিহত রাখাইনপ্রদেশে সেনাদের গুলিতে শিশুসহ ৫ রোহিঙ্গা নিহত ইস্কাটনে ভবনে আগুন: মায়ের পর চলে গেলেন রুশদির বাবাও চট্টগ্রামে একটি বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ২ দেশে প্রতিদিন যক্ষ্মায় মারা যায় ১৩০ জন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনাভাইরাস আতঙ্কে আয়ারল্যান্ডের স্কুল বন্ধ ঘোষণা বিশিষ্ট সুরকার সেলিম আশরাফ আর নেই মোদীকে অতিথি হিসেবে সর্বোচ্চ সম্মান দেওয়া হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী মধুর যত জাদুকরী গুণ চিপসের প্যাকেটের ভিতর খেলনা নয়: হাইকোর্ট আমার গাড়িতেও অস্ত্র আছে কী না আমি জানি না: শামীম ওসমান ফ্র্যান্সেও করোনা, অনিশ্চিত কান চলচ্চিত্র উৎসব উপনির্বাচন: গাইবান্ধা-৩ আসনে প্রতীক বরাদ্দ গুজব ও গণপিটুনি রোধে হাইকোর্টের ৫ নির্দেশনা