artk
মঙ্গলবার, অক্টোবার ২২, ২০১৯ ৯:১২   |  ৭,কার্তিক ১৪২৬

ধর্ম ডেস্ক

মঙ্গলবার, অক্টোবার ৮, ২০১৯ ৮:৫৮

কারাগারেই ১৫ মাসে পুরো কুরআনে হাফেজ মাদক পাচারকারী!

media

মাদক পাচারের অপরাধে কারাগারে বন্দি আব্দুল কাদের গিলানি। কারাদণ্ড শেষ হওয়ার আগেই তিনি মাত্র ১৫ মাসে পুরো কুরআনুল কারিম মুখস্থ করার সৌভাগ্য অর্জন করেন।

মাদক পাচারের অপরাধে কারাগারে বন্দি আব্দুল কাদের গিলানি। কারাদণ্ড শেষ হওয়ার আগেই তিনি মাত্র ১৫ মাসে পুরো কুরআনুল কারিম মুখস্থ করার সৌভাগ্য অর্জন করেন।

তুর্কি গণমাধ্যম ‘ইয়েনি শাফাক’-এর তথ্য মতে, মাদক পাচারের অপরাধে ১৮ মাসের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হন আব্দুল কাদের গিলানি। দেড় বছর সাজা হওয়ার পর তিনি সিদ্ধান্ত নেন যে, পুরো কুরআনুল কারিম মুখস্থ করবেন। মাদকের অন্ধকার জগত থেকে আলোর পথে ফিরবেন।

তুরস্কের এ বন্দি দৃঢ় প্রতিজ্ঞা ও অধ্যাবসায়ের মাধ্যমে মাত্র ১৫ মাসে কারাগারে বসেই সম্পূর্ণ কুরআন মুখস্থ করতে সক্ষম হয়েছেন।

তুরস্কের কোনিয়া কারাগারে বন্দি আব্দুল কাদের গিলানি নিজে কুরআন মুখস্থ করেই থেমে থাকেন নি। তিনি কারাগারে বন্দি আরও ১৩ জন কয়েদিকে কুরআন হেফজ করার পদ্ধতি সম্পর্কে বিশেষ প্রশিক্ষণ দিয়েছন। যাতে কারাগারে কুরআন হেফজের এ পদ্ধতি চালু থাকে। তারাও পবিত্র কুরআন মুখস্ত করতে সক্ষম হয়েছেন।

আব্দুল কাদের গিলানির ভাষায়, ‘আমাকে ১৮ মাসের কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে। সাজা পাওয়ার পর আমার বিশ্বাস জন্মে যে, এ সাজার মধ্যে কল্যাণ নিহিত রয়েছে। তবে আমি কখনোই চিন্তা করেনি যে, একদিন আমি পুরো কুরআন হেফজ করতে সক্ষম হবো।’

‘আদালতে যেদিন আমার অপরাধের রায় ঘোষণা হয়, সেদিনই আমি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করি যে, কুরআন মুখস্থ করবো। এ সিদ্ধান্তকে সফল করতেই আমি কারাগারের ব্যবস্থাপনা দায়িত্বশীলদের সঙ্গে যোগাযোগ করি। তারা আমাকে পবিত্র কুরআনুল কারিম হেফজ করতে পুরোপুরি সহযোগিতা করেন। তাদের সহযোগিতা ও আমার ঐকান্তি ইচ্ছায় পুরো কুরআন হেফজ করার স্বপ্ন পূরণ হয়েছে বলেও জানান তিনি।

জেলখানায় কয়েদিদের মাঝে কুরআন মুখস্তের এ ধারা অব্যাহত রাখতেই আব্দুল কাদের গিলানি ১৩ জন কয়েদিকে কুরআন মুখস্ত করার কৌশল ও পদ্ধতির প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। তারাও কুরআন হেফজ করতে সক্ষম হয়েছেন।

বিশ্বের প্রতিটি জেলখানায় এ ধারা অব্যাহত থাকলে নিঃসন্দেহে অপরাধ প্রবণতা কমে আসবে। কুরআনের আলোকিত জীবনের সন্ধান পাবে মানুষ।

ভোলার সেই বিপ্লবের ভগ্নিপতিকে তুলে নেয়ার অভিযোগ পদত্যাগ করবেন না দুর্জয়-সুজন জাপান সম্রাটের অভিষেকে যোগ দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশকেও নিষিদ্ধ করতে চেয়েছিল আইসিসি: পাপন আন্তর্জাতিক সংগঠন ফিকার সমর্থন পাচ্ছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা সীতাকুণ্ডে যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে এসআই আটক ১৪ দলের বৈঠকে যাননি মেনন ঘুষ নেয়ার সময় রাজস্ব কর্মকর্তা গ্রেফতার ‘ভারত সফরে যাবে বাংলাদেশ’ ‘ষড়যন্ত্রকারী’দের খুঁজে বের করার সময় চান পাপন ক্রিকেটারদের ১১ দাবি নিয়ে মাশরাফি যা বললেন আবারও ১৪ ভারতীয় জেলে আটক কানাডায় আবারো প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে জাস্টিন ট্রুডো ৮১ শতাংশ কোম্পানির শেয়ার দর কমেছে ঢাকায় নদীর তীরে ফ্ল্যাট কিনতে সাবধান ক্রিকেটাররা খেললে খেলবে, না খেললে নাই: পাপন দুদকের কেউ কাউকে হয়রানি করলে ব্যবস্থা: ইকবাল মাহমুদ নতুন বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তির ঘোষণা বুধবার শিক্ষক বাবাকে রড দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করে ৯৯৯–এ ফোন! ইসরাইলে সরকার গঠনে ব্যর্থ নেতানিয়াহু ভোলার ঘটনায় উস্কানিমূলক পোস্ট, কুমিল্লায় আটক ২ সবাই জেনেশুনে অংশ নিয়েছে বলে মনে হয় না: পাপন ২০২০ সাল পর্যন্ত ল্যান্ডফোন সংযোগ ফ্রি: মোস্তাফা জব্বার পদ্মা সেতুতে বসলো ১৫তম স্প্যান দ্বিতীয় দিনের মতো অনশনে শিক্ষকরা আবারো বাড়তে পারে পেঁয়াজের দাম ক্রিকেটারদের ধর্মঘট ষড়যন্ত্রের অংশ: বিসিবি সভাপতি নিরাপদ সড়ক দিবসে ট্রাক চাপায় নিভে গেলো স্কুলছাত্রের প্রাণ হাতিরঝিলের ‘ক্যানসার’ বিজিএমইএ ভবন ভাঙার প্রক্রিয়া শুরু ধর্ষণের পর হত্যা: আক্কেলপুরে ৭ আসামির মৃত্যুদণ্ড