artk

ঝিনাইদহ সংবাদদাতা

মঙ্গলবার, জানুয়ারি ২১, ২০২০ ৪:১৪

পুঁইশাকে ভাগ্য বদল কালীগঞ্জের জাহাঙ্গীরের

media

পুঁইশাক চাষ করে যাবতীয় খরচ বাদে দেড় লাখেরও বেশি টাকা আয় করেছেন তিনি।

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের নিয়ামতপুর ইউনিয়নের বারোপাখিয়া গ্রামের দলিল উদ্দীনের ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন। পুঁইশাক ঘুরিয়ে দিয়েছে তার ভাগ্যের চাকা। পুঁইশাক চাষ করে যাবতীয় খরচ বাদে দেড় লাখেরও বেশি টাকা আয় করেছেন তিনি। তার মতে, অন্য ফসল চাষ করে উৎপাদন ব্যয় বাদ দিলে খুব বেশি লাভ থাকে না। আবার ব্যয়বহুল রাসায়নিক সার ও কীটনাশক দিয়ে উৎপাদিত সবজি খেলে মানবদেহের চরম ক্ষতি হয়। তাই তিনি ২৫ শতক জমিতে জৈব পদ্ধতিতে উচ্চ ফলনশীল জাতের পুঁইশাক চাষ করেছেন। তার দেখাদেখি এলাকার অন্য কৃষকদের নজরও এখন পুঁইয়ের দিকে।

কৃষক জাহাঙ্গীর হোসেনের মেছড়ির (পুঁইশাকের বীজ বা ফুল) ক্ষেত পরিদর্শনে দেখা যায়, পাটকাঠি, বাঁশ ও শক্ত মোটা সুতায় তৈরি করা হয়েছে মাচা। স্থানীয় ভাষায় একে বলা হয় বান বা টাল। সেই মাচায় যেন প্রতিযোগিতা করে বেড়ে উঠছে পুঁইয়ের ডগা। সব ডগায় ধরে আছে বিভিন্ন বয়সী মেছড়ি। কিছু লালচে রঙের, যা এখনই খাওয়ার উপযোগী। কিছু মাঝারি আবার কিছু একেবারেই ছোট।

রাত পোহালেই হাটের দিন। তাই জাহাঙ্গীর শ্রমিক নিয়ে মেছড়ি তুলতে মহাব্যস্ত। কৃষক জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, তার মোট আট বিঘার মতো চাষযোগ্য জমি আছে। ২৫ শতকের একখন্ড জমিতে পুঁইয়ের চাষ করেছেন আর অন্য জমি গুলোতে ধান ও অন্যান্য ফসলের চাষ করেছিলেন। কিন্ত পুঁইয়ের জমি থেকে প্রায় দেড় লাখের বেশি টাকা আয় হয়েছে। কিন্তু অন্য জমিগুলোর সব ফসল বিক্রি করেও এতোটা লাভ হয়নি।

তিনি আরও জানান, পুঁইয়ের জমিটি অপেক্ষাকৃত নিচু। জলাবদ্ধতা হতে পারে এমন ঝুঁকি নিয়েই জমিতে পুঁইয়ের চারা লাগিয়েছিলেন। প্রায় নয় মাস আগে লাগানো চারাগুলো যখন তরতাজা হয়ে উঠেছিল, তখন কয়েক দফা বৃষ্টির আঘাতও এসেছে। কিন্ত দ্রুত পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করায় ক্ষতি হয়নি। লতা গুলো খানিকটা লম্বা হবার পর শক্ত করে মাচা দিয়েছিলেন, যাতে আপন গতিতে বেড়ে উঠতে পারে। এর কিছুদিন পর থেকেই পুঁইশাকের ডগা কেটে বিক্রি শুরু করেন। ডগা বিক্রি করে তিন মাসে আয় হয় প্রায় ৪০ হাজার টাকা।

শীতের আগমনের সঙ্গে সঙ্গে কিছুদিন ডগা কাটা বন্ধ রেখে পরিচর্যা করতে থাকেন। এ সময়ে প্রত্যেক ডগার বীজ বড় হলে চড়া দামে বিক্রি শুরু করেন। তিনি বলেন, প্রথম দিকে প্রতি কেজি মেছড়ি ৮০ টাকায়ও বিক্রি করেছেন। প্রতি সপ্তাহে দুই দিন মেছড়ি তুলে বাজারে বিক্রি করেন। গাছ এখনো সতেজ রয়েছে। ফলে আরো বেশ কিছুদিন মেছড়ি বিক্রি করতে পারবেন।

কৃষক জাহাঙ্গীর আরো জানান, এ চাষে তেমন একটা খরচ নেই। একটু ঘনঘন সেচের ব্যবস্থা করতে হয়। যেহেতু সবজি তাই এ ক্ষেতে রাসায়নিক সার বা কীটনাশকের পরিবর্তে জৈব সার প্রয়োগ করেছেন। এতে একদিকে যেমন খরচ সাশ্রয়ী হয়েছে, অন্যদিকে বাজারের অন্যান্য মেছড়ির চেয়ে বেশি নিরাপদ ও সুস্বাদু। তাই এলাকায় তার ক্ষেতের মেছড়ির চাহিদা অনেক বেশি।

এ বিষয়ে মোক্তার হোসেন নামে আরেক কৃষক জানান, তাদের মাঠটি বেশ নিচু। একটু ভারী বর্ষা হলেই পানি জমে যায়। ফলে জাহাঙ্গীরের পুঁইয়ের ক্ষেতটি ছিল অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। তারপরও কঠোর পরিশ্রমে এবং ভালো জাতের বীজ হওয়ায় ফলন ভালো হয়েছে। অথচ ক্ষেতে পুইয়ের চারা রোপণ করার সময় গ্রামের মানুষ বেশ ঠাট্টা করেছিলেন। কিন্তু এ ক্ষেত থেকে পুঁইশাক আর মেছড়ি বিক্রি করে যে টাকা পেয়েছেন তা অন্য ফসলের পাঁচ বিঘা চাষ করেও হয়নি।

আগামীতে তিনি নিজেও এক বিঘা জমিতে পুঁইশাকের চাষ করবেন বলে ইচ্ছা প্রকাশ করেন মোক্তার।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জাহিদুল করিম জানান, কৃষক জাহাঙ্গীর হোসেন তার ২৫ শতক জমিতে উচ্চ ফলনশীল জাতের পুঁইয়ের চাষ করেছেন। প্রথম দিকে পুঁইশাকের ডগা বিক্রি করে বেশ আয় করেছেন। এখন বিক্রি করছেন পুঁইয়ের ফল বা মেছড়ি।

তিনি আরো জানান, চলতি বছরে সবজির দাম ভালো থাকায় বেশ লাভবান হয়েছেন কৃষক জাহাঙ্গীর। তিনি কয়েক দফা তার ক্ষেতে গিয়েছিলেন। অর্গানিক পদ্ধতিতে চাষ করার জন্য তাকে উৎসাহিতও করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিল হুয়াওয়ে ‘ভারত বুঝুক, হারের পর সামনে এসে উল্লাস করলে কেমন লাগে’ মৎস্য কর্মকর্তা লাঞ্ছিত, উপজেলা চেয়ারম্যান বরখাস্ত নারায়ণগঞ্জে শিশুসহ একই পরিবারের দগ্ধ ৮ নায়ক মান্না চলে যাওয়ার ১ যুগ করোনায় মৃত্যুর মিছিলে আরও ১০০ জন বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে ২ মেডিক্যাল শিক্ষার্থী নিহত ইঁদুরেই খেয়েছে ১ লাখ মেট্রিক টন ফসল করোনাভাইরাস আতঙ্কে সিঙ্গাপুরফেরত স্বামীকে রেখে পালালেন স্ত্রী ঘুষের অভিযোগ থেকে সিনহাকে অব্যাহতি কোভিড ১৯: এবার তাইওয়ানে প্রথম মৃত্যু ভোটাররা দেরিতে ঘুম থেকে উঠায় ভোট হবে ৯টায়: ইসি সচিব এই সেলফি তোলার পরেই ট্রেনের ধাক্কায় স্কুলছাত্রের মৃত্যু করোনাভাইরাস: প্রযুক্তিই চীনের শেষ ভরসা সঞ্চয়পত্রে নয়, সুদ কমেছে ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমের: অর্থ মন্ত্রণালয় বিশ্বকাপজয়ী ৬ ক্রিকেটার নিয়ে বিসিবি একাদশ ঘোষণা সিরাজগঞ্জে বাস খাদে পড়ে নিহত ৩ চট্টগ্রাম, বগুড়া ও যশোর সিটিতে ভোট ২৯ মার্চ করোনাভাইরাস শনাক্তে বাংলাদেশকে উন্নত কিটস দেবে চীন একত্রে কাজ করবে ডিএসই ও সিএসই বিশ্রামে রিয়াদ, ফিরলেন তাসকিন-মোস্তাফিজ করের বকেয়া অর্থ না দেয়াও দুর্নীতি: দুদক চেয়ারম্যান দক্ষদের নিয়োগ দিচ্ছে টেসলা, ডিগ্রি না হলেও চলবে খালেদা জিয়ার প্যারোল আবেদন সরকার পায়নি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চিকেন পক্স হলে কী খাবেন বাংলা তারিখ ব্যবহারে নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট কারিগরি শিক্ষার্থীদের বেশি গুরুত্ব দেয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ডিএসইএক্সের সেরা দ্বিতীয় উত্থান মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে তৃতীয় মেয়াদে শপথ নিলেন কেজরিওয়াল ফিটনেস ও নিবন্ধনহীন গাড়ি বন্ধে সব জেলায় টাস্কফোর্স গঠনের নির্দেশ