artk
শুক্রবার, অক্টোবার ১৮, ২০১৯ ১১:৫৯   |  ৩,কার্তিক ১৪২৬

রামপাল (বাগেরহাট) থেকে সুজন মজুমদার

বুধবার, অক্টোবার ২, ২০১৯ ২:৩২

বাগেরহাটে হচ্ছে উপমহাদেশের সর্ববৃহৎ দুর্গাপূজা

media

বাগেরহাটের হাকিমপুর শিকদার বাড়িতে ৮০১টি প্রতিমা তৈরির মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে উপমহাদেশের সর্ববৃহৎ শারদীয় দুর্গাপুজা। ইতিমধ্যে প্রতিমা তৈরির সকল প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন হয়েছে।

৪ অক্টোবর মহাষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে দেবী দুর্গার বোধন। দুর্গতীনাশিনী দেবী দুর্গা এবার ঘোটকে চড়ে মর্তে আগমন করবেন। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সর্ববৃহৎ শারদীয় দুর্গাপূজা উপমহাদেশের বাগেরহাটের হাকিমপুর শিকদার বাড়ি প্রতিবছরের মতো এবারও মহা ধুমধামে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ছয় দিনব্যাপী ধর্মীয় এই অনুষ্ঠানে থাকছে বৈচিত্র্যময় নানা আয়োজন। ব্যাপক এই আয়োজনে থাকছে সত্য, ত্রেতা, দ্বাপর আর কলি যুগে মর্তে অবতীর্ণ হওয়া ৮০১টি অবতার স্থাপনের মাধ্যমে ইতিমধ্যে ব্যাপক সাড়া পড়েছে। আর মাত্র কয় দিন। তার পরই শুরু হবে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সর্ববৃহৎ শারদীয় দুর্গাপুজা। আপাতত মণ্ডপে প্রতিমা ও মাটির কাজ শেষ হয়েছে। চলছে শেষ মুহূর্তের রং-তুলির কারুকার্য।

২০১১ সালে বৃহৎ এই পূজা সর্বপ্রথম ২৫১টি প্রতিমা তৈরির মাধ্যমে শুরু করেন দুলাল কৃষ্ণ শিকদার। পর্যায়ক্রমে তা বেড়ে আজ ৮০১টি প্রতিমা স্থাপনের মধ্যমে সর্বশ্রেষ্ঠত্ব লাভ করেছে। দ্বীর্ঘ ছয় মাস অক্লান্ত পরিশ্রমের মাধ্যমে ১৫ জন কারুশিল্পী দিন রাত দক্ষতায় গড়ে তুলেছেন এমন সব প্রতিমা।

আকাশ এখন ছেড়া ছেড়া সাদা মেঘের ভেলা শরতের কাশফুলে চারদিক সুবাসিত। দেখা মেলে ভোরবেলা শিউলি ফুলের। দিকে দিকে চলছে দেবী বন্দনা। বছর ঘুরে উমাদেবী আবার আসছেন তার বাপের বাড়ি। ঢাকের কাঠি ঢেম কুড় কুড়, ঘণ্টা-কাসার টিং টিং, মঙ্গল শাঁখ ও নববধূও উলু-ধ্বনির সাথে মায়ের আগমন উপলক্ষে চারদিকে কেবল আনন্দঘন আয়োজন। দুর্গোৎসব মানেই আবহমান বাঙালির প্রাণের উৎসব। জাতি, ধর্ম, বর্ণ, নির্বিশেষে সকলে এই আনন্দ আয়োজনে সামিল হয় বলে দুর্গাপূজাকে বলা হয় সার্বজনীন শারদীয়া দুর্গাপুজা। ধনী-গরিব ভেদাভেদ ভুলে মণ্ডপে মণ্ডপে সোনা যায় মা আনন্দময়ীর আগমনী স্তুতি। সাধারণত আশ্বিন, কার্তিক মাসের শুল্ক পক্ষকে দেবী পক্ষ বলা হয়। দেবীপক্ষের অমাবস্যায় মহালয়ার মধ্যমে শুরু হয় দুর্গোৎসব। ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান,আধ্যাত্মিকতার অনুভূতি, সংস্কৃতি, বৈচিত্র, বাণিজ্য, বিদ্যাচর্চা, সামাজিক প্রীতির বন্ধন, হাজার বছরের বাঙালির সমন্বয় ও শক্তির ঐতিহ্যকে প্রকাশ করে এই উৎসব। মাতৃপ্রধান পরিবারের মা-ই প্রধান শক্তি। তার নেতৃত্বে সংসার প্রচালিত হয় এবং শত্রু নাশ হয় আর তাই মাকে সামনে রেখে দেবী বিশ্বাস গড়ে ওঠে। গড়ে ওঠে সম্প্রদায় মত। এই মত অনুসারে, দেবী হলেন শক্তির রূপ, তিনিই সর্ব শক্তিমান।

সরজমিনে দেখা যায় সুবিশাল মণ্ডপে থাকছে নান্দনিক কারুশিল্পীদের তৈরি দুর্গতি নাশিনীর প্রতিমা। মূল বেদীর সামনে দীর্ঘ সারিতে সারিবদ্ধভাবে সাজানো রয়েছে বিভিন্ন অবতারদের প্রতিমা। যেমন, বিশ্বমিত্রের সংঙ্গে শ্রীরাম-লব, তাড়কা-সংহার, মায়ার চক্র দ্বার হাতির মস্তক কর্তন, শ্রী-কৃষ্ণ কংশোর দুষ্টু অনুচরকে বধ, শ্রী-কৃষ্ণ আট সখিদের নিয়ে হোলিখেলা, শ্রী-কৃষ্ণ আট সখিদের নিয়ে নৌকা বিলাস, পৃথিবির প্রথম রূপ নারায়ণের অনন্ত শয্যায় ক্ষিরোদ সাগরের উপর, বিশ্ব মিত্রের যঞ্জ-রা, অহলা উদ্ধার, রঙ্গভূমিতে দুই রাজকুমার, ধনুক ভঙ্গ, চার কুমারের বিবাহ, পিতার বাক্য পালন, সীতার উপদেশ-বনগমন,মাঝির ভাগ্য ও চিত্র কুটের সভায় সোভা,মনু-শতরুপাকে বরদান,দেবতাদের প্রার্থনা, শ্রীরামাবতার, সচ্চিদানন্দেও দ্যোতিষী দশরথের ভাগ্য, ধনু বিদ্যার অভ্যাস, সখ্যদের সাথে শিকারসহ ১৭টি বাল্যলীলার কাহিনী রূপায়িত করা হয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন দেব-দেবীর প্রতিমা স্থাপন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানকে আরো শ্রীবৃদ্ধির জন্য মূল মঞ্চের বাইরে পুকুরের মধ্যে বিশাল আকৃতির বাহুবলীর নৌকার মধ্যে অষ্টসখিদের প্রতিমা তৈরি করা হয়েছে। রাতের আঁধারে আলোক সজ্জায় এক নয়াভিরাম দৃশ্য দেখতে পারবেন আগত দর্শনার্থীরা।

খুলনা জেলার কয়রা উপজেলার হাতিয়ারডাঙ্গা গ্রামের বিজয় কৃষ্ণ বাছাড় তার তিক্ষ্ণ কারুকার্যে গড়ে তুলেছেন এমন সব নান্দনিক প্রতিমা। চার বছর ধরে তিনি শিকদার বাড়ি প্রতিমা তৈরি কাজ করে আসছেন। এবছর ৮০১টি তথ্যবহুল বিভিন্ন দেব-দেবীর প্রতিমা তৈরি করতে পেরে তিনি ধন্য। মোট ১৫ জন কারুশিল্পী  দীর্ঘ ছয় মাস অক্লান্ত পরিশ্রমের মাধ্যমে দিন রাত দক্ষতায় গড়ে তুলেছেন এই সব প্রতিমা। শৈশব থেকে তিনি এ কাজের সাথে জড়িত।

দুলাল কৃষ্ণ শিকদার সর্বপ্রথম বাগেরহাটের শিকদার বাড়িতে ২৫১টি প্রতিমা স্থাপনের মাধ্যমে দুর্গাপূজা শুরু করেন। প্রতিবছর প্রতিমা বৃদ্ধির ধারাবাহিকতায় নয় বছরে এসে দাঁড়িয়েছে ৮০১টি প্রতিমা। ব্যয়বহুল এই আয়োজনে স্থান করে নিয়েছে উপমহাদেশে সর্ববৃহৎ শারদীয় দুর্গাপূজা হিসাবে। দুলাল কৃষ্ণ সম্প্রতি মারা যাওয়ায় মন্দিরের সার্বিক পৃষ্ঠপোষকতা করছেন তার ছেলে শিল্পপতি লিটন শিকদার। তিনি বলেন, “বাবার স্বপ্ন ও ধর্মীয় এই পূজা সবার সহযোগিতায় চলমান থাকবে। প্রতি বছর দর্শনার্থীদের জন্য থাকবে ভিন্ন ভিন্ন চমক। দুর্গাপুজা হলো অশুভ, অন্যায়, পাপ, পল্কিলতার বিরুদ্ধে ন্যায়, পুন্য, সত্য, শুভ ও সুন্দরের যুদ্ধ। দেবীর চরণে ভক্তদের কাতর নিমতি এবারের দুর্গোৎসব যেন সামাজিক বন্ধনকে সুদৃঢ় করে সৌহার্দ্য হিংসা, বিদ্ধেষ, কলুষতামুক্ত করে দেশ ও জাতির কল্যাণ করবেন দুর্গতী নাশিনী মা দুর্গা।”

সর্ববৃহৎ এই পূজা উপলক্ষে নিরাপত্তার বিষয় বাগেরহাটের পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায়ের কাছে মুঠোফেনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “ধর্মীয় এই বৃহৎ পূজায় আমরা ব্যাপক নিরাপত্তা গ্রহণ করেছি। নির্বিঘ্নে পূজা উৎযাপনের জন্য সমস্ত এলাকায় আমাদের আইনশৃঙ্ক্ষলা বাহিনী তৎপর থাকবে। আমারা নিরাপত্তার স্বার্থে সার্বক্ষণিক সমস্ত এলাকায় মনিটরিং করবো যাতে কোনো অবস্থাতেই অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে।”

 

বাংলাদেশকে শতভাগ সহযোগিতা করার কথা বললেন সৌরভ আফগানিস্তানে মসজিদে বোমা হামলায় নিহত ৬২ আবারও ব্যর্থ সৌম্য, সেঞ্চুরি বঞ্চিত ইমরুল চোট নিয়েই সাইফের ডাবল সেঞ্চুরি যুবলীগের দায়িত্ব পেলে উপাচার্যের পদ ছেড়ে দেব: ড. মীজান ৩ শতাধিক ভারতীয়কে দিল্লিতে ফেরৎ পাঠাল মেক্সিকো শিশু হত্যা-নির্যাতন বরদাশত করা হবে না: প্রধানমন্ত্রী জাতীয় লিগে বল হাতে ভয়ঙ্কর আবু হায়দার রনি ফের বাংলাদেশ দলকে ব্যঙ্গ করলেন শেবাগ জামায়াতকে তালাক দিয়ে বিএনপিকে রাস্তায় নামার আহ্বান জাফরুল্লাহর বাংলাদেশে পাবজি গেম নিষিদ্ধ তাজরিন ফ্যাশনে ক্ষতিগ্রস্থ শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণের দাবিতে মানববন্ধন ‘আমি মায়ের কাছে যাবো’ সিলেট বিএনপির কমিটিতে কেন্দ্রের হস্তক্ষেপ না করার ওয়াদা তারেক রহমানের ঐক্যের ডাক গ্রামে নিয়ে যেতে হবে: ড. কামাল সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ বাংলাদেশি নিহত ভুল বোঝাবুঝির কারণে সীমান্তে গোলাগুলি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নওয়াপাড়ায় বাসের ধাক্কায় দুই পথচারীর মৃত্যু আবরার দেশপ্রেমিক জনগণের আন্দোলনের মূর্তপ্রতীক: রিজভী ১ মিটার প্রস্থের বাড়ি শাহ আমানতে ১৩০ সোনার বারসহ যাত্রী আটক সাভারে গাড়ির ধাক্কায় যুবক নিহত জবির বিজ্ঞান বিভাগের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ গণভবনে কেন ডাকা হয়নি ওমর ফারুককে পঞ্চগড়ে রাস্তার ধারে ফুটফুটে শিশু ছাত্র রাজনীতি সূর্যের আলো ঠিকরে পড়ে প্রবালে জয়পুরহাটে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১ টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই রোহিঙ্গা নিহত কম বয়সে মেনোপজে বাড়ে হৃদরোগের সম্ভাবনা